ওয়েব এবং ডার্ক ওয়েব নিয়ে বিস্তারিত তথ্য

টিউন বিভাগ ইন্টারনেট
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

বন্ধুরা ডার্ক ওয়েব নাম শুনলেই আমাদের মনে অনেক প্রশ্ন ঘুরপাক খায়। এটি নিয়ে মানুষের অনেক ভুল ধারণা রয়েছে। তাছাড়া অনেকের মনে এই ডার্ক ওয়েব নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন ঘুরপাক খায়। আজকের টিউনে আমি তোমাদের ডার্ক ওয়েব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। ডার্ক ওয়েব নিয়ে জানতে হলে প্রথমে আমাদের ওয়েব নিয়ে জানতে হবে। ওয়েব মূলত তিন প্রকার। Surface ওয়েব, Deep ওয়েব এবং Dark ওয়েব।

Surface ওয়েব হচ্ছে সেই ওয়েব যেখানে যে কেউ বিনা বাধায় প্রবেশ করতে পারে। সাধারণ জনগণ গুগলে কিংবা অন্যান্য ব্রাউজারে সার্চ করে এটি সহজে খুঁজে পেতে পারে। এই ওয়েব সবার জন্য উন্মুক্ত। Deep ওয়েব হচ্ছে সেই ওয়েব যেখানে প্রবেশ করতে হলে পারমিশন এর প্রয়োজন হয়। গুগলে সার্চ দিলে এগুলো খুঁজে পাওয়া যায় না। কারো ডাটা যদি Deep ওয়েবে থাকে এবং সে যদি পারমিশন দেয় অথবা লিংক শেয়ার করে তাহলেই এটিতে প্রবেশ করা যায়। যেমন গুগল ড্রাইভ, ড্রপবক্স, আই ক্লাউড ইত্যাদি Deep ওয়েব এর একটি অংশ।

আমরা আমাদের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ফাইল গুগল ড্রাইভে সংরক্ষণ করে রাখি। আমাদের পারমিশন ছাড়া যে কেউ এ ধরনের ফাইলে প্রবেশ করতে পারে না এবং এটিই Deep ওয়েব। এবার আসি Dark ওয়েবে। ডার্ক ওয়েব হচ্ছে ইন্টারনেটের সেই অংশ যেখানে প্রবেশ করতে হলে একটি স্পেশাল ব্রাউজারের প্রয়োজন। এটি অনেকটা সিকিউর। এখানে বেশিরভাগই ইলিগ্যাল কাজকর্ম হয়ে থাকে। আশাকরি এই তিনটি ওয়েব সম্পর্কে তোমরা বুঝতে পেরেছ।

এবার কথা বলব ডার্ক ওয়েব সম্পর্কে মানুষের কিছু ভুল ধারণা নিয়ে। অনেকের মতে ডার্ক ওয়েব Surface ওয়েবের থেকেও অনেক বড়। আসলে সত্য কথা হচ্ছে Deep ওয়েব Surface ওয়েব থেকে অনেক বড়। এই ওয়েবে মানুষের প্রাইভেট ডাটাগুলো সংরক্ষিত থাকে। Surface ওয়েবকে আমরা দুই নম্বরে রাখতে পারি। অন্যদিকে ডার্ক ওয়েব বড় মনে হলেও এটি আসলে অনেক ছোট।

আবার অনেকে মনে করে ডার্ক ওয়েবে কেবল ইলিগ্যাল কাজকর্ম হয়ে থাকে। এটা কেবল Criminal দের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এটা সত্য নয়। ডার্ক ওয়েবেও বিভিন্ন লিগ্যাল কাজকর্ম হয়ে থাকে। যেমন নিউ ইয়র্ক টাইমস এখানে তাদের বিভিন্ন গোপন কাজ করে থাকে। তারা চায় না এ ধরনের তথ্যগুলো সাধারণ মানুষ জানুক। তারা নিজেদের দেশের নিরাপত্তার জন্য ডার্ক ওয়েবে এই কাজগুলো করে। তোমাদের ডার্ক ওয়েব নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়ে দিই।

তোমরা যারা মনে করছ ডার্ক ওয়েবে যেহেতু প্রবেশ করলে কেউ ট্র্যাক করতে পারবে না এবং এই সুযোগ নিয়ে ডার্ক ওয়েবে খারাপ কাজ করবে তাদের বলব না এবং না। কারণ প্রথমত তুমি চাইলেই ডার্ক ওয়েবে খারাপ কাজ করতে পারবে না। অপরাধমূলক কাজগুলো অপরাধীরা নিজেদের একে অন্যের মধ্যে সংযোগ রেখে করে থাকে। আর তাছাড়া বর্তমান প্রযুক্তি অনেকটা উন্নত হয়েছে। সেই ক্ষেত্রে সিকিউরিটি ফোর্স বিভিন্নভাবে তোমাদের কাছ থেকে ইনফরমেশন নিয়ে ট্র্যাক করে ধরে ফেলবে।

তাই আমার পরামর্শ থাকবে কেউ ভুলেও এটিতে খারাপ কাজ করার চেষ্টা করো না। শেষ যে ভুল ধারণা রয়েছে তা হলো ডার্ক ওয়েবে কেবল টর ব্রাউজার দিয়ে প্রবেশ করা যায়। এটা ভুল। Freenet, I2P দিয়েও ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করা যায়। আশা করছি ওয়েব এবং এর প্রকারভেদ নিয়ে তোমরা বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পেরেছে।

তো বন্ধুরা দেখা হবে পরবর্তী অন্য কোনো টিউনে। সে পর্যন্ত সকলের কল্যাণ কামনা করে আজকের টিউন এখানেই শেষ করছি। সকলে সুস্থ থেকো।

Level 1

আমি মো সাকিবুল হোসেন মজুমদার। SSC Candidate, Moulvibazar Govt. High School, Moulvibazar। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 8 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

প্রতিটি কাজ যদি কঠোর শ্রম ও অধ্যাবসায় এর সাথে করা হয় তবে সফলতা ধরা দিতে বাধ্য।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস