গেমস জোন [পর্ব-১১৪] :: Hitman: Absolution (২০১২/একশন-এডভেঞ্চার/ডুয়াল কোর)

টিউন বিভাগ গেমস
প্রকাশিত

গেমস জোন

আমাদের হিটম্যান ওরফে ঠাডামানব (!) দেখি বুড়া হইয়া গেলো! ব্যাপার না! সময়ের সাথে সাথে তো হগলেই বুইড়্যা হইয়্যা যায়। ইচ্ছে ছিল এই রমজান মাসে গেমস জোন কে ২০০ পর্বে উন্নত করবো। তবে হিসাব করে দেখলাম এটা করতে হলে ডেইলি আমায় ৪/৫ টি করে গেমস জোন টিউন করতে হবে। যা আমি করতে পারলেও প্রেসার পরবে আমার ব্রেইনের উপর বেশি। এবং তাড়াহুড়োয় গেমস জোনের টিউনের কোয়ালিটি কমে যাবে। তাই দেরি হউক, তবুও গেমস জোনের টিউনের কোয়ালিটি যাতে নষ্ট না হয় তাই এখন ধীরে সুস্থে টিউন করবো। কারণ গেমস জোন এর কোয়ালিটির জন্য বাংলা ব্লগিং দুনিয়ায় অদ্বিতীয় । তোমার গেমস জোনের মতো কোনো গেমস ভিত্তিক চেইন টিউন আমাকে দেখাও যেটা বাংলা অথবা কলকাতার অথবা দুনিয়ার যেকোনো দেশেরে বাংলা ব্লগিং দুনিয়ায় রয়েছে!

যাই হোক,

হিটম্যান: এবসোলূশন একটি একশন এডভেঞ্চার স্টেলথ ভিডিও গেম নির্মাণ করেছে আইও ইন্টারএকটিভ এবং প্রকাশ করেছে স্কোয়ার ইনিক্স। গেমটি হিটম্যান সিরিজের ৫ম সংস্করণ এবং এটি গ্যাসিয়ার ২ গেম ইঞ্জিণে চলে। মুক্তি আগে নির্মাতারা বলেছিল যে গেমটি হবে সফটকোর এবং খেলতে সহজ। তবে গেমটিকে হার্ডকোর উপাদান রয়েই গেছে যা সিরিজের অন্যান্য গেমসগুলো রয়েছে। হিটম্যান বা এজেন্ট ৪৭ এর নামের অনুসারে বছরের ৪৭তম সপ্তাহে অর্থ্যাৎ ২০ নভেম্বর, ২০১২ সালে গেমটি মুক্তি পেয়েছে। গেমটির জেনারেল গেম-প্লে স্টেলথ এ-ই রয়ে যায় তবে সিরিজের আগের গেমসগুলোর থেকে অনেকাংশে ব্যাতিক্রম এবসোলূশন এর গেম-প্লে।

গেমটির পটভূমি সেট করা হয়েছে ইউনাইটেড স্টেটস / আমেরিকার শিকাগো এবং ইলিনইস সিটির আশেপাশের অঞ্চল এবং একটি ফিকশনাল টাউনে যার নাম “সাউথ ডাকোটা”। গেমটিতে অনলাইন অপশন রয়েছে নতুন ফিচার হিসেবে, যেখানে প্লেয়ার তার নিচের মতো করে মিশন তৈরি করে অনলাইনে অন্যান্য প্লেয়ারদের সাথে খেলতে পারবে। গেমটিতে নতুন ফিচার হিসেবে আরো রয়েছে “ইন্সটিন্ট মোড”, যা টম ক্ল্যান্সিস স্পিলিন্টার সেল: কনভিকশন গেমটির “সনার ভিশন” ফিচারটির মতোই।

হিটম্যান এবসোলূশন

নির্মাতা:

আইও ইন্টারএকটিভ

প্রকাশক:

স্কোয়ার ইনিক্স

সিরিজ:

হিটম্যান

ইঞ্জিণ:

গ্ল্যাসিয়ার ২

খেলা যাবে:

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ,

প্লে-স্টেশন ৩,

এক্সবক্স ৩৬০ গেমস কনসোলে

মুক্তি পেয়েছে:

নভেম্বর, ২০১২

ধরণ:

একশন-এডভেঞ্চার,

স্টেলথ

খেলার ধরণ:

সিঙ্গেল এবং মাল্টিপ্লেয়ার

ট্রেইলার ভিডিও:

 www.youtube.com/watch?v=F6gkVIwBHGI

www.youtube.com/watch?v=QQ_jhw5TuxA\

www.youtube.com/watch?v=sSRpFlx9r5g

সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টস:

****উইন্ডোজ এক্সপি সার্পোট করবে না।

কমপক্ষে:

ডুয়াল কোর ২.৮ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

৪ গিগাবাইট র‌্যাম,

৫১২ মেগাবাইট জিফোর্স জিটি ২১০ অথবা এএমডি এইচডি ২৬০০ এক্সটি মডেলের গ্রাফিক্স কার্ড

১৪ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

ডাইরেক্ট এক্স ১০.১ সাথে শেডার মডেল ৩.০

ভালো ভাবে খেলতে হলে:

কোর আই ৩ ২.৮ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

৪ গিগাবাইট র‌্যাম,

১ গিগাবাইট জিফোর্স জিটিএক্স ২৬০ অথবা রাডিয়ন এইডি ৫৭৭০ মডেলের গ্রাফিক্স কার্ড,

১৮ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

ডাইরেক্ট এক্স ১০.১ সাথে শেডার মডেল ৫.০

আল্ট্রা সেটিং:

ইন্টেল কোর আই ৭ (১ম প্রজন্ম) ৩.৪ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

১৬ গিগাবাইট র‌্যাম,

EVGA GTX 780 / GeForce GTX 580 / Radeon HD 7970 মডেলের গ্রাফিক্স কার্ড,

২৪ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

উইন্ডোজ ৮ সাথে ডাইরেক্ট এক্স ১১ এবং শেডাল মডেল ৬.০

 

কাহিনীচক্র:

হিটম্যান: ব্লাড মানি এর ঘটনার পর, এজেন্ট ৪৭ এর ইন্টারন্যাশনাল কনট্রাক এজেন্সির হেন্ডলার ডিয়ানা বার্নউড, হঠাৎ করে রাফ হয়ে যায় এবং এজেন্সির গোপনীতা পাবলিকে ফাঁস করে দিতে থাকে। এজেন্সি তার পদে বেনজামিন ট্রাভিসকে নিয়ে আসে।

ট্রাভিস ৪৭কে নির্দেশ দেয় যে ডিয়ানাকে হত্যার জন্য এবং তার কেয়ারটেকার তরুণী মেয়ে ভিক্টোরিয়াকে এজেন্সির কাছে নিয়ে আসতে। ৪৭ শিকাগোতে ডিয়ানার বাসায় হামলা চালায় এবং ডিয়ানাকে হত্যা না করে গুলি করে আহত আটক করে এজেন্সিতে নিয়ে যায়। আটকের আগে ডিয়ানা ৪৭কে একটি চিঠি দিয়ে যায়, যাতে লেখা আছে যে ভিক্টোরিয়াকে কখনোই যেন এজেন্সির কাছে না নিয়ে যাওয়া হয়।

৪৭ ভিক্টোরিয়াকে একটি ক্যাথলিক এতিমখানা রেখে আসে এবং একজন তথ্যকারী যার নাম বিরডাই এর সাথে যোগাযোগ করে। বিরডাই ৪৭ কে ডেক্সটার ইনড্রাস্ট্রিস এর প্রধান ব্ল্যাক ডেক্সটার এর কথা বলে। ডেক্সটার এর কাছে ভিক্টোরিয়া সম্পর্কে আরো তথ্য আছে বলে বিরডাই ৪৭ কে জানায়। বিরডাই এর ফি হিসেবে বাধ্য হয়ে ৪৭ তার সিলভারব্যালার অস্ত্রটি দিয়ে দেয়।

ডেক্সটার এর কাছে গিয়ে ৪৭ জানতে পারে যে ডেক্সটার ভিক্টোরিয়াকে কিডন্যাপ করার প্ল্যান রয়েছে এবং ভিক্টোরিয়াকে সে সবোর্চ্চ মূল্যে বিক্রি করে দিবে। সেখানে একজন নির্দোষ মানুষের খুন হয় এবং পুলিশ এসে পড়ে। সেখান হতে ৪৭ পালিয়ে আসে। ওদিকে ডেক্সটার এর বন্ধু ওয়েড এর দ্বারা বিরডাই আটক হয় এবং বিরডাই ভিক্টোরিয়ার অবস্থান জানিয়ে দেয ওয়েডকে নিচে বাঁচার জন্য।

৪৭ ভিক্টোরিয়ার কাছে আসে এবং দেখতে পায় তার গলায় একটি নেকলেস। নেকলেসটি যদি ভিক্টোরিয়া না পড়ে তাহলে সে মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে যাবে। ওয়েড এবং তার দল এতিমখানায় হামলা চালিয়ে অধিকাংশ মানুষকে মেরে ফেলে। ৪৭ কে মারাত্বক আহত হয় তবে ওয়েড কে হত্যা করতে সক্ষম হয়। তবে ডেক্সটার এর পুত্র লেনি ভিক্টোরিয়াকে আটক করে নিয়ে যায়।

৪৭ তাকে ফলো করে চলে আসে হোপ, সাউথ ডাকোটাতে। ওদিকে বিরডাই ডেক্সটার এর কাছে যায় এবং ভিক্টোরিয়াকে এজেন্সির কাছে ফেরত দিতে অফার করে, তবে ডেক্সটার তাতে মানা করে এবং রাগী হয়ে বিরডাইে এজেন্সিকে ৪৭ এর অবস্থান সম্পর্কে তথ্য দিয়ে দেয় এবং ডেক্সটার এর সম্পর্কে ৪৭কে তথ্য দিয়ে দেয়, অবস্থার চরম সুযোগ নেওয়ার জন্য। হোপে অবস্থানরত অবস্থায় ৪৭ জানতে পারে যে বিরডাইকে দেওয়া তার সিলভারব্যালারস অস্ত্রটি একটি লোকাল অস্ত্রশপে রয়েছে।

৪৭ লেনির গ্যাং এর উপর হামলা এবং হত্যাযঙ্গ চালায়। লেনিকে আহত করে ৪৭ জানতে পারে যে ভিক্টোরিয়া ডেক্সটার ইনড্রাস্ট্রিস এর হেডকোয়াটারে রয়েছে।

এরপর ৪৭ ডেক্সটার ইনড্রাস্ট্রিস এর হেডকোয়াটারে হামলা চালিয়ে ভিক্টোরিয়ার উপর রিসার্চ ডাটা ধ্বংস করে দেয়। সেখানে একজন বিজ্ঞানীর কাছে ৪৭ জানতে পারে যে ভিক্টোরিয়া “নেকলেস” পরিহিত অবস্থা বড় হয়ে। ৪৭ এর মতো টপ-ক্লাশ এসাসিন হবে। এরপর ৪৭ স্যানচেজকে হত্যা করে এবং জানতে পারে যে ভিক্টোরিয়াকে হোপে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

হোটেলে ৪৭ এর উপর হামলা হয় আইসিএ কর্তৃক। তবে তা ফিরিয়ে দিতে সক্ষম হয় ৪৭।

হোপ এর কোর্টহাউস জেলখানায় গিয়ে ৪৭ দেখতে পায় যে ভিক্টোরিয়া বন্দি রয়েছে দুর্নীতি গ্রস্থ পুলিশ অফিসার কর্তৃক। পুলিশ অফিসার ডেক্সটার এর পক্ষপাতি। ওদিকে আইসিএ শহরে কারফিউ এর অবস্থা তৈরি করে ভিক্টোরিয়াকে ফিরে আনার জন্য এবং ৪৭ কে হত্যা করার জন্য। তবে জেলখানায় আইসিএ ভিক্টোরিয়াতে কোথাও খুঁজে পায় না এবং আইসিএ এর চোখে ফাঁকি দিয়ে ৪৭ সেখান থেকে চলে আসে।

এরপর একজন আহত শুরকি এর কাছ থেকে ৪৭ জানতে পারে যে ভিক্টোরিয়া ব্ল্যাকওয়াটার পার্কে রয়েছে। ওদিকে আইসিএ ভিক্টোরিয়ার জন্য ১০ মিলিয়ন টাকা পুরস্কার ঘোষনা করে। তবে ডেক্সটার টাকা এবং ভিক্টোরিয়া দুটোকেই রেখে দেয়। এরপর একটি হোটেল রুমে ডেক্সটার তার এসিসটেন্স লায়লার জন্য অপেক্ষা করতে থাকে।

৪৭ ডেক্সটার এর বাসায় হামলা চালায় এবং লায়লাকে খুন করে। ওদিকে ডেক্সটার এর পরিকল্পনা ছিল যে হোটেলে লায়লা ৫ মিনিটের মধ্যে না আসলে সে ছাদ বোমা মেরে উড়িয়ে দিবে। যখন ডেক্সটার হোটল পরিত্যাগ করে ভিক্টোরিয়া এবং টাকা সহ হেলিকপটারে করে পালিয়ে যাচ্ছিল তখনই ৪৭ এর সাথে তার এনকাউন্টার হয়।

৪৭ ভিক্টোরিয়াকে বাঁচাতে এবং ডেক্সটারকে মারতে সক্ষম হয়। পরে ডিয়ানা কর্তৃক লিখিত চিঠি ৪৭ বিস্তারিত পরে। সেখান থেকে ৪৭ জানতে পারে যে ট্রাভিস ভিক্টোরিয়াকে সৃস্টি করেছে এজেন্সির অগোচরে। চিঠিতে ডিয়ানা আরো অনুরোধ করে যে ভিক্টোরিয়াকে প্রোটেক করার জন্য ট্রাভিস কে খুন করতে হবে ৪৭ কে।

ইল্যান্ডে ট্রাভিস কে ধাওয়া করে ৪৭। সেখানে ৪৭ জানতে পারে যে ডায়ানার মৃত্যু হয় নি এবং তার মৃত্যুর খবরটি ফেইক। ট্রাভিস এর এসিসটেন্স জেইড এবং তার পারসোনাল পাহাদারগুলোকে খুন করার পর, ৪৭ ট্রাভিস মুখোমুখি হয়। ৪৭ ট্রাভিসকে জিঙ্গেস করে যে ডিয়ানার আসলেই কি মৃত্যু হয়েছে কিনা?? তবে ট্রাভিস উত্তর দেয় না এবং ৪৭ ট্রাভিসকে খুন করে . . . .. .  .

.

.

.

.

.

গেমটি শেষ হয় দুটি কাটসিন দিয়ে।

প্রথম টিতে দেখা যায় যে, ৪৭ দূর থেকে ডিয়ানা এব ভিক্টোরিয়াকে দেখছে এবং ডিয়ানার চিঠি পড়ছে, যেখানে ডিয়ানা ৪৭ কে এজেন্সিতে স্বাগত জানাচ্ছে এবং আরো বলছে যে ৪৭ এর গুলি ডিয়ানার উপর “নন-লিথাল” ছিল। এছাড়াও ভিক্টোরিয়াকে স্বাভাবিক ভাবে বেড়ে উঠার জন্য ডিয়ানা ভিক্টোরিয়ার নেসলেস টি খুলে ফেলেছে। কাটসিনটি শেষ হয় ডিয়ানা এবং ভিক্টোরিয়ার কথাবর্তা চলাকালিন।

দ্বিতীয় এবং শেষ কাটসিনে দেখা যায় যে, বিরডাই ৪৭ কে কসমো ফাউলনার এর সম্পর্কে তথ্য দিতে অফার করছে। কসমো ৪৭ এর কেইসে ইনভেস্টিগেটিং করছে . . . .. . . . . .

ডাউনলোড:

আর কতো বার বলবো রে ভাই! এই সমস্ত লিংকগুলো মোটেই আমার নয় এবং আমি এই সমস্ত ফাইলগুলি আপলোড করিনি। তাই পাসওর্য়াড এবং অন্যন্যা সমস্যার জন্য আমি মোটেই দায়ী নই এবং থাকবোও না। আমি চেয়েছিলাম ডাউনলোড সেকশনটা বাদ দিতে তবে ডাউনলোড ব্যাতিত গেমস জোন অপূর্ণরয়ে যায়। তাই ডাউনলোড নিজ দায়িত্বে এবং নিজ ঝুঁকিতে করবেন। ডাউনলোড লিংক সংক্রান্ত কোনো ধরণের সার্পোট আমি দিতে পারবো না।

http://skidrowcrack.com/hitmanabsolution-black-box-repack-9-8gb/

or

http://skidrowcrack.com/hitman-absolution-skidrow/

আমার লেখা গেমস জোন শুধুমাত্র ফেসবুকে আমার নিজস্ব এবং গেমস জোনের আসল পেজ http://www.facebook.com/games.zone.bd এই পেজটাতে আমি শেয়ার করে থাকি। বাকি কোনো পেজে আমার গেমস জোনের পোষ্ট শেয়ার করা হয় না। যদি করে থাকে তাহলে তারা আমার পারমিশন ছাড়াই এ কাজ টি করেছে। আপনারা যদি ফেসবুকে আমার গেমস জোনের পোষ্ট সমূহ অন্যান্য পেজে পেয়ে থাকেন তাহলে একটু কষ্ট করে আমাকে জানিয়ে দেবেন প্লিজ। বহু কষ্ট করে বহু সময় খরচ করে গেমস জোনের এক একটি পর্ব লিখি আমি।

গেমস জোন মুলত টিউনারপেজ (www.tunerpage.com) ব্লগে আমি নিয়মিত এবং প্রথম থেকে লেখা আরম্ভ করেছিলাম। সেখানে গেমস জোনের মোট পর্বের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১৯১টি। আমি নিজে টিউনারপেজ, টেকটিউনস এবং বাংলা ফ্যামিলি ব্লগে গেমস জোন টিউন করে থাকি। আগে পিসি হেল্পলাইনে করতাম এখন করি না। তাই আপনারা যদি নিচের ৩ টি ব্লগের বাইরে অন্য কোনো ব্লগে আমার গেমস জোনের কপি দেখে থাকেন তাহলে দয়া করে কমেন্টে জানান অথবা ফেসবুকেও আমাকে জানাতে পারেন (fb.com/talented.fahad)

http://www.tunerpage.com

http://www.techtunes.co

http://www.banglafamily.com

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>><<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<

Level 10

আমি ফাহাদ হোসেন। Supreme Top Tuner, Techtunes, Dhaka। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 661 টি টিউন ও 428 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 121 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে!


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

amar favorite game.. many many thanks for share…
songspK | Hindi Songs

Level 0

অস্থির জটিল টিউন এবং গেম টাও চরম। …….. উই হোপ গেমস জোন ১০০০+ পর্ব পর্যন্ত চলবে।

Level 0

“ঠাডামানব” 😛

চালিয়ে যান জটিল টিউন