রহস্যময় এক অন্ধকার ভার্চুয়াল জগত – Dark Web

Level 2
Student, ইনস্টিটিউশন অফ ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইইবি), ঢাকা

হেলো বন্ধুরা কেমন আছেন আপনারা? আশাকরি ভাল আছেন। আজকে আপনাদের জন্য নতুন একটি টিউন “রহস্যময় এক অন্ধকার ভার্চুয়াল জগত - Dark Web” নিয়ে হাজির হলাম। ইন্টারনেটের অন্ধকার এক জগত হল এই deep web। শুধু Deep Web না এর থেকেও অন্ধকার রহস্যময় ইন্টারনেটের জগত আছে সেটা হল Dark Web। খুব কম মানুষই ইন্টারনেটের এই গভীর রহস্যময় এলাকা সম্পর্কে জানে। তবে ডার্ক ওয়েব নিয়ে মুখরোচক গল্প হরহামেশাই শুনতে পাওয়া যায় যার তার মুখে। আসলে এটা নিয়ে কারোই বিস্তারিত ধারণা নেই। আমারও ধারণা অনেক কম এটা নিয়ে। অনলাইন ঘাটাঘাটি করে ডার্ক ওয়েব নিয়ে কিছু আর্টিকেল পড়ে এবং কিছু তথ্য উপাত্ত সম্পর্কে সামান্য জ্ঞান অর্জন করেছিলাম। যতটুকু জানি তার কিছু অংশ আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম আজকে। তো চলুন শুরু করা যাক আজকের টিউন “রহস্যময় এক অন্ধকার ভার্চুয়াল জগত - Dark Web” নিয়ে আলোচনা।

ডার্ক ওয়েব কি?

বর্তমানের তথ্য প্রযুক্তির যুগে আমরা কম বেশী সবাই ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত অথবা জীবনের কোন না কোন সময় ইন্টারনেট ব্যবহার করেছি অথবা ইন্টারনেট নির্ভর কোন কাজ করেছি। আর যারা আমার এই টিউনটি পড়ছেন তারা তো সবাই ইন্টারনেট সম্পর্কে দারুণ অভিজ্ঞ। তো আমরা যখন কোন ওয়েব সাইট ভিজিট করি তখন সেই সাইটের ইউআরএল একটি ব্রাউজারের এড্রেস-বারে টাইপ করি বা গুগলে সার্চ করে সেই সাইটের লিংক খুঁজে বের করে ভিজিট করি। তা আপনাদের কি মনে প্রশ্ন জাগে কখনও গুগল টোটাল ওয়েবের কত পার্সেন্ট ওয়েবসাইট কে ইন-ডেস্ক করে রাখতে পেরেছে! মাত্র ৫ কি ১০ পার্সেন্ট!

কি অবাক হচ্ছেন! সারা বিশ্বে আজকের এই দিন পর্যন্ত যত ওয়েব সাইট বা ওয়েব এপ্লিকেশন লঞ্চ হয়েছে তার প্রায় ৯০ পার্সেন্ট ওয়েব এপ্লিকেশন কখনও কোন সার্চ ইঞ্জিন খুঁজে পাই না বা ইন-ডেস্ক করার ক্ষমতা রাখে না। তাই সাধারণ ব্যবহারকারীর কেউ কখনও সেই সাইট গুলো খুঁজে পাই না। আর কোন ভাবে যদি খুঁজেও পাই তবে কখনও সাধারণ কোন ওয়েব ব্রাউজার দিয়ে ঢুকতে পারবে না। এই যে এই সব হিডেন ওয়েবসাইট গুলোর সমষ্টিকে এক সাথে ডার্ক ওয়েব বলে। ডার্ক ওয়েবে ঢুকার জন্য বিশেষ পদ্ধতি আছে এবং বিশেষ প্রযুক্তির ব্রাউজার আছে।

ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করার পদ্ধতি

আমরা সাধারণ ওয়েব সাইট গুলো আমাদের পরিচিত সব ওয়েব ব্রাউজার দিয়ে ব্রাউজ করতে পারি কিন্তু ডার্ক ওয়েবে অবস্থিত কোন সাইট ভিজিট করার জন্য আপনি সাধারণ কোন ব্রাউজার ব্যবহার করে কখনও ঢুকতে পারবেন না। এজন্য দরকার হবে TOR Browser নামে একটি বিশেষ ব্রাউজার। টর ব্রাউজার টি একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রোগ্রামার দল ডেভেলপ করেছে। এটা ব্যবহার করা একদম ফ্রি। তবে তাদের কে আপনি ইচ্ছা করলে ডোনেট করতে পারেন। এতে তাদের অনেক উপকার হয় তবে ডোনেট করা আপনার ইচ্ছা, করলেও করতে পারেন আবার নাও করতে পারেন।

ডোনেট করেন আর না করেন কোন সমস্যা না আপনি সোজা গুগলে টর ব্রাউজার বলে সার্চ দিবেন। তাহলে টর ব্রাউজারের ওয়েব সাইট পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে টর ব্রাউজার একদম ফ্রি তে ডাউনলোড করে নিবেন। তারপর আপনার কম্পিউটারে ইন্সটল করবেন আর সব সাধারণ ব্রাউজারের মতই। ইন্সটল হয়ে গেলে আপনার টর ব্রাউজারটি অন্য সব সাধারণ ওয়েব ব্রাউজারের তুলনায় অতি সাধারণ দেখা যাবে। সাধারণ দেখা গেলেও কাজ কিন্তু অসাধারণ করে যা দেখে আপনি চমকিত হবেন। এখন আপনি কিছু ডার্ক ওয়েবের কিছু সাইটের লিংক খুঁজে টর ব্রাউজারের এড্রেস-বারে লিখে সহজে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে পারবেন। তারপর যা ঘটবে সব আপনার দায়! এখন চলেন জেনে আসি ডার্কনেট মার্কেট কি?

ডার্কনেট মার্কেট

ডার্কনেট মার্কেট হল ডার্ক-ওয়েবের অন্ধকার জগতের কমার্শিয়াল প্লেস। আমরা আমাজন, আলি-এক্সপ্রেস, দারাজ ইত্যাদি অনলাইন মার্কেট প্লেস থেকে প্রোডাক্ট ক্রয় করি ঠিক তেমনই ডার্কনেট মার্কেট হল অবৈধ প্রোডাক্ট এর অনলাইন বাজার। সেখানে সকল প্রকার অবৈধ প্রোডাক্ট কেনা বেচা হয়। এসব প্রোডাক্ট ওপেনে বিক্রয় করা নিষিদ্ধ বলেই তারা এগুলো ডার্ক-ওয়েবের ডার্কনেট মার্কেটে বিক্রয় করে থাকে যাতে কোন দেশের আইনের লোক তাদের ধরতে না পারে। এবার তাহলে সবাই বুঝতে পেরেছেন ডার্কনেট মার্কেট কি?

শেষ কথা

আমরা আজকে ডার্ক ওয়েব নিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করলাম। ডার্ক-ওয়েব অনেক ভয়ানক এক জায়গা ইন্টারনেট জগতের। সেখানে সাধারণত নানা ধরনের অপকর্ম হয়। তাই সেখানে না বুঝে না জেনে আন্দাজে কেউ প্রবেশ করার চেষ্টা করবেন না। আর জেনে রাখা ভাল আপনারা সাধারণ কম্পিউটার দিয়ে কখনও ডার্ক-ওয়েবের সব ওয়েব সাইট ভিজিট করতে পারবেন না। দরকার হবে বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন কম্পিউটারের। যাই হোক কেউ ডার্ক ওয়েব নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করার চেষ্টা করবেন না। না জেনে করলে ক্ষতি হতে পারে আবার নাও পারে। সবাই ভাল থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।

Level 2

আমি মো সাদ্দাম হোসাইন। Student, ইনস্টিটিউশন অফ ইঞ্জিনিয়ার্স, বাংলাদেশ (আইইবি), ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 19 টি টিউন ও 5 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস