গেমস জোন [পর্ব-৯৮] :: রিভিউ – DmC: Devil May Cry (2013)

টিউন বিভাগ গেমস
প্রকাশিত

গেমস জোন

ডেভিল মে ক্রাই একটি হ্যাক এন্ড শ্ল্যাশ একশন ভিডিও গেম নির্মাণ করেছে নিনজা থিওরি এবং প্রকাশ করেছে ক্যাপকম। গেমটি ডেভিল মে ক্রাই সিরিজের রিবুট এবং সিরিজের ৫ম গেম। ২০১০ সালে টোকিও গেম শোতে এনাউন্স করা হয় এবং মাইক্রোসফট উইন্ডোজ, প্লে-স্টেশন ৩ এবং এক্সবক্স ৩৬০ গেমস কনসোলের জন্য মুক্তি দেওয়া হয় জানুয়ারী, ২০১৩ সালে। গেমটি ডেভিল মে ক্রাই গেমস সিরিজে “অল্টারনেটিভ রিয়েলিটি” ভাবে সেট করা হয়েছে। গেমটিতে প্লেয়ার ক্যারেক্টার ডেনটের উপর ফোকাস দেওয়া হয়েছে বেশি, ডেন্টে একজন যুবক যার সুপারন্যাচরাল পাওয়ার রয়েছে। তার উপর বিভিন্ন আক্রমণ আসে লিমবো সিটি থেকে। লিমবো সিটি একটি সেন্সিয়েন্স টাউন যার জনসংখ্যা হলো ডিমন বা শয়তান কিংবা দৈত্যরা। সিরিজের রিবুট হিসেবে ক্যাপকম গেমটির মূল চরিত্র ডেন্টেকে ওয়েস্টার্ন লুক দিয়েছে সাজিয়েছে।

ডেভিল মে ক্রাই

 

নির্মাতা:

নিনজা থিওরি

প্রকাশক:

ক্যাপকম

সিরিজ:

ডেভিল মে ক্রাই

ইঞ্জিণ:

আনরিয়েল ইঞ্জিণ ৩

খেলা যাবে:

উইন্ডোজ, প্লে-স্টেশন ৩ এবং এক্সবক্স ৩৬০ গেমস কনসোলে।

মুক্তি পেয়েছে:

জানুয়ারী ১৫-২৫, ২০১৩

ধরণ:

একশন,

হ্যাক এন্ড শ্ল্যাশ

খেলার ধরণ:

সিঙ্গেল প্লেয়ার

ট্রেইলার ভিডিও:

www.youtube.com/watch?v=MRXVzKKGPO4

www.youtube.com/watch?v=BrgUYYaMZTw

সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টস:

কমপক্ষে:

কোর ২ ডুয়ো ২.৪ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

জিফোর্স ৮৮০০ জিটিএস অথবা রাডিয়ন এইচডি ৩৮৫০ মডেলের গ্রাফিক্স কার্ড।

২ গিগাবাইট র‌্যাম,

উইন্ডোজ এক্সপি ৩২ বিট,

৯ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

ডাইরেক্ট এক্স ৯ সাথে শেডার মডেল ৩.০

ভালো ভাবে খেলতে হলে:

কোর আই ৩ ২.৮ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

৪ গিগাবাইট র‌্যাম,

জিফোর্স জিটিএক্স ২৬০ অথবা রাডিয়ন এইচডি ৬৭৭০ মডেলের গ্রাফিক্স কার্ড।

উইন্ডোজ সেভেন ৬৪ বিট,

ডাইরেক্ট এক্স ১০ সাথে শেডার মডেল ৫.০

গেমটির কাহিনী সেট করা হয়েছে লিমবো সিটিতে। লিমবো একটি আধুনিক সিটি, যেটা নিয়ন্ত্রণ করছে সমস্ত-শক্তিশালী ডিমনসরা। ডিমনসরা একটি প্যারালার প্লেনে থাকে যার নাম “লিমবো”। ডেন্টে! একজন সুপারন্যাচরাল পাওয়ারওয়ালা যুবক। যার পিছে শয়তান রা সারাক্ষণ লেগেই থাকে। গেমটিতে তোমাকে বরাবরের মতোই ডেন্টের চরিত্রে খেলতে হবে।

একজন তরুণী “ক্যাট” নামের ডেন্টে কে বলে যে ডেন্টে বড় বিপদের মধ্যে রয়েছে। এরপর লিমবোতে ডেন্টেকে টেনে আনার পর তাকে নির্দেশনা দেয় ক্যাট। সেখান হতে ডেন্টেকে ব্যালিভুই পিয়ারস কার্নিভালে ভ্রমণ করে তারা দুজন। যেতে যেতে ক্যাট বলে যে সে “দ্যা অর্ডারের” একটি সদস্য। এটি একটি ভিজিল্যান্টি গ্রুপ তার লিডার ভার্জিল এবং এদের কাজ হলো দুনিয়া থেকে শয়তানদের তাড়িয়ে দেওয়া। পরে ভার্জিল ডেন্টে কে বলে যে ডেন্টের সাহায্য পেলে দ্যা অর্ডার শয়তানদের কে হারাতে পারবে। ডেন্টে জানতে পারে যে ভার্জিল এবং সে স্পারডা এবং ইভার পুত্র। ভার্জিল জানায় যে তাদের পিতা-মাতা দুজনই ডিমন এবং এঞ্জেল ছিলেন। ভার্জিল এবং ডেন্টে হলো নেপেলিম। তারা ডিমন কিং মুনডাস এর হত্যার ক্ষমতা রাখে। মুনডাস ডেন্টের পরিবারে হামলা করে এবং ইভারে খুন করে। এরপর স্পারডাকে ব্যানিসমেন্ট করে। স্পারডা ডেন্টে এবং ভার্জিলকে দুটি তরবারি দিয়ে সেফ জায়গা পাঠিয়ে দেয়। এগুলো জানার পর ডেন্টে ভার্জিলের সাথে যুদ্ধ করতে রাজী হয়।

ক্যাটের সাহায্য নিয়ে ডেন্টে মুনডাস এর অপারেশনগুলোতে হামলা চালাতে থাকে। ওদিকে ক্যাটকে সোয়াট সৈন্যরা ধরে নিয়ে যায় এবং এদিকে মুনডাসের ডিমন “লিলিথ”কে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে ডেন্টে লিলিথের বিনিময়ে ক্যাটকে ফেরত চায়। তবে লিলিথ মুনডাস এর চুল দ্বারা গর্ভবতী ছিল তাই ভার্জিল লিলিথ এবং তার বাচ্চাকে মেরে ফেলে। এরপর ক্যাটকে মুনডাস এর আস্তানা সিলভারট্র্যাক টাওয়ারে নিয়ে টরচার করতে থাকে। পরে অর্ডারের সদস্যদের নিয়ে ডেন্টে এবং ভার্জিল টাওয়ারে হামলা চালায় এবং মুনডাস এর উপর আক্রমণ করে। মুনডাস শেষ পযর্ন্ত পরাজিত হয়।

মুনডাসের মৃত্যুর পর ভার্জিল তার রুক্ষ আচরণ শুরু করে এবং এতে ডেন্টে ভার্জিলকে হত্যা করতে যায়। পথে ক্যাট ভার্জিলকে ছেড়ে দিতে মিনতি করলে ওদিকে ভার্জিল সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

গেমটির ডাউনলোডেবল কনটেন্ট “ভার্জিলস ডাউনফল” তে কাহিনী এগিয়ে যায় ভার্জিলের পালানোর পর থেকে। ভার্জিল নিচের প্রতিবিম্ব এবং ক্যাট ও ডেন্টের ইলূশনকে নিজের উন্ডস দ্বারা পরাজিত করে বাস্তব দুনিয়ায় ফিরে আসে এবং সে একটি ডিমনস আর্মির লিডার হয়ে যায়।

ডাউনলোড:

http://www.gloverzz.net/2013/01/dmc-devil-may-cry-5-pc.html

আমার লেখা গেমস জোন শুধুমাত্র ফেসবুকে আমার নিজস্ব এবং গেমস জোনের আসল পেজ http://www.facebook.com/games.zone.bd এই পেজটাতে আমি শেয়ার করে থাকি। বাকি কোনো পেজে আমার গেমস জোনের পোষ্ট শেয়ার করা হয় না। যদি করে থাকে তাহলে তারা আমার পারমিশন ছাড়াই এ কাজ টি করেছে। আপনারা যদি ফেসবুকে আমার গেমস জোনের পোষ্ট সমূহ অন্যান্য পেজে পেয়ে থাকেন তাহলে একটু কষ্ট করে আমাকে জানিয়ে দেবেন প্লিজ। বহু কষ্ট করে বহু সময় খরচ করে গেমস জোনের এক একটি পর্ব লিখি আমি।

গেমস জোন মুলত টিউনারপেজ (www.tunerpage.com) ব্লগে আমি নিয়মিত এবং প্রথম থেকে লেখা আরম্ভ করেছিলাম। সেখানে গেমস জোনের মোট পর্বের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১৭৪টি। আমি নিজে টিউনারপেজ, টেকটিউনস এবং বাংলা ফ্যামিলি ব্লগে গেমস জোন টিউন করে থাকি। আগে পিসি হেল্পলাইনে করতাম এখন করি না। তাই আপনারা যদি নিচের ৪ টি ব্লগের বাইরে অন্য কোনো ব্লগে আমার গেমস জোনের কপি দেখে থাকেন তাহলে দয়া করে কমেন্টে জানান অথবা ফেসবুকেও আমাকে জানাতে পারেন (fb.com/talented.fahad)

http://www.tunerpage.com

http://www.techtunes.com

http://www.banglafamily.com

http://www.pchelplinebd.com

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>><<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<

Level 10

আমি ফাহাদ হোসেন। Supreme Top Tuner, Techtunes, Dhaka। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 661 টি টিউন ও 428 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 121 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে!


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ভাই আমি এইটা শেষ করেসি।। সবার শেষে ভার্জিল কে তো মেরেছি।। এর পর কি আর কোন কিছু আছে… “”””” গেমটির ডাউনলোডেবল কনটেন্ট “ভার্জিলস ডাউনফল” তে কাহিনী এগিয়ে যায় ভার্জিলের পালানোর পর থেকে। ভার্জিল নিচের প্রতিবিম্ব এবং ক্যাট ও ডেন্টের ইলূশনকে নিজের উন্ডস দ্বারা পরাজিত করে বাস্তব দুনিয়ায় ফিরে আসে এবং সে একটি ডিমনস আর্মির লিডার হয়ে যায়।””””” ভাই আমি বুঝলাম না এই টুকু………।।

    এটা আলাদা কাহিনী, এটার জন্য তোমায় ভার্জিলস ডাউনফল এডড অনস টি ডাউনলোড করতে হবে, তবে যতদূর আমি জানি এটা শুধুমাত্র এক্সবক্স ৩৬০ আর প্লে-স্টেশন ৩ এর জন্য