জিমেইল অ্যাকাউন্ট খোলা, প্রোফাইল ফটো যোগ করা এবং পাসওয়ার্ড রিকভার করা শিখুন

টিউন বিভাগ গুগল মেইল
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 4
২য় বর্ষ, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ, গাইবান্ধা

আশাকরি সবাই ভালোই আছেন। আজ আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি টিপস-এন্ড-ট্রিকস জাতীয় একটি টিউন। আশা করি আপনাদের টিউনটি ভালো লাগবে।

প্রযুক্তির এই যুগে স্মার্টফোন এখন সবার ঘরে ঘরে। কিন্তু এই স্মার্টফোনের ব্যবহার কি সবাই সঠিকভাবে জানে? অনেকেই আছে যারা স্মার্টফোন সম্পর্কে অনেক অভিজ্ঞ।

আবার কেউ কেউ আছে তার চেয়ে একটু কম অভিজ্ঞ আবার কিছু সংখ্যক লোক আছে যারা একেবারেই কিছুই জানেনা। তো বন্ধুরা যারা একটু কম জানে এবং যারা একেবারেই জানেনা তাদের জন্যই আজকের টিউনটি। যারা ফোন সম্পর্কে ভালভাবে জানেন তাদের টিউনটি পড়ার দরকার নেই। আপনারা হয়তো জানেন যে স্মার্টফোনের সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে জিমেইল আইডি বা অ্যাকাউন্ট এর কোন বিকল্প নেই। বিশেষ করে যারা অ্যান্ড্রয়েড ইউজার।

আপনি যদি গুগলের সুযোগ-সুবিধা সঠিকভাবে পেতে চান তাহলে তো আপনাকে অবশ্যই জিমেইল অ্যাকাউন্ট খুলতেই হবে। আপনাকে ইউটিউবে দৈনন্দিন ভিডিও, খবরা-খবর এগুলো দেখতেও জিমেইল অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। এছাড়াও প্লেস্টোর থেকে থার্ডপার্টি বিভিন্ন অ্যাপ ডাউনলোড করতেও আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট চাই। এছাড়াও আল্লাহর দুনিয়ায় আরো অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনার প্রবেশ অধিকারের জন্য জিমেইল একাউন্ট চাই।

এজন্য আমাদেরকে জিমেইল একাউন্ট খোলা জানতে হবে এবং এই একাউন্টের পাসওয়ার্ড রিকভার করা জানতে হবে। তো এই কাজটা অনেকেই জানে আবার অনেকেই জানেনা। আমার এই রকম মনে হওয়ার কারণ আমার কাছে অনেকেই ফোন নিয়ে আসে এবং বলে যে জিমেইল অ্যাকাউন্টটা একটু খুলে দেত অথবা জিমেইল একাউন্টের পাসওয়ার্ডটা একটু রিকভার করে দেতো। ঝামেলা কিন্তু এই জায়গায় না। ঝামেলা হচ্ছে, আপনারা হয়তো নিশ্চয়ই জানেন যে বর্তমান মোবাইল গুলো হার্ড রিসেট করার পর সেটাপের সময় জিমেইল অ্যাকাউন্ট চায় এবং পাসওয়ার্ড ও চায়।

যদি কেউ সঠিকভাবে পাসওয়ার্ড এবং জিমেইল একাউন্ট দিতে না পারে তাহলে মোবাইলটি সম্পূর্ণরূপে সেটআপ করা সম্ভব হয় না এবং তখন মোবাইল ফোনটি চালানো অসম্ভব হয়ে পড়ে। তখন আমাদেরকে যেতে হয় মোবাইল সার্ভিস সেন্টারে সফটওয়্যার কিট নিতে অথবা কোন বাইপাস এক্সপার্ট এর কাছে। ফোনের বাইপাস করা অনেক কঠিন। আমি আমার জীবনে দুটো ফোনের বাইপাস করেছিলাম। আমার সারারাত চলে গিয়েছে একটা ফোন বাইপাস করতেই। কারণ ঐ ফোনটির জিমেইল অ্যাকাউন্ট রিকভার করা সম্ভব ছিলো না।

তো বন্ধুরা আজ আমি আপনাদেরকে শিখাতে চলেছি কিভাবে একটি ফোনের জিমেইল একাউন্ট খুলতে হয় এবং জিমেইল একাউন্টের পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে তা কিভাবে রিকভার করতে হয়।

চলুন জেনে নেই কিভাবে জিমেইল একাউন্ট খোলা যায়ঃ

১. প্রথমে আপনাকে আপনার মোবাইল ফোনের গুগল ওপেন করতে হবে।

২. তারপর আপনাকে আপনার ফোনের ডিসপ্লের উপরের দিকের ডানে নিচের চিত্রের মত মার্ক করা জায়গায় ট্যাপ করতে হবে।

৩. ট্যাপ করার সাথে সাথেই পেজটি Cheking info  দেখাবে।

কিছুক্ষণ পর আপনার মোবাইলের স্ক্রিন লক টা চাইবে। আপনি সঠিকভাবে আপনার ফোনের লক টি দিবেন সেটা পিন হোক পাসওয়ার্ড হোক কিংবা প্যাটার্ন হোক। তারপর পেইজটি আবার Checking info করবে।

৩. তারপরআপনারা যে পেজটি দেখতে পাবেন সেখানে Creat account এ ক্লিক করতে হবে।

৪. এখানে যে টেবিল মেনুতে দেখাবে সেখানে দুইটি অপশন থাকবে। নিজের জন্য খুললে For myself এবং ব্যাবসার জন্য খুলতে হলে To manage my business ট্যাপ করতে হবে। আমি নিজের জন্য খুলবো তাই For myself।

এখন Next এ ট্যাপ করতে হবে।

৫. এখন আপনার সামনে দুটি ছক উপস্থিত হবে। ছক দুটিতে আপনার First name এ আসল নাম এবং Last name এ পদবি দিতে হবে। এরপর নেক্সট এ ট্যাপ করতে হবে। অবশ্যই ইহা ইংরেজিতে দিতে হবে।

৬. তারপরের ছকটিতে আপনার জন্ম তারিখ এবং জেন্ডার দিতে হবে এবং নেক্সট ট্যাপ করতে হবে। ঠিক যেমনটা আমি নিচের ছকগুলোতে দিয়েছি।

৭. তারপর যে পেইজটি দেখাবে সেখানে কয়েকটি জি-মেইল অ্যাকাউন্ট দেখাবে। সেখান থেকে আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী আপনার নামসহ একটি সংখ্যা যুক্ত জিমেইল নাম বেছে নিবেন। কোন কোন সময় সংখ্যা নাও থাকতে। চিত্র দেখে ভালোভাবে বুঝে নিন।

নাম ও পদবীর সাথে সংখ্যা আসার কারণ ঐ নাম ও পদবী দিয়ে অনেক জিমেইল একাউন্ট খোলা হয়েছে। এখন নেক্সট এ ট্যাপ করতে হবে।

৮. এখন আপনার সামনে যে পেজটি আসবে সেই পেজের ছক দুটিতে আপনাকে শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দিতে হবে। শক্তিশালী পাসওয়ার্ড বলতে আপনার পাসওয়ার্ডে বড় হাতে বর্ণ, ছোট হাতের বর্ণ, সংখ্যা, এবং চিহ্নের ব্যবহার থাকতে হয়। ঠিক নিচের চিত্রের মতো।

দুটি ছকে আপনাকে অবশ্যই একই পাসওয়ার্ড দিতে হবে। এখানে আপনি আপনার পাসওয়ার্ডটা খাতায় লিখে রাখতে পারেন অথবা স্ক্রিনশট নিতে পারেন Show password  এ  টিকচিহ্ন দিয়ে। এরপর নেক্সট এ ট্যাপ করতে হবে।

৯. তারপর যে পেজটি আসবে সেটার ছকে আপনার ফোনে তুলে রাখা যেকোনো সিমের নাম্বার অটোমেটিক বসিয়ে নিবে। আপনি চাইলে সেটা পরিবর্তন করতে পারেন। আপনার অন্য কোন নাম্বার যেটা ঐ ফোনে তোলা আছে। ভালো ভাবে বুঝতে নিচের ছবি দেখুন। এখন নেক্সট এ ক্লিক করুন।

১০. এখন আপনার সামনে যে পেজটি ওপেন হবে সেখানে আপনার জিমেইল একাউন্ট এবং ঐ একাউন্টের রিকভারি নাম্বারটা দেখাবে এবং আপনি এই পেজটির স্ক্রিনশট নিয়ে নিতে পারেন। এখন নেক্সট এ ট্যাপ করুন।

তারপর আপাকে যে পেজটি দেখাবে তার নিচে I agree তে ট্যাপ করতে হবে।

তারপরের পেইজটিতে accept এ ট্যাপ করলেই আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

জিমেইল প্রোফাইল এ ফটো যোগ করবেন কিভাবেঃ

১. প্রথমে গুগল ওপেন করতে হবে।

২. তারপর Manage google account এ যেতে হবে।

৩. তারপর নিচের ছবির মতো গোল জায়গায় ক্লিক করতে হবে।

৪. তারপর set profile photo তে ক্লিক করতে হবে।

৫. তারপরের টেবিলে আপনাকে দুটি অপশন দিবে। একটি হলো take photo যা সরসরি ছবি তুলতে এবং আরেকটি হলো Choose photo যা গ্যালারি থেকে ছবি নিতে। আমি যেহেতু সরসরি ছবি তুলতে চাই তাই Take photo তে ট্যাপ করলাম।

এখন ছবি নিয়ে ওকে করলেই প্রোফাইল ছবি সেট হয়ে যাবে। ঠিক নিচের চিত্রের মতো।

জিমেইল অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখবেন যেভাবেঃ

১. প্রথমে গুগল ওপেন করতে হবে।

২. তারপর Manage google account এ যেতে হবে।

৩. এরপর আপনাকে আপনার পেইজের একটু নিচে যেতে হবে।

৪.এরপর আপনাকে security issues found এ যেতে হবে।

৫. এরপর আপনাকে যেতে হবে Sing-in & recovery তে।

৬. তারপর ট্যাপ করতে হবে verify এ।

৭. এরপর আপনাকে যাচাই করার জন্য আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট এর পাসওয়ার্ড চাইবে। পাসওয়ার্ড সঠিক ভাবে দিতে হবে।

৮. এরপর আপনাকে Next এ ক্লিক করতে হবে ঠিক নিচের ছবির মতো।

৯. এরপর আপনার রিকভার জিমেইল নাম্বারে একটা কোড যাবে এবং সেই কোড অটোমেটিক ছকে বসিয়ে নেবে এবং আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত হবে। নিচের চিত্রের মতো মার্ক করা গোল জায়গায় টিকচিহ্ন আসবে।

আপনি কিভাবে আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট কে ব্যাক-আপ এর জন্য উপযুক্ত করে তুলবেনঃ

১. প্রথমে গুগল ওপেন করতে হবে।

২. তারপর Manage google account এ যেতে হবে।

৩. এরপর আপনাকে আপনার পেইজের নিচে একটু নিচে যেতে হবে।

৪. এরপর আপনাকে  we keep your account protected এ যেতে হবে।

৫. এরপর আপনাকে যেতে হবে sing-in & recovery তে।

৬. এখানে আপনি রিকভারের জন্য আপনার রিকভার নাম্বার পরিবর্তন করতে পারেন এবং রিকভারের জন্য অন্য ইমেইল ও যোগ করতে পারেন।

এটা হতে পারে  আপনার বা আপনার পরিচিত কারোর। জাতে করে আপনি সহজেই রিকভার কোড পেয়ে জেতে পারেন। এজন্য আপনাকে নিচের ছবির মতো Add নামক জায়গায় ট্যাপ করতে হবে।

৭. এরপর আপনাকে আপনি কি না এটা নিশ্চিত করতে আপনার পাসওয়ার্ড চাইবে। পাসওয়ার্ড দিয়ে নেক্সট এ ক্লিক করুন।

৮. তারপরে যে পেইজটি দেখাবে সেখানে আপনার রিকভার জিমেইল বসিয়ে দিন। তারপর নেক্সট এ ট্যাপ করুন।

এখন আপনার জিমেইল অ্যাকাউন্ট একদম ব্যাক-আপ যোগ্য।

জিমেইল অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড রিকভার করা শিখে নিনঃ

১. প্রথমে গুগল ওপেন করতে হবে।

২. তারপর সার্চ বারে গিয়ে সার্চ করতে হবে account recovery.

৩. তারপর যে পেইজটি দেখাবে তার প্রথম লিংক এ যেতে হবে।

৪. তারপর যে অ্যাকাউন্ট রিকভার করতে হবে তা নিচের ছকে বসাতে হবে এবং নেক্সট এ ক্লিক করতে হবে।

৫. তারপর পাসওয়ার্ড চাইবে। আপনার কাছে তো পাসওয়ার্ড নেই আপনি ভুলে গেছেন। তাই নিচের চিত্রের মতো try another way বা Forgotten password এ জেতে হবে।

৬. তারপর যে পেইজটি আসবে তাতে Get a verification code এইটাতে যেতে হবে।

৭.তারপর ম্যাসেজ ইনবক্সে যে কোড আসবে তা নিচের ছকে বসাতে হবে। যদি আপনার ফোনে রিকভারি নাম্বার না থাকে তাহলে কোড কিন্তু আসবে না। এর নেক্সট এ ক্লিক করতে হবে।

৮. এখন যে পেইজটি আসবে সেখানে পাসওয়ার্ড রিসেট করার দুটি ছক থাকবে। ছক গুলিতে নতুন শক্তিশালী পাসওয়ার্ড বসিয়ে ওকে করলেই পাসওয়ার্ড পরিবর্তন হয়ে যাবে।

অনেক সময় ভেরিফিকেশন কোড দেবার পর ও পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পেইজ আসেনা। তখন আসে get a verification code with recover email। ঐ যে প্রথমে আমি add ইমেইল দেখালাম ঐ ইমেইল এ কোড আসবে। আপনাকে স্বল্প সময়ের মধ্যে কোড সংগ্রহ করে ছকে বসাতে হবে। তারপর আপনি পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পেইজ পাবেন।

আমি এতক্ষণ যে বিষয় নিয়ে কথা বললাম অর্থাৎ জিমেইল এর পুর্ণরুপ হচ্ছে গুগল মেইল।

তো বন্ধুরা এই ছিলো আজকের টিউন। ভালো লাগলে জোসস 👍 দিতে ভুলবেন না। মন্তব্য থাকলে টিউমেন্ট 🖌️ এ জানতে ভুলবেন না।
এতক্ষন সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Level 4

আমি মোঃ তানজিন প্রধান। ২য় বর্ষ, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 6 মাস 2 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 62 টি টিউন ও 57 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 13 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 4 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো হারিয়ে যাই চিন্তার আসরে, কখনোবা ভালোবাসি শিখতে, কখনোবা ভালোবাসি শিখাতে, হয়তো চিন্তাগুলো একদিন হারিয়ে যাবে ব্যাস্ততার ভীরে। তারপর ব্যাস্ততার ঘোর নিয়েই একদিন চলে যাব কবরে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস