এক্সটেনশন ব্যবহার করে যেভাবে বিরক্তিকর সকল এড থেকে মুক্তি পেতে পারেন

Level 4
Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর

আসসালামু আলাইকুম। টেকটিউনস ওয়েবসাইটের নতুন আরো একটি টিউনে আপনাকে স্বাগতম। আমি স্বপন আছি আপনাদের সাথে, আশাকরি সকলেই অনেক অনেক ভালো আছেন। স্বাগতম সবাইকে এক্সটেনশন ব্যবহার করে যেভাবে বিরক্তিকর সকল এড থেকে মুক্তি পেতে পারেন নিয়ে নতুন আরো একটি টিউনে। ইন্টারনেট ব্যবহার করতে গিয়ে অর্থাৎ কোনো ওয়েবসাইট ব্রাউজ অথবা ইন্টারনেটের যেকোনো ওয়েবসাইটে ভিডিও দেখতে গেলে আমরা সবসয়ই একটি বিরক্তির সম্মুখীন হই আর সেটি হলো বিজ্ঞাপণ অথবা এডভার্টাইসমেন্ট যাকে কিনা সংক্ষেপে "এড"ও বলা হয়ে থাকে। এবং আজকে আমরা এমন একটি পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করবো যার মাধ্যমে আমরা এই বিরক্তিকর এডভার্টাইজিং অর্থাৎ এই বিজ্ঞাপনগুলো থেকে মুক্তি পেতে পারি।

পরিপূর্ণ আলোচনায় যাওয়ার আগে বলে রাখা ভালো প্রথমে আমরা যেই পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করছি সেটি শুধুমাত্র ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার এর জন্যে। কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপের ক্রোম ব্রাউজারে একটি এক্সটেনশন ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা এই কাজটি করবো। তাই এর জন্য আমাদের কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপে আগে থেকে ক্রোম ব্রাউজার ডাউনলোড থাকতে হবে। আর যদি ক্রোম ব্রাউজার আগে থেকে ইনস্টল না দেয়া থাকে তাহলে এটি ইনস্টল দিয়ে তারপর পরের কাজগুলো করতে হবে।

এডব্লক এক্সটেনশন আসলে কী?

আপনাদের মনে প্রশ্ন আসতেই পারে যে এডব্লক এক্সটেনশন টি আসলে কী? এটা কীভাবে ব্যবহার করে কিংবা এর কাজ কি। তাহলে দেরি না করে আসল কথা বলা যাক, এড ব্লক এক্সটেনশন হল ওয়েব ব্রাউজারে বিজ্ঞাপণ ব্লক করে ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা ভালো করার জন্য ব্যবহৃত একটি টুল। এটি একটি ওয়েবসাইটে যাওয়ার সময় ব্যবহারকারীর জন্য অসুবিধা সৃষ্টি করতে পারে এমন সব বিজ্ঞাপণ বা এড রিমুভ করে দেয় যা তারা দেখতে চায় না।

প্রথমে আপনার কম্পিউটারটি অথবা ল্যাপটপটি অন করে নিন তারপর ক্রোম ব্রাউজার এ প্রবেশ করুন। ক্রোম ব্রাউজারের প্রবেশের পরে ব্রাউজারের সার্চ অপশনে গিয়ে লিখতে হবে "Chrome Extension"। সার্চ রেজাল্টের মধ্যে থেকে Chrome Web Store লেখা কোনো সার্চ রেজাল্ট আছে কিনা টা খুঁজে বের করতে হবে। উক্ত লেখাটি খুঁজে পেলে ওই লেখার উপর ক্লিক করলে একটি নতুন ট্যাব আপনাদের সামনে ওপেন হবে।

নতুন যেই ট্যাবটি ওপেন হবে সেটি গুগলের একটি অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হবে অর্থাৎ অ্যাড্রেসবারে অবশ্যই chrome.google.com লেখা থাকবে যদি এটি লেখা না থাকে তাহলে আপনি ভুল সাইটে প্রবেশ করেছেন। আর যদি গুগলের এই লেখাটি আপনাদের অ্যাড্রেসবারে শো করে তাহলে লক্ষ করে দেখবেন Chrome Web Store লেখাটির নিচে একটি সার্চ বার দেয়া আছে ওই সার্চবারে গিয়ে লিখতে হবে adblock।

তারপর অনেকগুলো সার্চ রেজাল্ট আপনাদের সামনে শো করবে ঐগুলোর মধ্য থেকে Adblock - the best blocker নামে যে রেজাল্ট শো করবে সেটিতে ক্লিক করতে হবে। ক্লিক করার পর নতুন একটি পেইজ ওপেন হবে সেখানে Adblock - the best blocker এই লেখাটির পাশে নীল ব্যাকগ্রাউন্ডে একটি Add to Chrome নামে একটি অপশন দেখাবে সেটাতে ক্লিক করলে একটি নোটিফিকেশন শো হবে সেখান থেকে Add Extension নামে যে অপশনটি থাকবে সেটিতে ক্লিক করতে হবে।

Add Extension বাটনে ক্লিক করার সাথে সাথে একটি ৫-৬ এমবির একটি ফাইল ডাউনলোড হবে এবং সাথে সাথে অটোমেটিকলি আপনার ব্রাউজারে এক্সটেনশনটি ইনস্টল হয়ে যাবে। এবার আপনার ব্রাউজারের হোম পেইজে চলে আসুন। উপরে পাজেলের মত যে আইকনটি দেখা যাচ্ছে ঐটিতে ক্লিক করলে যদি অ্যাডব্লক লেখাটি দেখতে পান তাহলে আপনার কাজ হয়ে গেছে। এখন থেকে আপনার ব্রাউজারে কোনো এড শো করবে না এমনকি ইউটিউবেও না। এড বিহীন দুনিয়ায় আপনাকে স্বাগতম। এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারের কিছু বিষয় আছে যা ব্যবহারকারীদের অবশ্যই জানা দরকার:

১. নিয়মিত এক্সটেনশন আপডেট করুন

ব্রাউজার এডব্লক এক্সটেনশন আপডেট এর ব্যাপারে সবসময় নিশ্চিত থাকুন। সময় থাকলে প্রতি সপ্তাহে বা প্রতি মাসে এডব্লক এক্সটেনশন আপডেট করা উচিত যাতে নতুন কোনো সিকিউরিটি প্রতিরোধ যোগ হলে সেটি সম্পর্কে আপনি জানতে পারেন। এক্সটেনশন গুলো আপডেট করার বেশ কিছু উপকারিতা রয়েছে। অনেক সময় দেখা যায় প্রতারক চক্ররা একটি এক্সটেনশনের উপর অনেক সময় ধরে রিসার্চ করার পর সেই এক্সটেনশন সম্পর্কে কিছুটা হলেও গোপনীয়তা জানতে পারেন। যার ফলে সেই এক্সটেনশন ইউজারদের ডেটা লিক হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

নিজেদের প্রাইভেসি সুরক্ষিত করতে, ইন্টারনেটে নিজেদের গোপনীয়তা বজায় রাখার জন্য সবচেয়ে ভালো উপায় হল নিয়মিত আপনাদের ব্যবহার করা এক্সটেনশন গুলো আপডেট রাখা। এতে হ্যাকার চক্রের সদস্যরা উক্ত এক্সটেনশন নিয়ে গবেষণা করার সময় খুব কম পান। যার ফলে সেই এক্সটেনশনটির গোপনে বিষয়গুলো অনুমান করতে পারেন না। ফলে তারা ইউজারদের ডেটা এক্সেস নিতে পারেন না। ইন্টারনেটে নিজেকে সর্বোচ্চ সুরক্ষিত রাখতে সবচেয়ে ভালো উপায় হল প্রতিদিন ব্যবহার করি এমন প্রয়োজনীয় সকল এক্সটেনশন গুলো নিয়মিত আপডেট রাখা।

২. কোন সাইট ব্লক করবেন না তা সিদ্ধান্ত নিন

অনেক সময় এডব্লক সাইটের কন্টেন্ট ব্লক করতে পারে যা কোনও নীতির বিরুদ্ধও হতে পারে। আপনার ব্রাউজিং অভিজ্ঞতা উন্নত করতে প্রয়োজন অনুযায়ী আপনি এই সাইটগুলি ভিজিট করার জন্য এডব্লক এক্সটেনশন সেটিংস পরিবর্তন করতে পারেন। এতে আপনার সেই নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটের জন্য সেটিংটি করা হবে। এতে উক্ত ওয়েবসাইটে কোন ঝুঁকিপূর্ণ কনটেন্ট থেকে থাকলে সেখান থেকে আপনি সুরক্ষিত থাকবেন। এছাড়াও নিজেদের ফ্যামিলি মেম্বারদের ইন্টারনেটে বিভিন্ন রকমের ক্ষতিকর জিনিসগুলো থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

তবে একবার পরিবর্তন করার পর আপনার যদি মনে হয় যে আপনি আবার ওই সাইটের এড ব্লক করতে চান তাহলে আপনি তাও করতে পারবেন। অর্থাৎ যখন ইচ্ছে আপনি এই সেটিং পরিবর্তন করতে পারবেন। তবে সেটিং একবার চেঞ্জ করার পর ওই ওয়েব পেইজটি রিফ্রেশ না করার আগ পর্যন্ত নতুন সেটিং টি কার্যকর হবে না। শুধুমাত্র যখন আপনি ওয়েবপেজের রিফ্লেশ করবেন তখনই আপনার সেটিং সেই ওয়েবসাইটের জন্য কার্যকরী হয়ে যাবে। তবে আপনি চাইলে আপনার মন মত যে কোন সময় সেই নির্দিষ্ট ওয়েবসাইটি ব্লক অথবা আনব্লক করতে পারবেন।

৩. ঝুঁকিপূর্ণ সাইটগুলি ব্লক করুন

এডব্লক এক্সটেনশন সেটিংস পরিবর্তন করে ঝুঁকিপূর্ণ সাইটগুলি ব্লক করতে পারেন। এটি হতে পারে ফিশিং, ম্যালওয়্যার, বিজ্ঞাপনগুলির দ্বারা প্রকাশিত সাইটগুলির ইত্যাদি যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে শনাক্ত করে। এমন ওয়েবসাইটগুলো সকলের জন্য বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। তাই নিজের প্রাইভেসি সর্বোচ্চ সুরক্ষিত করতে অবশ্যই ঝুঁকিপূর্ণ ওয়েবসাইটগুলো ব্রাউজার থেকে অ্যাক্সেস করা বন্ধ করে দেওয়া উচিত। এতে আপনাদের নিজেদের ব্রাউজিং প্রাইভেসি সাধারণ ইউজারদের থেকে অনেক গুণে বৃদ্ধি পাবে। তাই অবশ্যই নিজের প্রাইভেসির সর্বোচ্চ সুরক্ষা দিতে ঝুঁকিপূর্ণ ওয়েবসাইট গুলো ব্লক করা দরকার। আর ঝুঁকিপূর্ণ সকল ওয়েবসাইটগুলো ভিজিট করা থেকে বিরত থাকা।

৪. সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করুন

কিছু এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারকারীদের অনেক বেশি সুরক্ষা প্রদান করতে সাহায্য করে। এই ধরনের এক্সটেনশন ব্যবহার করার পরে নিশ্চিত হোন যে আপনি এই সুরক্ষা লেভেলগুলি সঠিকভাবে সেট আপ করেছেন। কারণ এই ধরনের এক্সটেনশনগুলোতে আপনার সুরক্ষা লেভেল সেটআপ ঠিকঠাক মতো না হলে আপনাকে সর্বোচ্চ সুরক্ষা দিতে পারবেনা। অনলাইনে একজন সচেতন ইউজার হিসেবে আমাদের সকলের উচিত নিজেদের সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করা।

অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের ইউজারদের সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন প্যাকেজ প্রদান করে থাকে। ইউজাররা তাদের ইচ্ছা মতো সে প্যাকেজগুলো নিয়ে সেগুলোকে সুন্দর করেছে সেটআপ করে নিজেদের সুরক্ষা সর্বোচ্চ বৃদ্ধি করতে পারে। তবে এতে কিছুটা অর্থ প্রয়োজন হয়। তবে এসব এক্সটেনশনগুলো ফ্রিতে আপনাকে যে সার্ভিসগুলো প্রদান করবে সেই সার্ভিসগুলোই একজন সাধারণ ইউজারদের জন্য তুলনামূলক অনেক ভালো। তাই আপনি যদি টাকা খরচ করে তাদের সার্ভিস না নিতে চান তাহলে তাদের ফ্রি সার্ভিস গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

৫. ব্রাউজার কুকিজ সুরক্ষা করা

এডব্লক এক্সটেনশন সেটিংসে যান এবং আপনার প্রাইভেসি প্রেফারেন্স নির্ধারণ করুন। কিছু এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারকারীদের প্রাইভেসি প্রেফারেন্স নির্ধারণ করতে সাহায্য করে, যেমন কোনও ব্রাউজার হিস্টোরি বা কুকিজ সরানোর ব্যাপারে। একজন ইউজারের কাছে তার ব্রাউজারে কুকিজ অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ব্রাউজার কুকিজ দ্বারা অনলাইনে অনেক কিছুই করা সম্ভব। তো চলুন একটা সহজ ভাবে উদাহরণ দিয়ে বোঝানো যাক। ধরুন আপনি একজন সাধারণ ফেসবুক ইউজার। আপনি শুধু প্রতিদিন ফেসবুকে আসেন আর আপনার প্রয়োজনীয় মানুষগুলোর সাথে কথা বলে চলে যান। এর বাহিরে ফেসবুক সম্পর্কে ঘাঁটাঘাঁটি করার আপনার কোন ইচ্ছা নাই।

তো তর্কের ক্ষেত্রে আমরা ধরেই নিচ্ছি আপনি ফেসবুকের একজন সাধারণ আর নিয়মিত ফেসবুক ইউজার। তবে আপনি জানলে অবাক হবেন যে, ফেসবুক সম্পর্কে অনেক বেশি এক্সপার্ট এমন লোক যদি আপনার ফেসবুক ব্রাউজারে কুকিজ পেয়ে যায় তাহলে সেই লোক আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে পাসওয়ার্ড ছাড়াই প্রবেশ করতে পারবে। আমি শুধু আপনাদের এটুকুই ধারণা দিলাম এ বিষয়ে আর বিস্তারিত না বলি। আশাকরি সহজেই বুঝতে পারছেন আপনার ব্রাউজার কুকিজ আপনার জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ।

এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারের এই বিষয়গুলো অনুসরণ করলে ব্যবহারকারীরা তাদের অনলাইন অভিজ্ঞতা সংক্রান্ত অধিক নিরাপদ ও সুরক্ষিত হতে পারেন। এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহার করার পেছনে কিছু প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরা হলো কারণ আপনাদের মনে প্রশ্ন থাকতেই পারে যে আপনি কেন এই এডব্লক এক্সটেনশনটি ব্যবহার করবেন তার পাশাপাশি আরও একটি প্রশ্ন মাথায় থেকে যায় যে এই এক্সটেনশন টি ব্যবহার কতটুকু ভরসা যোগ্য অর্থাৎ এটি ব্যবহার করলে আপনার কোনো তথ্য চুরি হওয়ার ভয় থাকছে কিনা? এক কথায় এটি ব্যবহার সেফ কিনা! তাহলে প্রথমেই এই সুবিধা নিয়ে আলোচনা করা যাক -

এডব্লক এক্সটেনশনের সুবিধা

বিজ্ঞাপণ ব্লক করা

এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহার করে আপনি আপনার ব্রাউজারের বিজ্ঞাপণ সহজেই ব্লক করতে পারবেন যা বিভিন্ন ওয়েব সাইটে দেখতে হতো। এটি আপনার ওয়েব অভিজ্ঞতাকে প্রশান্ত করবে এবং তার পাশাপাশি ব্রাউজিং দ্রুততা বাড়াতে সাহায্য করে।

বিজ্ঞাপণ বিহীন ইউটিউব ভিডিও

বিজ্ঞাপণ বিহীন ইউটিউব ভিডিও কে না দেখতে চায়, এই চাওয়া বিনামূল্যে পূরণ হবে শুধুমাত্র এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারের মাধ্যমে। অর্থাৎ আপনার যে ব্রাউজারে এই এক্সটেনশনটি ডাউনলোড করা বা ইনস্টল দেয়া থাকবে সেই ব্রাউজার ব্যবহার করে যদি আপনি ইউটিউবে যে কোনো ভিডিও দেখতে যান তাহলে সেই ভিডিওতে কোনো প্রকার বিজ্ঞাপণ অর্থাৎ এড দেখা যাবে না। তার মনে এই এক্সটেনশন ব্যবহার করে আপনি যেকোনো ইউটিউব ভিডিও অ্যাডস বিহীন দেখতে পাবেন তাও আবার বিনামূল্যে যেখানে প্রিমিয়াম ইউটিউব সেশন কিনে অ্যাডস বিহীন ইউটিউব ভিডিও দেখা কিনা অনেক ব্যয়বহুল একটি ব্যাপার।

গোপনীয়তা সুরক্ষা

এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহার করলে আপনি আপনার অনলাইনে নিজের গোপনীয়তা সুরক্ষিত রাখতে পারবেন। বিজ্ঞাপনগুলির মাধ্যমে অনেক সময় আমাদের সামনে অনেক অপ্রয়োজনীয় তথ্য চলে আসে যা অনেক সময় বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে থাকে এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহার করলে এই ধরনের অপ্রস্তুত অথবা অস্বস্তিকর পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

পেজ লোডিং স্পিড বাড়াতে সাহায্য করে

অনেক সময় বিজ্ঞাপণের মাধ্যমে ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড কম হয়ে যায় অর্থাৎ পেইজ লোড হতে স্বাভাবিকের তুলনায় অনেক বেশি টাইম নেয়। এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহার করলে আপনি এই ধরনের সমস্যা থেকে সহজেই মুক্তি পেতে পারেন এবং এই এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহার করলে এটি আপনার ব্যবহৃত যেকোনো ওয়েবসাইটের লোডিং স্পিড বাড়াতে সাহায্য করবে।

সুবিধার পাশাপাশি এই সার্ভিসটি ব্যবহার করলে আপনার সামান্য কিছু অসুবিধা হতে পারে যা কিনা সব সময় হবে কিনা বলা যায় না কারণ এটি নির্ভর করে আপনি কোন ধরনের সাইট ব্যবহার করছেন এবং সেই সাইডে সিকিউরিটি সিস্টেম কেমন তার উপর। যদিও এই সমস্যা গুলো সব সময় দেখা দেয় না তারপরও জেনে রাখা ভালো যে এই সিস্টেমটি ব্যবহার করার সময় আপনি কি কি সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন অথবা কি কি সুবিধা থেকে আপনি বঞ্চিত হতে পারেন। তাহলে জেনে নেয়া যাক এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারের অসুবিধা সমূহ-

এডব্লক এক্সটেনশন ব্যবহারের অসুবিধা

সাইট ফাংশনালিটির ক্ষতি

অনেক সময় এডব্লক এক্সটেনশন বিজ্ঞাপণ বা এড ব্লক করার সাথে সাথে ওয়েবসাইটের কিছু ফাংশনালিটি ক্ষতি হতে পারে যা কিনা খুবই কম দেখা যায়। তবে কখনো কখনো এটি অনেক বড় সমস্যা হয়ে উঠতে পারে। কারণ এটি হতে পারে যে, এটি কিছু সময় সাইটের ঠিকানা প্রদর্শন করতে বাধা প্রদান করে অর্থাৎ সাইটের যে অ্যাড্রেস রয়েছে এডব্লক এক্সটেনশন সেই অ্যাড্রেসকে এক্সটার্নাল সোর্সের কাছে শো করে না পাশাপাশি অন্যান্য ফিচারগুলিরও মাঝে মধ্যে অনেক ক্ষতি করে থাকে।

সেবা অসম্পূর্ণতা

কিছু সময় এডব্লক এক্সটেনশন সক্রিয় বা পরিবর্তন সংরক্ষণ না করার ফলে এডব্লক করা বা ব্লক করা উচিত নয় এমন বিজ্ঞাপণ দেখাতে পারে।

শেষ কথা

এডব্লক এক্সটেনশন ইনস্টল করে ব্যবহার করা হলে আপনি বিজ্ঞাপণ বিহীন একটি স্বাভাবিক ইন্টারনেট ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন। এটি সাইটের লোডিং স্পিড বাড়াতে সাহায্য করতে পারে এবং আপনাকে আপনার অনলাইন গোপনীয়তা সুরক্ষিত রাখতে এটি সাহায্য করতে পারে। তবে, এটি সময়ের সাথে কিছু ওয়েবসাইটের ফাংশনালিটির সামান্য কিছু ক্ষতি করে ও অন্যান্য অসুবিধাও সৃষ্টি করতে পারে যা কিনা ডিপেন্ড করে আপনি কোন ধরনের ওয়েবসাইট বেশি ব্যবহার করে থাকেন তার উপর। তাই, আপনার ব্রাউজারে এডব্লক এক্সটেনশন ইনস্টল এবং ব্যবহারের পূর্বে ভালোভাবে বিবেচনা করুন যে আপনার এই সুবিধাটি সত্যিই কোনো প্রয়োজন আছে কিনা তা যাচাই করে সঠিক সিদ্ধান্ত নিন।

তো বন্ধুরা, এই ছিল আমাদের আজকের টিউন, এক্সটেনশন ব্যবহার করে যেভাবে বিরক্তিকর সকল এড থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আশাকরি টিউন টি আপনাদের একটু হলেও হেল্পফুল হবে। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি, দেখা হবে পরবর্তী টিউনে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। ততক্ষণ অবধি সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং টেকটিউনস এর সাথেই থাকবেন।

Level 4

আমি স্বপন মিয়া। Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 67 টি টিউন ও 28 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

টেকনোলজি বিষয়ে জানতে শিখতে ও যেটুকু পারি তা অন্যর মাঝে তুলে ধরতে অনেক ভালো লাগে। এই ভালো লাগা থেকেই আমি নিয়মিত রাইটিং করি। আশা করি নতুন অনেক কিছুই জানতে ও শিখতে পারবেন।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস