Gmail এর ১৩ টি সেরা বিকল্প, যেগুলো আপনার গোপনীয়তা রক্ষা করে

Level 15
কন্টেন্ট রাইটার, টেল টেক আইটি, গাইবান্ধা

ইন্টারনেট ব্যবহার করেন অথচ জিমেইল ব্যবহার করে কোন জায়গায় ফাইল ট্রান্সফার করেনি, এমন কাউকে হয়তোবা খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাদের মধ্যে প্রায় সকলেই মোটামুটি কম বেশি জিমেইল ব্যবহার করে থাকি। জিমেইল সার্ভিস ব্যবহার করার মাধ্যমে আমারা এক ব্যক্তির কাছ থেকে অন্য ব্যক্তির কাছে যেকোনো ফাইল ট্রান্সফার করতে পারি। জিমেইল আমাদেরকে বিনামূল্যে সার্ভিস দেওয়ার কারণে এটি অবিশ্বাস্য ভাবে জনপ্রিয় এবং কিছু কিছু কারণে এটি একটি দুর্দান্ত ইমেইল সার্ভিস।

আমাদেরকে এটি মনে রাখতে হবে যে, কোন প্রতিষ্ঠান আমাদেরকে সম্পূর্ণভাবে ফ্রিতে কোন কিছু অফার করবে না। আর সেখানে সেটি যদি হয় কোন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, তাহলে তো তাদের লাভ থাকা আবশ্যক। অন্যান্য সকল ফ্রি সার্ভিস এর মতো, গুগল ও আপনাকে পণ্য হিসেবে ব্যবহার করে। সহজ কথা বলতে গেলে, গুগল আপনার তথ্য ব্যবহার করে অর্থ উপার্জন করে এবং এই তথ্যগুলো তারা অন্যান্য কোম্পানির কাছে অনেক বৃহৎ পরিসরে বিক্রি করছে। গুগল আপনার তথ্যগুলো মূলত তাদের বিজ্ঞাপণ দেখানোর কাজে ব্যবহার করে।

যাইহোক, এসবের ফলে আমরা দেখছি যে, Gmail আমাদের সম্পূর্ণ প্রাইভেসি দিতে পারছে না। তাদের Service ব্যবহার করে আমাদের প্রেরণ করা প্রত্যেকটি ইমেইল Google bot পড়ে এবং আপনি কে এবং কী করেন, সেটি সম্পর্কে একটি ডিটেলস পূর্ণ প্রোফাইল তৈরি করতে এটি ব্যবহার করা হয়। গুগল তাদের প্রত্যেকটি সার্ভিসে এরকম ডাটা সংগ্রহের পদ্ধতি যুক্ত করে রেখেছে। কোন একজন ব্যবহারকারী তাদের সার্ভিস ব্যবহার করলে, সেখান থেকে তারা ডেটা সংগ্রহ করে এবং সেগুলো Third party প্রতিষ্ঠানের কাছে বিজ্ঞাপণ দেওয়ার জন্য বিক্রি করে।

তবে, আপনার ঘাবড়ে যাওয়ার কিছু নেই। বর্তমানে জিমেইলের ও অনেক বিকল্প সার্ভিস রয়েছে, যেগুলো ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে। এসব Gmail alternative সার্ভিসগুলো আপনাকে জিমেইলের মতোই ফাংশনালিটি এবং আপনার ডেটার জন্য আরো শক্তিশালী সুরক্ষা অফার করে।

আপনি যদি বর্তমানে জিমেইল এর অলটারনেটিভ কোন একটি বিকল্পে স্যুইচ করতে চান, তাহলে আপনার স্মার্টফোন থেকে জিমেইল কে সরিয়ে দিতে পারেন।

আপনার কেন জিমেইল ব্যবহার বন্ধ করতে হবে?

কেন জিমেইল ব্যবহার বন্ধ করতে হবে?

জিমেইল ই একমাত্র ফ্রি Email service নয়, যা তাদের বিজ্ঞাপণদাতাদের এবং সরকারকে আপনার ডেটার অ্যাক্সেস দেয়। বরং, এমন অনেক ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার তাদের ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে ব্যবহারকারীদের ডাটা ব্যবহার করে, তবে এগুলোর মধ্যে জিমেইলও রয়েছে।

ইমেইল সার্ভিসগুলো তাদের ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তার বিষয়টি অনেক সময় লঙ্ঘন করে; আর এমন অনেক উদাহরণ রয়েছে। যাইহোক, নিচের কয়েকটি কারণের জন্য আপনি জিমেইল ব্যবহার বন্ধ করতে পারেন।

  • বিজ্ঞাপনদাতাদের আরো টার্গেট করে বিজ্ঞাপণের জন্য, জিমেইল Third party প্রতিষ্ঠানকে কে তাদের ব্যবহারকারীর ইমেইলে সম্পূর্ণ অ্যাক্সেস দেওয়ার জন্য ধরা পড়েছে।
  • প্রকৃতপক্ষে যেকোন বিজ্ঞাপণ দাতারা পণ্যগুলোকে সঠিক কাস্টমারের কাছে বিক্রির জন্য তাদের অর্থ প্রদান করে এবং তারা Yahoo এবং AOL অ্যাকাউন্ট গুলোকে স্ক্যান করতে পারে। যাইহোক, তারা প্রাসঙ্গিক ক্রয় সংকেত এবং অতীতের কেনাকাটা গুলো বেছে নেওয়ার মাধ্যমে তাদের সম্ভাব্য গ্রাহকদের চিহ্নিত করতে এরকম পদ্ধতি ব্যবহার করে।
  • অনেক সময় বিভিন্ন দেশের সরকার নজরদারির উদ্দেশ্যে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা গুলোর মাধ্যমে তাদের সার্ভারগুলোতে Live communication এবং সেভ করা ইনফরমেশন গুলোর উপর গভীরভাবে নজরদারি করে। আইন অনুযায়ী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নজরদারির সংস্থাগুলো কোন ব্যবহারকারীর ডেটা অ্যাক্সেস করতে পারে।
  • এটা আশ্চর্যের কিছু নয় যে, ২০১৬ সালে Yahoo মার্কিন নজরদারী সংস্থার জন্য Real time email scan করার জন্য ধরা পড়েছিল।

আপনি যদি আপনার গোপনীয়তার বিষয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে থাকেন; তাহলে আমি বলব যে, এই বিষয়ে আপনি শুধু একাই নন। বিগত কয়েক বছর ধরে প্রচুর লোক Alternative email provider বেছে নিয়েছে। আর এটির প্রতিক্রিয়া হিসেবে, গুগল তাদের সার্ভিস সম্পর্কে ব্যবহারকারীদের জোর দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করছে।

যদিও জিমেইলকে আগের তুলনায় আরো সুরক্ষিত করা হয়েছে, তবে গুগল এখনো আপনার ইমেইল গুলো পড়ছে। আর এসব কারণেই আপনি হয়তোবা এটি আর ব্যবহার করবেন না। তাই আপনি যদি এখন এমন একটি ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার খোঁজেন, যা আপনার প্রাইভেসিকে যথেষ্ট গুরুত্ব দেয়, তাহলে আজকের এই টিউনটি সম্পূর্ণ করতে থাকুন।

জিমেইলের সেরা বিকল্প

জিমেইলের সেরা বিকল্প

আমাদের নিজেদের জন্য একটি বিকল্প ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার নির্বাচন করার জন্য প্রচুর কারণ রয়েছে। এসব কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম হতে পারে যে, আমাদের বর্তমানের ব্যবহৃত ইমেইল সার্ভিসটি আমাদেরকে সন্তুষ্ট করতে পারছে না কিংবা সেটিতে আমাদের প্রয়োজনীয় চাহিদার তুলনায় ফিচার নেই। যাইহোক, কিছু ইমেইল সার্ভিস সিকিউরিটি, প্রাইভেসি এবং এনক্রিপশনের মত সুবিধাগুলোকে অগ্রাধিকার দেয়। যেখানে অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডারদের লক্ষ্য হলো সর্বোচ্চ পরিমাণে প্রাইভেসি রক্ষা করা, যা Gmail এর চাইতে ভালো।

তাই আপনার প্রয়োজনের উপর নির্ভর করে আপনার জন্য সঠিক Email Service Provider বাছাই করতে হবে। আপনি যদি আপনার ইমেইল গুলো প্রাইভেট মেসেজ আকারে পাঠানোর জন্য কোন দ্বিতীয় ইমেইল চান, তাহলে আপনাকে সিকিউরিটির উপর ফোকাস করতে হবে। আর আপনি যদি গুগলকে সম্পূর্ণভাবে ত্যাগ করেন, তাহলে আপনি গুগল এর বদলে এমন একটি সার্ভিস খুঁজে পেতে পারেন, যেটি আপনাকে গুগলের সার্ভিস থেকেও ভালো ফিচার অফার করবে।

এছাড়াও একটি সিকিউর ইমেইল প্রোভাইডার খুঁজে নেওয়ার পেছনে আরো কয়েকটি অতিরিক্ত কারণ রয়েছে:

  • আইনগত কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং চীনের ইমেইল প্রোভাইডারদেরকে বিশেষ করে তাদের সরকারের কাছে আপনার ডেটা শেয়ার করতে হবে, যেসব ব্যক্তি ইউরোপে থাকে না।
  • কিছু সিকিউর ইমেইল সার্ভিস আপনাকে PGP encryption ব্যবহার করতে দেবে এবং কিছু কিছু প্রোভাইডার এটি ব্যবহার করে না।
  • কিছু কিছু ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার আপনাকে পূর্বের ব্যবহার করা ইমেইল একাউন্টে থাকা বিদ্যমান ইমেইল গুলো Import করতে দিবে। যার ফলে, আপনি খুব সহজেই একটি ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার থেকে অন্য একটি ইমেইল সার্ভিস ব্যবহার করতে পারবেন।
  • নিরাপদ Email প্রোভাইডাররা Different level-এর Encryption অফার করে। এসব সার্ভিস গুলো ব্যবহার করে আপনি যখন কোন একটি ইমেইল প্রেরণ করেন, তখন আপনার ইমেইল গুলো এনক্রিপ্ট অবস্থায় সেন্ড হয়। আবার কোন কোন প্রোভাইডার তাদের সার্ভারে থাকাকালীন সময়েও সেগুলোকে এনক্রিপ্ট করে।
  • আবার আপনাকে সেই ইমেইল সার্ভিস ব্যবহার করার সহজতার দিকেও লক্ষ্য করতে হবে। বেশিরভাগ সিকিউর ইমেইল সার্ভিসগুলো ব্যবহার করা বিরক্তির কারণ হতে পারে, কারণ তারা App এবং Third party email clients গুলোকে সিকিউরিটি রিস্ক হিসেবে বিবেচনা করে। তবে, আপনি যদি স্প্যামিং এর মত বিষয়গুলো থেকে বাঁচতে চান, তাহলে এই বিষয়টিতে আপনার সমস্যা হবে বলে মনে হয় না।
  • সবশেষে, আপনাকে সেই ইমেইল প্রোভাইডারের প্রাইভেসি পলিসির দিকে নজর দিতে হবে। যেকোনো অনলাইন সার্ভিস দেওয়ার প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবহারকারীদের কিছু ডাটা জমা করে রাখে। কিন্তু, আপনাকে জানতে হবে, তারা কি ডেটা সংগ্রহ করছে এবং কতক্ষণের জন্য তা সংগ্রহ করা হবে। ব্যবহারকারী সম্পর্কে ডেটা সংগ্রহের বিষয়টি Email provider ভেদে ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে।

এখানে আমি ১৩ টি সেরা অল্টারনেটিভ ইমেইল প্রোভাইডারের বিষয়ে আলোচনা করব, যাতে করে আপনি কোন একটি ব্যবহারের প্রতি মনস্থির করতে পারেন।

১. Hushmail

Hushmail - Gmail এর বিকল্প

১৯৯৯ সাল থেকে Hushmail হল সিকিউর ইমেইল প্রোভাইডার এর মধ্যে অন্যতম একটি ইমেইল। এটি বর্তমানে ও একটি দুর্দান্ত Secure email service। কিন্তু, এটিতে বর্তমানের নতুন প্রতিযোগী ইমেইল প্রোভাইডারের মতো কিছু অ্যাডভান্স ফিচার নেই।

আপনি যদি google এর email বাদ দিয়ে নতুন কোন সেকেন্ডারি ইমেইল খুঁজে থাকেন, তাহলে Hushmail আপনার জন্য একটি দুর্দান্ত পছন্দ হতে পারে। এই সার্ভিসটি বিনামূল্যের, তবে অনেক ফ্রি ইমেইল প্রোভাইডারের বিপরীতে এই ই-মেইলের ইনবক্সে কোন ধরনের বিজ্ঞাপণ নেই। তাই এটি একটি বিনামূল্যের ইমেইল সার্ভিসগুলোর মধ্য থেকে বিরল একটি ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার।

নিরাপত্তার দিক থেকেও হুসমেইল বেশ ভালো পারফর্ম করে। এটি অটোমেটিক্যালি সমস্ত Incoming mail গুলোকে ভাইরাস এবং স্প্যাম এর জন্য স্ক্যান করে। Hushmail এছাড়াও POP3 Access অফার করে, আপনি আপনার Mail অ্যাক্সেস করতে Third party ক্লায়েন্ট ব্যবহার করতে পারেন। হুসমেইল এর জন্য কোন ডেডিকেটেড অ্যাপ নেই, তবে আপনি আপনার আপনার Mail গুলো আনতে অ্যান্ড্রয়েড বা আইওএস অ্যাপ কনফিগার করতে পারেন।

অন্যদিকে, Hushmail অ্যাপ্লিকেশনটিতে কিছু ফিচারের অভাব রয়েছে, যার কারণে আপনার কাছে এটি Primary email provider হিসেবে পছন্দ নাও হতে পারে। এটি শুধুমাত্র সাধারণ Plain text message হ্যান্ডেল করতে পারে।

সার্বিভাবে বলতে গেলে, আপনি যদি অতিরিক্ত নিরাপত্তা সহ একটি Free secondary email খুঁজে থাকেন, তাহলে Hushmail হলো আপনার জন্য একটি ভালো সমাধান। তবে আপনি যদি আরো অনেক ফিচার সমৃদ্ধ এবং Secure email provider চান, তাহলে আপনাকে নিচের কিছু Paid email এর দিকে যেতে হবে।

Hushmail

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Hushmail

২. SCRYPTmail

SCRYPTmail Gmail alternative

SCRYPTmail হলো আরো একটি Simple এবং সরল একটি ইমেইল সার্ভিস; যেটির লক্ষ্য হলো, নিরাপদ ইমেইল ব্যবহার করার একটি সহজ উপায় প্রদান করা।

এই তালিকার অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার গুলোর তুলনায় SCRYPTmail এর বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। এই ইমেইল সার্ভিসটির ইউজার ইন্টারফেস অনেক ক্লিন এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি; যা ব্যবহারকারীকে অনেক ভালো অভিজ্ঞতা দিতে পারে।

নিরাপত্তারপরিপ্রেক্ষিতে, SCRYPTmail ট্রানজিটে ইমেইলগুলোকে সুরক্ষিত করতে এবং সার্ভারে থাকা এই মেইলগুলোকে এনক্রিপ্ট করতে End-to-end Encryption ব্যবহার করে। SCRYPTmail কখনো Third party script ব্যবহার না করার প্রতিশ্রুতি দেয়, কারণ এই স্ক্রিপ্ট গুলো আপনার ইমেইল, আপনার লোকেশন এবং অন্যান্য তথ্য সম্পর্কে আপনার ডেটা ফাঁস করতে পারে। এটি AES -256 এনক্রিপশন ও ব্যবহার করে, যেটি মূলত আপনার ডেটা গুলোকে Uncrackable করে তোলে এবং Plain text এবং HTML message উভয়কেই সাপোর্ট করে।

অন্যদিকে, SCRYPTmail সম্পর্কে কিছু উদ্বেগ ও রয়েছে। এই তালিকার অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডারের থেকে SCRYPTmail একটু ভিন্ন, এটি তাদের সার্ভিসের বিস্তারিত প্রযুক্তিগত কোন তথ্য ব্যবহারকারীদের প্রদান করে না। যে বিষয়টি এই সার্ভিসকে অনিরাপদ করে না; এমনকি এই প্লাটফর্মের জন্য সোর্স কোড ও Available রয়েছে। তবে, আপনার যদি প্রযুক্তিগত জ্ঞান না থাকে, তাহলে আপনি অনেক কিছুই বুঝতে পারবেন না।

সামগ্রিকভাবে, SCRYPTmail ইমেইল সার্ভিসটি Hushmail এর মতই। উভয় সার্ভিসটি আপনাকে বিনামূল্যে একটি Secure email সার্ভিস দিবে। আপনি যদি কোন সেকেন্ডারি ইমেইল সার্ভিস খুঁজে থাকেন, তাহলে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারেন।

SCRYPTmail

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ SCRYPTmail

৩. Disroot

Disroot - জিমেইলের একটি বিকল্প ইমেইল সার্ভিস

Disroot হলো একটি স্বেচ্ছাসেবক দ্বারা রান হওয়া সার্ভিস, যেটি গুগলের অনেক ফিচারের সাথে মিল রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। যদিও এটি আপনার জন্য প্রাথমিকভাবে একটি নিরাপদ ইমেইল সার্ভিস হিসেবে কাজ করবে। তবে এর পাশাপাশি এটি আপনাকে একটি এনক্রিপ্ট করা Online document editor এবং Secure cloud storage ও ব্যবহার করতে দেয়। আপনি যদি আপনার সমস্ত অনলাইন ফিউচারগুলোকে গুগল এর কাছ থেকে ট্রান্সফার করে অন্য কোন সার্ভিসে নিয়ে যেতে চান, তবে এটি আপনার জন্য একটি ভালো পছন্দ হবে।

Disroot আপনাকে সিকিউর ইমেইল সার্ভিস দেওয়ার পাশাপাশি আরও অনেক ফিচার অফার করে থাকে। তারা, আপনাকে আপনার ইনবক্সের জন্য একটি নিরাপদ ও একটি সুন্দর অনলাইন ইন্টারফেস প্রদান করে। এটি GPG এনক্রিপশনকে ও সাপোর্ট করে, তাই আপনি চাইলে আরো ভিন্ন Level এর সিকিউরিটি যোগ করতে পারেন। Disroot এছাড়াও IMAP সাপোর্ট করে, তাই আপনি যেকোন ডেস্কটপ অথবা মোবাইল ক্লাইন্ট থেকে এই ইনবক্স অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

অনেক সুবিধার পরেও ডিসরুটের কিছু অসুবিধার দিক ও রয়েছে। এটি Server side encryption ব্যবহার করে, তাই Private key এর উপর আপনার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেই। তবে, আপনি জিমেইল ব্যবহার করার ক্ষেত্রে যেরকম নিরাপত্তা পেতেন, এটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আপনি তার চাইতে বেশি নিরাপত্তা পাবেন। Disroot ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আরো একটি অসুবিধা হল যে, এটি আপনাকে শুধুমাত্র ২ জিবি স্টোরেজ দিবে। এক্ষেত্রে আপনি যদি অনেক বেশি ইমেইল আদান প্রদান করেন, তাহলে এটি আপনার জন্য অসুবিধার কারণ হতে পারে।

কিন্তু তবুও ডিসরুট তাদের ইমেইল, সিকিউর ক্লাউড স্টোরেজ এবং Encrypted document editing এর জন্য সর্বোত্তম একটি সার্ভিস হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনি যদি সত্যিই Google থেকে অন্য কোন সার্ভিসে স্থানান্তর হতে চান, তাহলে এটি হলো আপনার জন্য আরও একটি নতুন পথ।

Disroot

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Disroot

৪. Runbox

runbox email service প্রোভাইডার

Runbox হলো নরওয়ে ভিত্তিক একটি Secure email প্রোভাইডার, যেটি আপনার প্রাইভেসির উপর যথেষ্ট গুরুত্ব দেয়। নরওয়েতে বিশ্বের সবচাইতে শক্তিশালী Privacy rights রয়েছে এবং নিরাপত্তার বিষয়টি তাদের সাংবিধানিক একটি আইন। তাই এখানে কোন অধিকার নেই যে, আপনার তথ্য তারা সরকারের হাতে তুলে দিবে কিংবা সরকার আপনার তথ্য বিশ্লেষণ করবে।

আপনি যদি কোন একটি ভালো ইমেইল প্রোভাইডার অনুসন্ধান করে থাকেন, তাহলে এটি আপনার জন্য একটি ভালো সমাধান হবে। কারণ তারা তাদের সমস্ত সার্ভারগুলো Clean এবং Renewable hydro power plants দ্বারা চালায়।

তাদের ইমেইল সার্ভিসে অনেক ফিচার রয়েছে এবং এটি User friendly। এই ইমেইল সার্ভিসে এমন কিছু ফিচার রয়েছে, যা আপনাকে Gmail থেকে ট্রান্সফার হতে সাহায্য করবে। Runbox ব্যবহার করে আপনি জিমেইল থেকে আপনার ইমেইল গুলো এখানে Import করার মত সুবিধা পাবেন। এই সার্ভিসটি IMAP, POP, SMTP, FTP এবং DAV সার্ভিসগুলোকে সাপোর্ট করে, যাতে করে আপনি Third party ইমেইল ক্লায়েন্ট ব্যবহার করে যেকোন ডিভাইস থেকে আপনার ইনবক্স অ্যাক্সেস করতে পারেন।

নিরাপত্তারপরিপ্রেক্ষিতে, Runbox শক্তিশালী এনক্রিপশন এবং এডভান্স ভাইরাস স্ক্যানিং ব্যবহার করে; যা এই ইমেইল প্রোভাইডার কে আরো অনেক বেশি নিরাপদ করে তোলে। সর্বোপরি, এই ইমেইল সার্ভিসটি আপনার সমস্ত ইমেইল নরওয়েতে একটি সুরক্ষিত ডাটা সেন্টারে জমা করে রাখে। আর এসব সমস্ত ব্যবহারকারীদের ডেটা গুলো Runbox এর মালিকানাধীন সার্ভারগুলোতে সংরক্ষণ করা হয়, আর তাই আপনাকে ডেটার Third party access সম্পর্কে চিন্তা করতে হবে না।

এখানে আপনাকে বলে রাখি যে, Runbox ইমেইল সার্ভিসটি কিন্তু ফ্রি নয়, তবে এই ধরনের সুরক্ষিত ইমেইল সার্ভিসটি ব্যয়বহুল ও নয়। এমনকি আপনি Cryptocurrency বা Anonymous cash এর মাধ্যমে ও তাদের সার্ভিসের পেমেন্ট করতে পারবেন। যেটি আপনার নিরাপত্তার জন্য আরো একটি নতুন স্তর যুক্ত করেছে।

Runbox

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Runbox

৫. Mailfence

Mailfence - জিমেইলের একটি বিকল্প ইমেইল সার্ভিস

Mailfence হল জিমেইলের আরো একটি বিকল্প ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার, যারা আপনাকে গুগলের জিমেইল এর মতই সার্ভিস প্রদান করবে। এই কোম্পানিতে ১৯৯৯ সালে বেলজিয়ামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং এটি আপনার ইমেইল সুরক্ষিত করার জন্য একটি অন্যতম প্রাইভেসি টুল।

বেলজিয়ামের আইন অত্যন্ত শক্তিশালী, তাই আপনার গোপনীয়তা রক্ষা করার ক্ষেত্রে Mailfence সর্বোচ্চ কাজ করবে। তবে, আপনি এই ইমেইল সার্ভিসকে অনেক নিরাপদ ইমেইল প্রোভাইডার ও বলতে পারেন না।

Mailfence কে একটি নিরাপদ ইমেইল সার্ভিস হিসেবে আলাদা করে তোলার অন্যতম কারণ হলো, তাদের পরিষেবাটি সম্পূর্ণ ব্রাউজার ভিত্তিক। এই বিষয়টি সবার কাছে পছন্দের নাও হতে পারে, কিন্তু ব্যবহারের সহজতার দিক থেকে এটি আসলে একটি দুর্দান্ত সুবিধা। এটি সম্পূর্ণভাবে ব্রাউজারের মাধ্যমেই ব্যবহার করা যায়, তাই এই ইমেইল সার্ভিস ব্যবহার করার জন্য আপনাকে আলাদা করে কোন অ্যাপ্লিকেশন কিংবা প্লাগিন ডাউনলোড করতে হবে না। এটি আপনাকে আপনার ব্রাউজার এর মাধ্যমেই সম্পূর্ণ সুরক্ষিত একটি ইমেইল সার্ভিস দিতে পারে, যে বিষয়টি আপনার কাছে অনেক ভালো লাগতে পারে।

এটির এনক্রিপশন আপনার ব্যবহৃত ব্রাউজারের মাধ্যমেই সঞ্চালিত হয়, কিন্তু এর মানে এই নয় যে ডেডিকেটেড ক্লায়েন্টের থেকে Mailfence কম নিরাপদ। মজার ব্যাপার হলো, Mailfence ব্রাউজার ইন্টারফেসটি একটি ভিপিএন হিসাবে ও কাজ করে, যার ফলে এটি পরিচয় গোপন করে।

Mailfence এছাড়াও OpenPGP key সাপোর্ট করে, যেটি আপনাকে আপনার নিজের Private key তৈরি এবং Share করতে দেয়। এই ইমেইল সার্ভিসটি আপনাকে সার্ভার সাইড সুরক্ষার তুলনায়, আপনার এনক্রিপশন এর উপর একটি বৃহত্তর স্তরের কন্ট্রোল দেয়।

যদিও, Mailfence একটি Paid service, তবে এটির ব্যবহার ব্যয়বহুল নয়। আপনি ২.৫০ ইউরো দিয়ে প্রতি মাসের সাবস্ক্রিপশন নিতে পারবেন। আপনি যদি নিরাপদ ইমেইলের জন্য একটি সমাধান খুঁজে থাকেন, তাহলে এটি আপনার জন্য একটি দুর্দান্ত পছন্দ হবে।

Mailfence

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Mailfence

৬. ProtonMail

প্রোটনমেইল - জিমেইলের একটি সেরা বিকল্প

বেশিরভাগ লোকের কাছে যদি কোন একটি সুরক্ষিত ইমেইল সার্ভিসের কথা বলা হয়, তাহলে তারা ProtonMail এর কথা ভাববে। এই সার্ভিসটি আপনাকে Highest-profile encrypted email service প্রদান করবে, যা অন্যান্যদের তুলনায় এটিকে অনন্য করে তুলেছে। সুইডেন ভিত্তিক এই সার্ভিসটি মূলত Snowden ফাঁসের পরিপ্রেক্ষিতে সেটআপ করা হয়েছিল। এটি সেই সময়ে একমাত্র ইমেইল সার্ভিস ছিল, "যেটিকে ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সি ও অ্যাক্সেস করতে পারত না" বলে তারা প্রচার করত।

কিন্তু সম্প্রতি, তাদের এই দাবিটি প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে, কারণ ProtonMail একটি US ভিত্তিক কোম্পানির কাছ থেকে একটি বড় অংকের বিনিয়োগ গ্রহণ করেছে। তবে এবার আপনার প্রশ্ন হতে পারে যে, তর্ক বিতর্ক থাকলেও সেবাটি ঠিক কতটা নিরাপদ? এই মুহূর্তে বেশিরভাগ লোক মনে করে যে, ProtonMail ব্যবহারকারীদের গোপনীয়তার বিষয়ে আরো একটি ভালো স্তর যুক্ত করে।

যেহেতু প্রোটনমেইল প্রাইভেসির কথা মাথায় রেখে ডিজাইন করা হয়েছিল, তাই এখানে ব্যবহারকারীর সুরক্ষার জন্য প্রায় সমস্ত ধরনের ব্যবস্থাই রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, এখানে সমস্ত email গুলো End-to-end Encryption ব্যবহার করে সুরক্ষিত থাকে এবং বাকি সময়ে ও এনক্রিপ্ট থাকে। এছাড়াও, ProtonMail এ রয়েছে একটি ইউনিক ফিচার। প্রোটন মেইলে Self-destructing message এমন একটি ফিচার, যা একটি নির্দিষ্ট সময়ের পরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মেসেজগুলো ডিলিট করে দেয়। অন্যদিকে আপনাকে এটি বলে রাখি যে, এটি ব্যবহার করে প্রেরণ করা ইমেইলের Subject line কে Encrypt করে না, তাই এটি অন্যান্য প্রোভাইডারের মতো আপনাকে সমান এবং সম্পূর্ণ সিকিউরিটি প্রদান করে না।

সাধারণভাবে যদিও প্রোটনমেইল জিমেইলের একটি সেরা বিকল্প গুলোর মধ্য থেকে অন্যতম। এই প্লাটফর্মটি বর্তমানে প্রতিষ্ঠিত এবং এটি অভিজ্ঞ ব্যবহারকারীদের কে একটি দুর্দান্ত সাপোর্ট দিতে পারে। এই ইমেইল সার্ভিসকে আধুনিক ইমেইল সার্ভিসের মতো ও মনে হয়, তাই আপনি চাইলেই জিমেইল কে বাদ দিয়ে এই Alternative gmail service টি ব্যবহার করতে পারেন।

ProtonMail

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ ProtonMail

৭. Tutanota

Tutanota email - best Gmail Alternative

বর্তমান সময়ের সবচাইতে সিকিউর ইমেইল প্রোভাইডার এর মধ্য থেকে Tutanota অন্যতম। কিন্তু, এদের অতিরিক্ত নিরাপত্তার বিষয়টি কিছুটা অপূর্ণতা নিয়ে আসে। আর আপনি যদি আপনার নিরাপত্তার কথা বেশি ভেবে থাকেন, তাহলে এটি আপনার জন্য একটি সেরা পছন্দ হতে পারে।

এই ইমেইল সার্ভিস টি জার্মান ভিত্তিক, যেটির Strong data privacy আইন রয়েছে। আর এই প্লাটফর্মটি সত্যিকার অর্থেই একটি নিরাপদ যোগাযোগের প্ল্যাটফর্ম প্রদানের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এনক্রিপশনের পরিপ্রেক্ষিতে, Tutanota তাদের নিজস্ব Encryption stranded তৈরি করেছে, যা AES এবং RSA উভয়ই ব্যবহার করে।

এই stranded টি অটোমেটিক্যালি ইমেইলের সাবজেক্ট লাইনের পাশাপাশি ইমেইলের কনটেন্টকে ও এনক্রিপ্ট করে, যেটি অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডাররা অফার করে না। এছাড়াও এটি Forward secrecy ও সমর্থন করে। এমনকি আপনি বিশ্বাস করুন কিংবা নাই করুন, এটিকে কোয়ান্টাম কম্পিউটিং আক্রমণ থেকে রক্ষা করার জন্য ও আপডেট করা যেতে পারে।

Tutanota এর মধ্যে ইমেইল গুলো নির্বিঘ্নে এনক্রিপ্ট করা হয়, এতে কোন Key exchange এর ও প্রয়োজন নেই। তবে আপনি বিভিন্ন ইমেইল সার্ভিস ব্যবহারকারীদের Encrypt করা ইমেইল পাঠাতে এই সার্ভিসটি ব্যবহার করতে পারেন।

এইসব ফিচারগুলো Tutanota email কে অত্যন্ত সিকিউর সার্ভিস করে তোলে। তবে এটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা ও রয়েছে। আপনি এই ইমেইল সার্ভিস টি ব্যবহার করে অন্যান্য প্ল্যাটফর্ম থেকে আপনার পূর্বের ইমেইলগুলো এখানে ইমপোর্ট করতে পারবেন না; তবে যদি কখনো তারা এই ফিচার নিয়ে আসে, তাহলে এটি সম্ভব হবে। আর অন্য সমস্যা গুলো হল টুটানোটা PGP, IMAP, POP বা SMTP সাপোর্ট করে না। আর যে কারণে এটি Third party ইমেইল ক্লায়েন্টগুলো ব্যবহার করা অসম্ভব করে তোলে।

কিন্তু তবুও আপনি যদি এই ফিচারগুলো বাদ দিয়ে নিরাপত্তার কথা অধিক বিবেচনা করেন, তাহলে আপনি এই ইমেইল সার্ভিসটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

Tutanota

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Tutanota

৮. Posteo

Posteo - একটি নিরাপদ ইমেইল সার্ভিস

Posteo হলো জার্মান ভিত্তিক আরো একটি নিরাপদ ইমেইল সার্ভিস, যেখানে রয়েছে আরও শক্তিশালী ডেটা প্রাইভেসি আইন। এই ইমেইল সার্ভিসটি উপরে আলোচনা করা Tutanota এর মতই। তবে এটি আপনাকে কিছু অতিরিক্ত ফিচার এবং Higher level এর সিকিউরিটি নিশ্চিত করে।

টিউনিও ইমেইল সার্ভিসটি তাদের ব্যবহারকারীদের উচ্চ মানের প্রাইভেসি অফার করার জন্য তাদের ব্যবসায়িক মডেলকে সাজিয়েছে। এই কোম্পানিটি বাহিরে থেকে কোন ধরনের লোন বা ইনভেস্টমেন্ট গ্রহণ করে না। তারা Anonymous registration এবং Anonymous payment সাপোর্ট করে থাকে। তাই আপনি যদি এই ইমেইল সার্ভিসটি ব্যবহার করেন, তাহলে এটির ডেভেলপমেন্ট টিম ও জানবে না যে, আপনি আসলে কে।

নিরাপত্তার জন্য Posteo ব্যবহারকারীদের শক্তিশালী এনক্রিপশন সুবিধা অফার করে থাকে। এছাড়াও এটি IMAP সাপোর্ট করে, যাতে করে আপনি কোন থার্ড পার্টি ক্লায়েন্ট ব্যবহার করতে পারেন। Posteo এর সিকিউরিটির বিষয়টি অন্যান্যদের থেকে আলাদা হওয়ার অন্যতম কারণ হলো, এটি ব্যবহারকারীর সমস্ত মেসেজ বা ডাটা Encrypt করার পাশাপাশি, ব্যবহারকারীর আইপি অ্যাড্রেস সহ কোন লগ রাখে না। এই ইমেইল সার্ভিসটি ব্যবহার করে প্রেরণ করা প্রত্যেকটি ইমেইলের Subject line, Header, Body, Meta data এবং এমনকি ইমেইলের ভেতরের প্রত্যেকটি Attachment আলাদা আলাদা ভাবে Encrypt করা থাকে।

Posteo তাদের সমস্ত কোড প্রকাশের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের মধ্যে আরও আস্থা অর্জনের চেষ্টা করছে। যেটি ব্যবহারকারীদেরকে তাদের সার্ভিস সম্পর্কে দুর্বলতা খুঁজে বের করার অনুমতি দিয়ে রেখেছে, তবে এখনো পর্যন্ত কোনো দুর্বলতা খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তবে, Posteo এর একমাত্র সামান্য ত্রুটি হল, এটিতে কোন স্প্যাম ফোল্ডার নেই, তাই ইনবক্সে কোন মেসেজ ওপেন করা কিংবা সেই মেসেজের লিঙ্কে ক্লিক করার বিষয়ে আপনাকে সতর্ক হতে হবে। কিন্তু অন্যান্য কারণে, এটি জিমেইলের Alternative হিসেবে আপনাকে অত্যন্ত সুরক্ষিত ইমেইল সার্ভিস প্রদান করবে।

Posteo

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Posteo

৯. Kolab Now

Kolab Now - জিমেইল এর বিকল্প ইমেইল

অন্যান্য পরিষেবার মত Kolab Now আপনাকে অনেক বৃহৎ পরিসরে বিভিন্ন সার্ভিস অফার করে, যে কারণে এটিকে Google এর নিকটতম প্রতিযোগী করে তোলে। একটি Standard subscription এ Secure email, Calendar, Contacts, Scheduling, Collaboration tool এবং Cloud storage অন্তর্ভুক্ত থাকে।

এই ইমেইল সার্ভিসটি অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডারের মত POP, SMTP এবং IMAP কেও সাপোর্ট করে, যাতে করে আপনি থার্ড পার্টি ইমেইল ক্লায়েন্টগুলোর সাথে ও এটি ব্যবহার করতে পারেন। এমনকি এটি বিজনেস ইউজারদের জন্য Custom domain, Team support এবং Dedicated resource অফার করে।

তবে এই সার্ভিসটির কিছু অসুবিধা রয়েছে, যেমন Kolab Now এর অন্যান্য কিছু প্রোভাইডারের মত একই লেভেলের সিকিউরিটি নেই। ইমেইলগুলো যখন ট্রানজিটে থাকে, তখন সেগুলো এনক্রিপ্ট করা হয়; আর সেগুলো সার্ভারে সংরক্ষণ করার সময় Encrypt করা হয় না। এছাড়াও, স্ট্যান্ডার্ড হিসেবে End-to-end Encryption ও প্রয়োগ করা হয় না। অন্যদিকে, Kolab Now এর সার্ভার সুইজারল্যান্ডে অবস্থিত, তাই আপনাকে আইন সংক্রান্ত সমস্যাগুলো নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। এখানে যেহেতু অত্যন্ত শক্তিশালী ডেটা প্রাইভেসি আইন রয়েছে, তাই আপনি এটাতে ডেটা সুরক্ষার সর্বোচ্চ সুবিধা পাবেন।

উপরের উক্ত সমস্যাটি আপনার কাছে ও সমস্যা কিনা, সেটি আপনার প্রয়োজনের উপর নির্ভর করবে।

ইমেইল ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আপনার যদি সর্বক্ষেত্রে এনক্রিপশন সুবিধার দরকার পড়ে, তাহলে আপনার কাছে এটি পছন্দ নাও হতে পারে। আপনি যদি একটি টিমের জন্য অনেক ফিচার সমৃদ্ধ কোন সার্ভিস খোঁজেন, যেটি আপনার প্রাইভেসি এবং নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বেশ ভালো কাজ করে, তাহলে Kolab Now আপনার জন্য একটি সঠিক পছন্দ হতে পারে। এটি অবশ্যই গুগলের চাইতে আপনাকে বেশি প্রাইভেসি অফার করে থাকে, তবে অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডারদের থেকে বেশি নয়।

আপনি যদি আপনার ব্যবসাকে একটি secure সার্ভিস ব্যবহার করে পরিচালনা করতে চান, তাহলে Kolab Now একটি ভালো সমাধান হবে। আর এখানে Individual user দের জন্য আরো সিকিউর সলিউশন রয়েছে।

Kolab Now

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Kolab Now

১০. CounterMail

CounterMail - A Gmail alternative email service provider

CounterMail আপনার প্রাইভেসি এবং সিকিউরিটিকে অনেক গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করে। এই পরিষেবাটি প্রায় ১০ বছরের ও বেশি সময় ধরে কাজ করছে। আর এই ইমেইল সার্ভিসটির পেছনে থাকা দলটি তাদের লক্ষ্য বর্ণনা করেছে যে, তারা ফ্রি সাপোর্টসহ, ইন্টারনেটের সবচাইতে নিরাপদ অনলাইন ইমেইল সার্ভিস প্রদান করবে।

তারা অবশ্য এই লক্ষ্যটি অর্জন করেছে। তারা 4096 encryption key সহ Open - PGP এনক্রিপশন ব্যবহার করে। এগুলি এই তালিকার দীর্ঘতম Encryption key এবং এটি CounterMail এর এনক্রিপশন কে হ্যাকিং থেকে একেবারে নিরাপদ করে তোলে। এই ইমেইল সার্ভিসটি তাদের ব্যবহারকারীদের কোন লগ রাখে না এবং নিরাপত্তার অতিরিক্ত স্তর হিসেবে তারা Diskless server ব্যবহার করে।

যেসব বিষয়গুলো Encrypt করা সম্ভব, CounterMail সেগুলোর সমস্ত এনক্রিপ্ট করে থাকে। কোন একটি ইমেইল পাঠানোর আগে, এটি মেইল থেকে আইপি অ্যাড্রেস আলাদা করে ফেলে এবং তারপর সেন্ড করে। এমনকি এসব মেইলগুলো যেখানে সংরক্ষিত হয়, সেখানে থাকা সুরক্ষিত সার্ভারগুলোতে ও সেগুলো Encrypt অবস্থায় থাকে। আর নিরাপত্তার Final layer হিসেবে, CounterMail স্ট্যান্ডার্ড SSL প্রটোকলের উপরে RSA এবং AES-CES এনক্রিপশন প্রয়োগ করে থাকে।

যদিও এই সমস্ত নিরাপত্তার কারণে কয়েকটি সমস্যা দেখা যায়। এগুলোর মধ্যে থেকে একটি হল যে, কাউন্টার মেইল অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডারের তুলনায় কিছুটা বেশি ব্যয়বহুল। যদিও তাদের ভাষ্যমতে, এই অতিরিক্ত খরচটি তাদের সুরক্ষিত সার্ভার ব্যবহার করার খরচ হিসেবে ব্যাখ্যা করা হয়। এছাড়াও আরো একটি অতিরিক্ত সমস্যা হলো, এটির ডিজাইন অন্যান্য প্রোভাইডার এর তুলনায় নিম্নমানের।

এই ছোট ছোট সমস্যাগুলো আপনার জন্যও সমস্যা কিনা, সেটি নির্ভর করবে আপনি আপনার সার্ভিস প্রোভাইডার এর কাছ থেকে যেমনটি আশা করছেন তার উপর। কিন্তু আপনি যদি আপনার যোগাযোগের জন্য একেবারে প্রাইভেট কোন ইমেইল সার্ভিস খুঁজে থাকেন, তাহলে CounterMail আপনার জন্য। আর এদিকে আপনি জিমেইলের অল্টারনেটিভ হিসেবে ও ব্যবহার করতে পারেন।

CounterMail

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ CounterMail

১১. Mailbox.org

Mailbox.org হলো আরো একটি Secure email প্রোভাইডার

Mailbox.org হলো আরো একটি Secure email প্রোভাইডার, যেটি উপরে আলোচনা করা ProtonMail এর মতোই। এটি একটি জার্মান ভিত্তিক ইমেইল সার্ভিস। এই ইমেইল সার্ভিস এর পেছনে থাকা টিমটি অভিজ্ঞতার সঙ্গে নিরাপদ যোগাযোগের সমাধানের জন্য কাজ করে যাচ্ছে।

এটি ২০১৪ সালে রিলিজ হয়েছিল এবং এটির লক্ষ্য হলো সব ফিচার সম্মিলিত একটি ইমেইল সার্ভিস উপহার দেওয়া। একটি স্ট্যান্ডার্ড সাবস্ক্রিপশনে, Calendar, Contacts, Groupware, Full PGP management এবং সমস্ত একাউন্টের জন্য Secure cloud storage অফার করে থাকে। আর আজকের এই তালিকার কিছু ইমেইল প্রোভাইডারের তুলনায়, Mailbox.org টিম দ্রুত এবং কার্যকারী সহায়তা দিয়ে থাকে।

Mailbox.org জার্মানি এর দুটি সার্ভারে তাদের ব্যবহারকারীদের ইমেইলগুলো স্টোর এবং সর্বোচ্চ গোপনীয়তা ব্যবহার করে এই সার্ভারগুলোতে সুরক্ষিত রাখে। আর এসব বৈশিষ্ট্যের কারণে এটিকে Gmail এর Alternative হিসেবে দুর্দান্ত করে তোলে।

তবে, Mailbox.org এর একটি সমস্যা হলো, এটি আইপি অ্যাড্রেস সংরক্ষণ করে রাখে। যাইহোক, তারা গোপনীয়তার ব্যাপারে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে থাকে এবং তারা চার দিন পর অটোমেটিক্যালি আইপি অ্যাড্রেস এর ডেটা গুলো ও মুছে দেয়।

সাধারণভাবে, এই ইমেইল সার্ভিসটি ব্যবহার করার মান হলো বিশ্বাস, যেটি ইতিমধ্যেই তারা অর্জন করতে পেরেছে। অন্যান্য নিরাপদ ইমেইল সার্ভিস এর বিপরীতে, Mailbox.org এর টিম তাদের Skill Experience এবং Mission সম্পর্কে অনেক অগ্রগামী। আপনি জিমেইল এর বিকল্প হিসেবে এই ইমেইল সার্ভিসটি ও ব্যবহার করতে পারেন।

Mailbox.org

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Mailbox.org

১২. Startmail

Startmail is a secure email service

Startmail হল Startpage এর একটি সার্ভিস, যেটি মূলত নেদারল্যান্ড ভিত্তিক একটি প্রাইভেট সার্চ ইঞ্জিন। এদেশের আইন অনুযায়ী আপনি বেশ ভালো প্রাইভেসির মত সুবিধা পাবেন, কারণ লেদার লেস ইউরোপের শক্তিশালী ডেট অফ প্রটেকশন আইন দ্বারা পরিচালিত।

তারা এমনটি দাবী করে যে, তারা ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইড করার সময় যতটা সম্ভব কম ডেটা সঞ্চয় করে। তারা এমন একটি সিস্টেম তৈরি করেছে, যেটি স্বয়ংক্রিয় ভাবে সমস্ত ইমেইল থেকে হেডার এবং আইপি এড্রেস সরিয়ে দেয় এবং ব্যবহারকারীদের অ্যাক্টিভিটির কোন লগ রাখে না।

এমন কিছু ফিচার রয়েছে, যে কারণে Startmail কে অন্যান্য ইমেইল প্রোভাইডারের কাছ থেকে আলাদা করে তুলেছে। সব ফিচারগুলোর মধ্যে একটি হলো, এই সার্ভিসের জন্য সমস্ত Encryption server side পরিচালনা করা হয়, যা Startmail কে আরো Secure করে তোলে। আর অন্যান্য ফিচার ও খুবই Usrful, Startmail আপনাকে One use বা Disposable email address ব্যবহার করতে দিবে, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে অদৃশ্য হয়ে যায়। এই সার্ভিসটি ব্যবহার করার সময় সাইন আপ করার ক্ষেত্রে আপনার পরিচয় গোপন রাখার জন্য এটি একটি দুর্দান্ত পছন্দ হতে পারে এবং এটি আপনার ইনবক্সকে স্প্যাম মুক্ত রাখে।

Startmail এছাড়া ও IMAP এবং SMTP সাপোর্টেড, তাই আপনি আপনার ইনবক্স অ্যাক্সেস করার জন্য থার্ড পার্টি ইমেইল ক্লায়েন্টও ব্যবহার করতে পারেন। এমনকি এটি আপনাকে আপনার ব্যবহারের জন্য ১০ জিবি ফাইল স্টোরেজ ও দিয়ে থাকবে।

এই ইমেইল সার্ভিসটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে অসুবিধা বা সমস্যাগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো, এটির ইউজার ইন্টারফেস অনেক পুরনো মনে হতে হয় এবং এটির কোন ডেডিকেটেড মোবাইল অ্যাপ ও নেই। তবুও, Third party client ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি উভয়ই সমস্যা এড়াতে পারবেন।

সামগ্রিকভাবে বলতে গেলে, Startmail হল Gmail এর বিপরীতে একটি নির্ভরযোগ্য বিকল্প, যেটি আপনাকে যথেষ্ট পরিমাণে নিরাপত্তা এবং একটি সহজ ইন্টারফেস প্রদান করে।

Startmail

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Startmail

১৩. Thexyz

Thexyz - Best Gamil and Yahoo email service

Thexyz কে দীর্ঘদিন ধরে একটি নিরাপদ ইমেইল প্রোভাইডার হিসেবে উপেক্ষা করা হয়েছে। তবে এটিও অন্যান্য ইমেইল প্রোভাইডারের মতোই আপনাকে অনেক ফিচার এবং হাই লেভেলের সিকিউরিটি প্রদান করতে পারে।

এই ইমেইল সার্ভিসকে মূলত এজন্যই উপেক্ষা করা হয়েছিল, কারণ এটি কানাডায় অবস্থিত। আর তাই এটি প্রাইভেট সার্ভিস দেওয়ার জন্য একটি আদর্শ জায়গার নয় বলে অনেকেই মনে করে। কেননা, কানাডা হল মূলত Five Eyes network এর অংশ; আর তাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের সাথে তাদের ইনফরমেশন শেয়ার করে। যাই হোক, কিছু ব্যক্তির কাছে এবং ব্যবসার জন্য এটি খুব বেশি উদ্বেগের বিষয় হবে না।

এই ইমেইল সার্ভিসটিতে Secure email, Encrypted cloud storage এবং Team email সহ আরো অন্যান্য প্রোডাক্টিভিটি টুল রয়েছে। এছাড়াও ব্যবহারকারীদের মেইল যখন জমা থাকে, তখন এটি Industry - stranded AES 256 - bit protocol ব্যবহার করে, যেটি মূলত Uncrackable।

Thexyz প্রধান লক্ষ্য হলো যে একটি সম্পূর্ণ আধুনিক ইমেইল সার্ভিস প্রদান করা এবং যে কারণে তারা বিভিন্ন অ্যাপ ও একটি Beautiful user interface ব্যবহার করে। এছাড়াও আপনি এই ইমেইল সার্ভিসে Custom domain, Autoresponder এবং Advance spam filter পাবেন।

এ সমস্ত একই ফিচারগুলো অন্যান্য ইমেইল প্রোভাইডারের কাছ থেকে ও পাওয়া যায়। কিন্তু, Thexyz এর সাথে অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস গুলোর মধ্যে পার্থক্য হল, এটি অত্যন্ত সাশ্রয় মূল্যের। আপনি যদি কোন একটি ছোট ব্যবসা পরিচালনা করেন এবং আপনার টিমকে হ্যাকারের হাত থেকে সুরক্ষিত রাখতে চান, তাহলে এটি আপনার জন্য একটি দুর্দান্ত ইমেইল সার্ভিস।

Thexyz

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Thexyz

ইমেইল একাউন্ট সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন

ইমেইল একাউন্ট সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন

উপরের আলোচনা থেকে আমরা গুগলের বিকল্প অনেক কয়েকটি ইমেইল সার্ভিস সম্পর্কে জানলাম। যেসব ইমেইল সার্ভিস গুলোর বেশিরভাগই আমাদেরকে Google এর চাইতে বেশি সিকিউরিটি অফার করে থাকে। তবে, জিমেইল এবং অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস সম্পর্কে আপনার আরো কিছু প্রশ্ন থাকতে পারে। যেমন: আপনি কেন জিমেইলের বদলে অন্য কোন বিকল্প সার্ভিস ব্যবহার করবেন এবং কোন ইমেইল সার্ভিসটি সেরা, এসব বিষয়গুলো আপনার জানার প্রয়োজন।

চলুন, এবার এরকম কিছু প্রশ্নের উত্তর জেনে নেওয়া যাক।

আপনি কেন জিমেইলের বিকল্প সার্ভিস ব্যবহার করবেন?

আপনি কেন জিমেইলের বিকল্প সার্ভিস ব্যবহার করবেন?

Gmail এর সমস্ত বিকল্প ইমেইল সার্ভিসগুলো আপনাকে গুগলের তুলনায় অনেক বেশি নিরাপত্তা প্রদান করবে। এ সমস্ত সার্ভিস গুলো আপনাকে জিমেইল এর তুলনায় অনেক বেশি প্রাইভেসি প্রদান করে। আপনি যদি এসমস্ত ইমেইল সার্ভিস গুলো ব্যবহার করেন, তাহলে গুগল আপনার ডেটা গুলো পড়তে পারবে না এবং ফলস্বরূপ তারা আপনার ডেটা গুলোকে কোন থার্ড পার্টি এজেন্সির কাছে বিক্রি ও করতে পারবে না। আর এতে করে, গুগল আপনার কাছে এমন কোন বিজ্ঞাপণ দেখাতে পারবে না যা আপনি পছন্দ করেন।

যদিও Encrypt করা ইমেইল ব্যবহার করার অন্যান্য অনেক সুবিধা রয়েছে। ইন্টারনেট ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আমাদের ডাটাগুলোর এনক্রিপশন করার অন্যতম কারণ হলো, যাতে করে সরকার কিংবা অন্য কোন থার্ড পার্টি এজেন্সি আমাদের ডেটা গুলো পড়তে কিংবা দেখতে না পারে। আর এটি আপনাকে সাইবার আক্রমণের শিকার হওয়ার সম্ভাবনা থেকে রক্ষা করবে এবং অনলাইনে আপনার অ্যাক্টিভিটি গুলো Track করতে বাধা দিবে।

আমাদের সবসময় এতে মাথায় রাখা উচিত যে, আমাদের ব্যক্তিগত ডেটা গুলো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং কোনোভাবেই আমাদের ডেটা গুলোকে অন্যের হাতে তুলে দেওয়া উচিত নয়। আপনি যদি জিমেইল ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি স্বাভাবিকভাবে google এর কাছে আপনার ইনবক্সের সবকিছু তুলে দিচ্ছেন এবং আপনার সম্পর্কে তাদের জানার জন্য সমৃদ্ধ করছেন।

যখন Gmail এর Alternative বেছে নেওয়ার কথা আসে, তখন আমাদের সামনে প্রচুর বিকল্প রয়েছে। উপরের আলোচনা করা সমস্ত ইমেইল সার্ভিস গুলোই দুর্দান্ত পারফর্ম করে, তবে এগুলোর প্রতিটির নিজস্ব কিছু সুবিধা এবং অসুবিধার সংমিশ্রণ রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে কিছু কিছু ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডার আপনাকে থার্ড পার্টি কোন অ্যাপ ব্যবহার করতে দেয় না।

তবুও, আপনি এই তালিকা থেকে যেকোন ইমেইল প্রোভাইডার কে বেছে নেওয়ার মাধ্যমে আপনি অনলাইনের সাইবার আক্রমণের ঝুঁকি থেকে বাঁচতে পারেন। এছাড়াও আপনি জিমেইল বাদ দিয়ে অন্যান্য ইমেইল সার্ভিস ব্যবহার করার মাধ্যমে বিজ্ঞাপণ দাতাদের গুপ্তচরবৃত্তি করার ক্ষমতাকে হ্রাস করতে পারবেন এবং আপনার ডেটা থাকবে সুরক্ষিত।

ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য কোন ইমেইল একাউন্ট সেরা?

ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য কোন ইমেইল একাউন্ট সেরা?

আমাদের নিজেদের পার্সোনাল কাজে ব্যবহারের জন্য কোন ইমেইল একাউন্টটি ব্যবহার করব, এটি অবশ্যই আমাদের ভাবার বিষয়। আমরা প্রত্যেককেই ইমেইল ব্যবহার করি। আমাদের প্রত্যেকের আলাদা আলাদা ফিচারের এবং আলাদা আলাদা নিরাপত্তা পদ্ধতির প্রয়োজন হতে পারে। আর এই কারণে আমাদের ভিন্ন ভিন্ন ইমেইল সার্ভিস বেছে নেওয়ার ও প্রয়োজন হয়।

যদিও আমাদের কাছে একটি জিনিস পরিষ্কার যে, আমাদের ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহারের জন্য Gmail এবং Yahoo একমাত্র সেরা ইমেইল একাউন্ট নয়। কারণ, তারা আমাদেরকে সিকিউরিটির ব্যাপারে যথেষ্ট বললেও, তারা এ বিষয়ে যথেষ্ট মুক্ত নয়। তারা তাদের ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে আপনার ডেটা গুলো সঞ্চয় এবং পড়ে থাকে।

তবে, আজকের সময়ের জিমেইল এর বিকল্প ইমেইল গুলো ও আমাদের অনেক ভালো ফিচার প্রদান করে, যদি কখনো কখনো গুগল এবং ইয়াহুর চাইতে ও অনেক ভালো। ইয়াহু কিংবা google এর মত এসব ইমেইল সার্ভিস প্রোভাইডাররা আপনার মেইলগুলো পড়বে না এবং আপনার মেইলগুলো Encrypt করবে, যাতে করে সেগুলো অন্য কেউ পড়তে না পারে।

সুতরাং আপনি যদি আপনার পার্সোনাল ব্যবহারের জন্য কোন নিরাপদ ইমেইল একাউন্ট খুঁজে থাকেন, তাহলে আপনি উপরের ইমেইল গুলো একবার ব্যবহার করে দেখুন।

জিমেইল কি একটি নিরাপদ ইমেইল সার্ভার?

জিমেইল কি একটি নিরাপদ ইমেইল সার্ভার?

গুগলের Gmail সার্ভিসটি নিরাপদ কিনা, এটি নির্ভর করে আপনি নিরাপদ বলতে কী বোঝাতে চান। জিমেইলের ব্যবহারকারীর সংখ্যার পরিপ্রেক্ষিতে, এটির ডাটা লঙ্ঘন এবং হ্যাকিং এর মত ঘটনার রিপোর্ট মোটামুটি কম। এক্ষেত্রে, Gmail হ্যাকারদের বিরুদ্ধে বেশি নিরাপদ।

আরো সঠিক উত্তর হল যে, জিমেইলের কিছু গুরুতর সমস্যা রয়েছে। যখন এই সার্ভিসটির মাধ্যমে ইমেইল পাঠানো হয়, তখন ইমেইল গুলোকে এনক্রিপ্ট করা হয় না, তাই সম্ভাবনা থাকে সেগুলো হ্যাকারদের দ্বারা আটকানো অথবা পড়তে পারার। তবে সেগুলো যখন আপনার ইনবক্স অথবা আপনার বন্ধুর কাছে পাঠানো হবে, তখন সেগুলো সেখানে নিরাপদ হতে পারে।

যদিও জিমেইল নিরাপদ হতে পারে, তবে এটি প্রাইভেট নয়।

সবচেয়ে নিরাপদ ইমেইল একাউন্ট কি?

সবচেয়ে নিরাপদ ইমেইল একাউন্ট কি?

নিরাপত্তার দিক থেকে বিবেচনা করলে, সম্ভবত CounterMail এর মত ইমেইল সার্ভিসগুলো সেরা। এটি সম্পূর্ণভাবে একটি ওয়েব-ভিত্তিক সার্ভিস, যেটি আপনাকে একেবারে আপনার সবকিছু Encrypt করে এবং শক্তিশালী এনক্রিপশন প্রটোকল ব্যবহার করে, যদি কখনো ভাঙ্গা যায়।

যাইহোক, Gmail এর বদলে একটি বিকল্প ইমেইল সার্ভিস খুঁজে নেওয়ার আগে আমাদেরকে সর্বদা একটি ভারসাম্যপূর্ণ ইমেইল একাউন্ট খুঁজে নিতে হবে। আপনি যদি জিমেইল ব্যবহার করা বাদ দেন, তাহলে আপনাকে এমন একটি ইমেইল সার্ভিস খুঁজে বের করতে হবে, যেটি আপনাকে জিমেইল এর চাইতে ও বেশি সিকিউরিটি অফার করবে। আপনি যদি সত্যিই আপনার পাঠানো মেইল গুলো সম্পূর্ণভাবে সুরক্ষিত করে পাঠাতে চান, তাহলে আপনি এই ধরনের সার্ভিসগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

যদিও বেশিরভাগ লোক তাদের ডিভাইসে এমন কোন ইমেইল সার্ভিস ব্যবহার করতে চান, যেটি তারা তাদেরই স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট ব্যবহার করতে পারে। আর স্বাভাবিকভাবে আমরা জিমেইল কিংবা ইয়াহু মেইল এর মত কমন ইমেইল সার্ভিসগুলো ব্যবহার করি। তবে যারা একটু অতিরিক্ত সচেতনতার কথা ভাবেন, তাদের জন্য Gmail এবং Yahoo mail এর বিকল্প খোঁজা জরুরী হয়ে যায়। আর সেই কারণে ই নিরাপদ ইমেইল একাউন্ট হিসেবে আপনি আজকের তালিকা থেকে যেকোন একটি ইমেইল একাউন্ট ব্যবহার করতে পারেন।

Yahoo email কি Gmail এর থেকে ভালো?

Yahoo email কি Gmail এর থেকে ভালো?

একথা সত্য যে, ইয়াহু এবং গুগল তাদের সার্ভারে সংরক্ষিত প্রতিটি মেইল পড়ে এবং অর্থ উপার্জন করার জন্য তারা আপনার মেইল গুলোর ডাটা ব্যবহার করে।

তাই আপনি যদি নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে Gmail এর বিকল্প খুঁজে থাকেন, তাহলে আপনি অনুগ্রহ করে Yahoo কে বেছে নিবেন না। আপনি তাদের ইমেইল সার্ভিস ব্যবহার করে যেসব অ্যাক্টিভিটি গুলো করছেন, তারা সেগুলো অন্য কাউকে ব্যবহার করতে দিচ্ছে। আপনার জন্য একটি ভালো অপশন হল, উপরের তালিকা থেকে একটি প্রাইভেসি ভিত্তিক ইমেইল প্রোভাইডারের মধ্যে থেকে একটি সার্ভিস বেছে নেওয়া। এতে করে আপনার ডাটা সুরক্ষিত এবং প্রাইভেট থাকবে।

শেষ কথা

গুগলের Gmail এবং ইয়াহু এর Yahoo email-এর মতো ইমেইল প্রোভাইডারদের আয়ের অন্যতম মাধ্যম হলো ব্যবহারকারীদের ডেটা সংগ্রহ করা। তারা তাদের ব্যবহারকারীদের বিনামূল্যে সার্ভিস দেওয়ার অংশ হিসেবে ডেটা সংগ্রহ করে এবং সেগুলো বিজ্ঞাপণের কাজে ব্যবহার করে। তবে, আপনি কিংবা আমি কখনো চাইবো না যে আমাদের পার্সোনাল ডেটা গুলো অন্য কেউ পড়ুক। আর তাই আমাদেরকে জিমেইলের একটি অল্টারনেটিভ ইমেইল বেছে নেওয়া জরুরি। আর এই প্রয়োজন থেকে আপনি উপরে আলোচনা করা Email service গুলোর মধ্যে থেকে যে কোন একটি Email account ব্যবহার করতে পারেন।

তবে, Gmail বাদ দিয়ে অন্য একটি ইমেইল সার্ভিস চয়েজ করার আগে আমাদেরকে সেই ইমেইল প্রোভাইডারের সুবিধা সম্পর্কে জেনে নেওয়া জরুরী। সেই ইমেইল আমাদেরকে যদি জিমেইলের চাইতেও বেশি সুবিধা বা ফিচার অফার করে, তাহলে আমরা সেই বিকল্প ইমেইলে ট্রান্সফার হতে পারি। যাইহোক, আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী জিমেইল বাদ দিয়ে অন্য কোন ইমেইল ব্যবহার করুন অথবা জিমেইল এর ব্যবহার ই চালিয়ে যান। ধন্যবাদ, আসসালামু আলাইকুম।

Level 15

আমি মো আতিকুর ইসলাম। কন্টেন্ট রাইটার, টেল টেক আইটি, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 364 টি টিউন ও 93 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 61 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 3 টিউনারকে ফলো করি।

“আল্লাহর ভয়ে তুমি যা কিছু ছেড়ে দিবে, আল্লাহ্ তোমাকে তার চেয়ে উত্তম কিছু অবশ্যই দান করবেন।” —হযরত মোহাম্মদ (সঃ)


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস