ভয়েস কমান্ড দিয়ে ম্যাজিক্যালি কন্ট্রোল করুন ওয়েব পেইজ! ক্রোম ব্রাউজারের ৫টি বেস্ট এক্সটেনশন

হ্যালো টেকটিউনস জনগণ, কেমন আছেন আপনারা সবাই? আশাকরি সবাই ভাল আছেন। এখন থেকে নিয়মিত আবার নতুন টিউন নিয়ে আমরা হাজির হলাম আপনাদের কাছে। আর টেকটিউনসের নিত্যনতুন টপিক আর সার্ভিস নিয়ে ভালো না থেকে আর উপায় আছে? আর এই নিত্যনতুন টপিক আর সার্ভিসের ধারা বজায় রাখার নিমিত্তে, আজকে আমি আপনাদের সাথে একদম নতুন একটি টপিক নিয়ে হাজির হলাম। আর আপনারা এই টিউনের মাধ্যমে জানতে পারবেন অনেক নতুন নতুন সব তথ্য।

আজকে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো এমন পাঁচ পাঁচটি ভয়েস টু টেক্সট ব্রাউজার এক্সটেনশন, যার মাধ্যমে আপনি ভয়েস কমান্ড দিয়েই অনেক কাজ করে ফেলতে পারবেন খুবই দ্রুত ও স্মার্টলি। তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক আজকের টিউন।

Voice to Text (VTT), এই টার্মকে আবার Speech to Text ও বলা হয়, আর এই ফিচারটি প্রয়োজন থেকেও বেশি কিছু। কেননা আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যাদের হাতে আঘাত পেয়েছেন যার ফলে হাত দিয়ে কিছু লিখতে পারছেন না আবার অনেকেই চোখে দেখছেন না তাদের জন্য এই ফিচারটি লাইফ সেভার হিসেবে কাজ করে। তাছাড়া আধুনিক VTT টেকনোলজি যা একদম নিখুঁত ও স্মুথলি কাজ করে।

এটি উচ্চারণ (accents), বাচনভঙ্গি এবং এমনকি ব্যাকগ্রাউন্ড নয়েজকেও সামঞ্জস্য করতে পারে। তাছাড়া আপনি এই প্রযুক্তি গুলোকে ইন্টারনাল ল্যাপটপ মাইক সহ যে কোন ধরনের মাইক্রোফোনের মাধ্যমে ব্যবহার করতে পারবেন অনায়াসেই। এখন টাইপিং হবে ম্যাজিক্যালি.একদম সহজে।

নিচের পাঁচটি এক্সটেনশন ব্যবহার করে আপনি অনলাইনে টাইপিং করতে এবং ইন্টারনেটে বিভিন্ন ওয়েব সাইট ব্রাউজ করতে পারবেন স্মার্টলি।

০১. Lipsurf

Lipsurf এর প্রচেষ্টা কখনো থেমে থাকেনি, এটি ক্রোম ব্রাউজারকে ভয়েস কন্ট্রোল করতে পারে। আর আপনি এই এক্সটেনশনের মাধ্যমে টেক্সট ফিল্ড পূরণ করতে পারেন, বাটন প্রেস করতে পারেন, ওয়েব পেইজ নেভিগেট করতে পারেন ও ব্রাউজারের ট্যাব নেভিগেট করতে পারেন এবং আরও অনেক কিছুই করতে পারবেন যা আগে কখনো চিন্তাও করেননি। আপনি শুধু আপনার ভয়েস এর মাধ্যমে কমান্ড করবেন আর তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবে এই এক্সটেনশনটি। আর প্রথমবার ইন্সটল করার পরে আপনি এর অপশন পেইজে যাবেন। সেখানে আপনি একটি সহজ ও কুইক টিউটোরিয়াল দেখতে পাবেন।

অসংখ্য হেল্পফুল ফিচার Lipsurf  এ রয়েছে ফলে এটি ব্যবহার করা আরও সহজ করে তুলেছে। আপনি Tags কমান্ডের সাহায্যে ওয়েব পেইজের যেকোনো কিছু সহজেই সিলেক্ট করতে পারবেন, যা প্রতিটি অবজেক্টেই একটি সিম্পল ট্যাগ অ্যাপ্লাই করবে। তারপরে আপনি সংশ্লিস্ট বাটন, ইমেজ বা লিংক, টেক্সট ফিল্ড বা অন্যান্য আইটেম সিলেক্ট করতে ট্যাগের নাম দিতে পারেন।

Lipsurf এর শক্তিশালী সাপোর্ট সিস্টেম রয়েছে। আর এর বিল্ট-ইন Help কমান্ড এর মাধ্যমে একটি পপ-আপ মেনু ওপেন হবে, ফলে আপনি যে ফিচারটি বর্তমানে ব্যবহার করছেন তার জন্য বিভিন্ন সাপোর্ট দেখায়। আর হ্যাঁ, আপনি একটি পরিপূর্ণ VTT অ্যাপ থেকে যেসব ফিচার আশা করতে পারেন তা এই এক্সটেনশনের মধ্যেই রয়েছে। আর এর মধ্যে রয়েছে টেক্সট ফরম্যাটিং, কাস্টম শর্টকাট এবং আরও অনেক কিছু।

কাস্টম শর্টকাটগুলি হল ইউজার কর্তৃক নির্ধারিত কিছু ভয়েস কমান্ড, যার মাধ্যমে ইউজার তার কাঙ্ক্ষিত কমান্ডটি কাস্টমাইজড করতে পারে। এছাড়াও আপনি এই কাস্টম শর্টকাট ফিচার ব্যবহার করে, আপনি যে ভয়েস কমান্ড দিচ্ছেন তা যদি এক্সটেনশনটি ভুল বোঝে বা ডিটেক্ট করতে না পারে তাহলে তা আপনি এই ফিচারের মাধ্যমে ঠিক করতে পারবেন। তাছাড়া Shortcuts ফিচারটি ব্যবহার করে আপনি লং ফর্ম টাইপিং করতে পারবেন নিমিষেই। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যখন “website plug” বলবেন তখন ইনপুট ফিল্ডে পূর্বে প্রস্তুত করা একটি প্যারাগ্রাফ অটোমেটিকভাবে ইনসার্ট হয়ে যাবে।

এছাড়াও Lipsurf এর বেশ কয়েকটি হেল্পফুল ব্যাকগ্রাউন্ড ফিচার রয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি অনেকক্ষণ যাবত ক্রোম ব্রাউজারটি ব্যবহার না করে অন্যকোন কাজে ব্যস্ত হয়ে যান তখন এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিজেকে ডিজেবল করতে পারে। অর্থাৎ, যদি আপনি ক্রোম ব্রাউজার সিলেক্ট না করা অবস্থায় ভয়েস কমান্ড দেন তাহলে Lipsurf আপনার ভয়েস কমান্ড অনুযায়ী কাজ করবে না।

ডাউনলোড: Lipsurf - Voice Control for the Web শুধুমাত্র গুগল ক্রোমের জন্য (ফ্রি)

০২. Speech Recognition Anywhere

Sea Breeze Computers থেকে এই এক্সটেনশনটি Google Voice to Text ফিচার ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে। এটি একই সফটওয়্যার যা Google Docs এ ভয়েস টাইপ করার জন্য ব্যবহার করা হয়। আর এই এক্সটেনশনটি খুবই লাইট ওয়েট এবং সিম্পল, শুধুমাত্র টেক্সট ইনপুট করাকে কেন্দ্র করে ডেভেলপ করা। আপনি যদি ক্লিক ও স্ক্রোলিং করার জন্য মাউস ব্যবহার করতে চান তাহলে এটি আপনার জন্য পারফেক্ট হতে পারে।

এক্সটেনশন আইকনে ক্লিক করলে এর জন্য একটি নতুন ট্যাব ওপেন হবে। আর স্পিচ রিকগনিশন ব্রাউজারের যেকোনো জায়গায় কাজ করানোর জন্য আপনাকে সেই ট্যাবটি খোলা রাখতে হবে। এরপরে, এক্সটেনশনটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে সার্চ বার সহ অন্যান্য টেক্সট বক্সগুলো সনাক্ত করবে। এছাড়াও আপনি Click On কমান্ড ব্যবহার করার মাধ্যমে যেখানে ক্লিক করবেন সেখানেই ভয়েস কমান্ড দিতে পারবেন, তবে এই ফিচারটি কিছুটা কম কার্যকর।

অন্যান্য VTT এক্সটেনশনের মতো, এই এক্সটেনশনটি একটি ভাষা এবং অ্যাকসেন্ট সিলেক্ট করার অপশন দেয়। তাছাড়া অন্যান্য VTT এক্সটেনশন থেকে এটি ভিন্ন, কেননা এটি খুবই লাইট ওয়েট টেক্সট-টু-স্পিচ ফাংশন ক্রোম ব্রাউজারে যুক্ত করতে পারবেন। এছাড়া আপনি এই এক্সটেনশনটি স্ক্রিন রিডার হিসেবে কাজ করাতে পারবেন ফলে এর মাধ্যমে স্ক্রিনে থাকা টেক্সট গুলোকে শুনতে পারবেন।

ডাউনলোড: Speech Recognition Anywhere শুধুমাত্র গুগল ক্রোমের জন্য (ফ্রি)

০৩. DictationBox

DictationBox ইনপুট ফর্ম বা ওয়েব নেভিগেশনের পরিবর্তে লং-ফর্ম টেক্সটের উপর ফোকাস করে তৈরি করা হয়েছে। আর DictationBox এর আইকনে ক্লিক করলে এটি একটি ফ্লোটিং বক্স ওপেন করবে যার মাধ্যমে আপনি ভয়েস কমান্ড করতে পারবেন। এই এক্সটেনশনে এক ক্লিকে কপি বাটন রয়েছে যা আপনার সকল টেক্সট সিলেক্ট করে এবং ক্লিপবোর্ডে কপি করা রাখে ফলে আপনি সহজেই পেস্ট করতে পারবেন।

এই এক্সটেনশনে আপনি পূর্বেই বিভিন্ন টেক্সট ফরমেট সেভ করে রাখতে পারবেন এবং একটি কমান্ড শব্দ (যেমনঃ insert it) সেট করলেন, আপনি যখনই insert it কমান্ড দিবেন তখন সেই টেক্সটগুলো পেস্ট হয়ে যাবে। এই ফিচারটি Lipsurf এর Custom Shortcuts এর মতই কাজ করে। আপনি একটি বিট কোড ব্যবহার করে এটিকে আরও স্বয়ংক্রিয় করতে পারবেন।

উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনি টেমপ্লেটে [*] যোগ করেন, DictationBox সেই ব্রাকেট সিলেক্ট করবে। তারপরে আপনি ভয়েস টাইপিং এর মাধ্যমে সেই টেক্সটগুলোকে প্রতিস্থাপন করতে পারবেন। আর এই এক্সটেনশনটি লং-ফর্ম টেক্সট অথবা পূরণযোগ্য ফর্মগুলো পূরণ করার জন্য খুবই কার্যকর।

যদিও এই এক্সটেনশনটি ভয়েস কন্ট্রোল এক্সটেনশন নয়। আর এই কারণে “undo” অথবা “select ” অথবা ক্লিক “submit” বাটন ইত্যাদি কমান্ড কাজ করবে না। সুতরাং এই এক্সটেনশনটি শুধুমাত্র তখনই ব্যবহার করার জন্য বলা হয় যখন আপনি মাউস এবং কীবোর্ডের ব্যাকস্পেস কী ব্যবহার করতে সক্ষম হন।

ডাউনলোড: DictationBox শুধুমাত্র গুগল ক্রোমের জন্য (ফ্রি)

০৪. SpeechAgent

 

Speech Agent এক্সটেনশনটি একটিভ টেক্সট ফিল্ড সনাক্ত করে এবং আপনাকে একটিভ টেক্সট ফিল্ডে ভয়েসের মাধ্যমে ইনপুট করতে সাহায্য করে। আর আপনি কথাগুলো বলেছেন তা পপ-আপ স্ক্রিনে প্রদর্শিত হয়। সবশেষে, যখন অটোমেটিকভাবে এই এক্সটেনশনটি টেক্সট ফিল্ড খুঁজে না পায় তখন one-click copy বাটনে ক্লিক করে আপনি সেই টেক্সট গুলোকে কপি করে ইনপুট ফিল্ডে পেস্ট করতে পারবেন।

এই এক্সটেনশনটি বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম সহ অন্যান্য ওয়েব সাইটে কাজ করে। তবে, এটি ফেসবুক বা ওয়ার্ড প্রসেসিং প্রোগামে কাজ করে না যেমনঃ গুগল ডক্স। অতএব, বলা যায় এই এক্সটেনশনটি সর্ট-ফর্ম কমিউনিকেশনের জন্য উত্তম। আর DictationBox এর মত এই এক্সটেনশনটি আপনার টাইপ করার প্রয়োজন অনেকাংশে দূর করবে বলে আশা রাখি।

Speech Agent কে একটিভ করতে এবং ওয়েব পেজ নেভিগেট করার জন্য আপনার মাউস অবশ্যই প্রয়োজন হবে। আর তাই আপনি যদি মাউস ব্যবহার করা কষ্টটুকু করতে রাজি থাকেন তাহলে টাইপ করার সমস্ত দায়িত্ব Speech Agent উপর দিয়ে নিশ্চিন্তে থাকতে পারেন। যদিও এটি “undo” অথবা “delete text” ইত্যাদি-র মত কমান্ড সাপোর্ট করে না তাই আপনাকে এখনও মাঝে মাঝে ব্যাকস্পেস কী প্রেস করতে হতে পারে।

ডাউনলোড: SpeechAgent - Speech to Text Recognition শুধুমাত্র গুগল ক্রোমের জন্য (ফ্রি)

০৫. Voice In

Voice In হচ্ছে DictaNote ডেভেলপারদের আরেকটি ডিকটেশন অ্যাপ, ডিকটেশনের কথা মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে এই এক্সটেনশনটি। তাছাড়া Voice In হচ্ছে খুবই আকর্ষণীয় এবং লাইটওয়েট একটি এক্সটেনশন হওয়া সত্ত্বেও এটিতে কমান্ড ফিচার সহ আরও অনেক অপশন রয়েছে।

এই এক্সটেনশনটি ইন্সটল করার পর, আপনাকে চার ধাপের একটি কুইক টিউটোরিয়াল দেখাবে। আর যখন আপনি ডিক্টেট করেন, আপনার ডিকটেশনটি টেক্সট বক্সে যাওয়ার আগে একটি পপ-আপে প্রদর্শিত হবে। আর পপ-আপের টেক্সট গুলোর সাইজ তুলনামূলকভাবে বড়, ফলে যাদের দৃষ্টিশক্তির সমস্যা আছে তাদের জন্য এই এক্সটেনশনটি খুবই চমৎকার সমাধান হতে পারেন।

এই এক্সটেনশনটি ডিকটেশন বক্সের মাধ্যমে কাস্টম শর্টকাট ফিচার অফার করে থাকে। যদিও এটি একটি প্রিমিয়াম ফিচার, যা ব্যবহার করতে আপনাকে পেমেন্ট করতে হবে। আর প্রিমিয়াম ইউজার-রা কীবোর্ড শর্টকাট সহ একাধিক ল্যাঙ্গুয়েজ এ সুইচ করতে পারবে এবং অন্যান্য ওয়েব সাইটেও Voice In ব্যবহার করতে পারবে।

তা যাইহোক, ফ্রি ভার্সন এর ফিচারগুলো খুবই স্মুথলি কাজ করে। এছাড়াও এটি Facebook, Reddit, এবং অন্যান্য জনপ্রিয় ওয়েবসাইটগুলিতে কাজ করে এবং জিমেইল এবং আউটলুকের মতো ইমেল ক্লায়েন্টদের সাথে ইন্ট্রিগ্রেট করা আছে। আর বোনাস হিসাবে, এর গ্রে মাইক্রোফোন আইকনটি ক্রোম উইন্ডোর বিল্টইন আইকনের মতই মনে হয়, তাই সহজে কেউ বুঝতে পারবে না এটি এক্সটেনশন নাকি অন্যকিছু।

ডাউনলোড: Voice In Voice Typing শুধুমাত্র গুগল ক্রোমের জন্য (ফ্রি ও সাবস্ক্রিপশন সহ)

শেষ কথা

আপনার ভয়েস দিয়ে টাইপ করা শুরু করুন আজই একটি VTT এক্সটেনশনের সাহায্যে। আর এই এক্সটেনশনগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার সমস্ত প্রিয় ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারবেন। এমনকি আপনার এক বা উভয় হাত সঙ্গত কারণেই ব্যবহার করতে পারছেন না সেই অবস্থায়ও আপনি ওয়েব সাইট নেভিগেট করতে পারবেন সহজেই। উপরের সমস্ত অপশন থেকে আপনার পছন্দের একটি ভয়েস টু টেক্সট এক্সটেনশন খুঁজে পাবেন বলে আমি আশা রাখি।

টিউন জোসস করুন, আমার টিউন শেয়ার করুন, টেকটিউনসে আমাকে ফলো করুন, আপনাদের মতামত জানান

আমি এরকম নিত্যনতুন কাজের সফটওয়্যার নিয়ে টেকটিউনসে হাজির হবো নিয়মিত। তবে সে জন্য আপনার যা করতে হবে তা হলো আমার টেকটিউনস প্রোফাইলে আমাকে ফলো করার জন্য 'Follow' বাটনে ক্লিক করুন। আর তা না হলে আমার নতুন নতুন টিউন গুলো আপনার টিউন স্ক্রিনে পৌঁছাবে না।

আমার টিউন গুলো জোসস করুন, তাহলে আমি  টিউন করার আরও অনুপ্রেরণা পাবো এবং ফলে ভবিষ্যতে আরও মান সম্মত টিউন উপহার দিতে পারবো।

আমার টিউন গুলো শেয়ার বাটনে ক্লিক করে সকল সৌশল মিডিয়াতে শেয়ার করুন। নিজে প্রযুক্তি শিখুন ও অন্য প্রযুক্তি সম্বন্ধে জানান টেকটিউনসের মাধ্যমে।

Level 8

আমি রায়হান ফেরদৌস। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 2 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 163 টি টিউন ও 129 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 58 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস