যে ৫ টি কারণে Chat GPT ব্যবহার করে কনটেন্ট লেখা উচিত না

Level 6
শিক্ষার্থী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গাজীপুর

বর্তমানে অনলাইন ভিত্তিক অর্থনীতির একটি বৃহৎ সম্পদ কনটেন্ট। হতে পারে সেটা ভিডিও কনটেন্ট, অডিও কনটেন্ট, টেক্সট কনটেন্ট অথবা ইমেজ। তবে যে ধরনের কনটেন্টই তৈরি করা হোক না কেন, সবার প্রথমে দরকার একটি লিখিত কনটেন্ট বা টেক্সট কনটেন্ট। সেই লিখিত কনটেন্টকে পরবর্তীতে ভিডিও, অডিও বা ইমেজ কনটেন্টে রূপ দেয়া হয়। তাই অনলাইন মার্কেট প্লেসে কনটেন্ট রাইটার দের একটি শক্ত অবস্থান রয়েছে।

কিন্তু বর্তমানে কনটেন্ট রাইটারদের কাজ করিয়ে নেয়া হচ্ছে বহুল আলোচিত Chat GPT এর মাধ্যমে। অনেকেই এই ফ্রি সার্ভিস পেয়ে ভেবে নিয়েছে কনটেন্ট রাইটার দের কাছ থেকে পেইড কনটেন্ট না নিয়ে Chat GPT দিয়ে ফ্রি তে কনটেন্ট লিখিয়ে নিলেই তো হয়। কিন্তু এটা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যে Chat GPT একটি আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। তাই এটা কখনোই হুবহু মানুষের মতো আউটপুট দিতে পারবে না। তাই Chat GPT ব্যবহার করে কনটেন্ট লিখে তা ব্যবহার করে মার্কেটে টিকে থাকা একদমই কঠিন কাজ।

জেনে নিন ঠিক যে ৫ টি কারণে Chat GPT ব্যবহার করে কনটেন্ট লেখা উচিত না।

১. লেখায় যান্ত্রিকতা বেশি থাকে

লেখায় যান্ত্রিকতা বেশি থাকে

Chat GPT দিয়ে লেখা কনটেন্ট এর মধ্যে যান্ত্রিকতা অনেক বেশি মাত্রায় চোখে পড়ে। কোননা Chat GPT কোনো মানুষ নয় এবং মানুষের মতো কোনো বুদ্ধিমত্তা এর মধ্যে নেই। তাই যান্ত্রিক বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগিয়ে যতোটুকু সম্ভব সাজিয়ে গুছিয়ে একটি কনটেন্ট তুলে ধরার চেষ্টা করে Chat GPT। কিন্তু একটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা যতোই ভালোভাবে একটি কনটেন্ট প্রেজেন্ট করুক না কেন, যে কেউ লেখাটি পড়ার সাথে সাথে এর মধ্যে নিহিত যান্ত্রিকতা ধরে ফেলতে পারবে।

মানুষের ব্রেইন কে ফাকি দেয়া কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার পক্ষে সম্ভব না। তাই Chat GPT দিয়ে লিখলে যান্ত্রিকতা লেখার সৌন্দর্য নষ্ট করে ফেলবে। একটা হিউম্যান রিটেন লেখা আর Chat GPT দিয়ে লেখার মধ্যে অনেক তফাত রয়েছে। আর Chat GPT দিয়ে লেখা এসকল কৃত্রিম লেখা কখনোই দর্শকের কাছে জনপ্রিয়তা কুড়াতে সক্ষম নয়।

২. লেখার এক অংশের সাথে অন্য অংশের ধারাবাহিকতা থাকে না

লেখার ধারাবাহিকতা থাকে না

Chat GPT দিয়ে লেখা কনটেন্ট গুলো একটু ভালোভাবে খেয়াল করলে দেখা যাবে যে লেখার প্রথম অংশের সাথে মধ্যের অংশ ও শেষের অংশের কোনো ধারাবাহিকতা নেই। অর্থাৎ প্রথম প্যারায় যে টপিক নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে পরের প্যারায় একদমই খাপছাড়া ভাবে অন্য টপিকে চলে যাবে। এভাবে লেখার ধারাবাহিকতা হারিয়ে যায়। ফলে একটা চমৎকার কম্বিনেশন এর অভাবে লেখার কোয়ালিটি নষ্ট হয়।

অন্যদিকে হিউম্যান রিটেন কনটেন্ট গুলোর অসংখ্য প্যারা থাকলেও তা একটি চমৎকার ধারাবাহিকতার মধ্য দিয়ে আগায়। তাই লেখা পড়ার সময় খাপছাড়া মনে হয় না। তাই বলা যায় Chat GPT দিয়ে লেখা কনটেন্ট কখনোই হিউম্যান রিটেন কনটেন্ট এর সমতুল্য হতে পারে না।

৩. কনটেন্ট এর সকল তথ্য নির্ভুল হয় না

কনটেন্ট এর সকল তথ্য নির্ভুল হয় না

Chat GPT দিয়ে লেখা কনটেন্ট তথ্যবহুল হলেও তা সব সময় নির্ভুল হয় না। Chat GPT শতভাগ সঠিক তথ্য কখনোই তুলে ধরতে পারে না। কোনটা ঠিক আর কোনটা ভুল তা পুরোপুরি ভাবে যাচাই করার ক্ষমতা Chat GPT এর নেই। তাই যতোই আপনি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে কনটেন্ট লেখেন না কেন তা আবার পুনরায় আপনাকে সঠিক তথ্য দিয়ে সংশোধন করতে হবে।

অন্যদিকে হিউম্যান রিটেন কনটেন্ট এর প্রতিটি তথ্য একজন অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যক্তি যাচাই বাছাই করে তা লেখায় সংযুক্ত করে। তাই এই ধরনের কনটেন্ট এর তথ্য ভুল হওয়ার আশঙ্কা নেই বললেই চলে। আর আপনি যদি আপনার সাইটে ভুলভাল তথ্য পাবিলশ করতে থাকেন তাহলে তো সাইট অল্প দিনের মধ্যেই ডাউন হয়ে যাবে৷ তাই Chat GPT দিয়ে কনটেন্ট তৈরি করে নিজের সাইটে পাবলিশ করা একদমই উচিত হবে না।

৪. লেখায় কোনো মাধুর্যতা থাকে না

লেখায় কোনো মাধুর্যতা থাকে না 

Chat GPT দিয়ে লেখা কনটেন্ট গুলো অনেকটা কাঠখোট্টা টাইপের হয়ে থাকে। কোন শব্দের সাথে কোন শব্দ বসিয়ে বাক্য সাজালে তা পাঠকের মস্তিষ্কে প্রভাব ফেলবে এটা Chat GPT বুঝতে পারে না। সে তার নিজের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা খাঁটিয়ে যতোটুকু সম্ভব লিখে দেয়। কিন্তু লেখার সৌন্দর্য নিয়ে কখনোই চিন্তা ভাবনা করে না। সুতরাং এভাবে লেখা কনটেন্টে মাধুর্যতা থাকবে এটা আশা করাও যাবে না।

একদম সাদামাটা প্রকৃতির কনটেন্ট চাইলে আপনি Chat GPT এর সাহায্য নিয়ে লিখতে পারেন। কিন্তু পাঠক হৃদয় ছুঁতে চাইলে অবশ্যই হিউম্যান রিটেন কনটেন্ট এর ওপরেই সবথেকে বেশি গুরুত্ব দেয়া উচিত। কেননা একজন প্রফেশনাল রাইটার শব্দ চয়নে তুলনামূলক বেশি সচেতন থাকে। তাই তার লেখার মধ্যে পর্যাপ্ত মাধুর্যতা ফুটে ওঠে।

৫. পাঠক বা দর্শকের মাইন্ড রিডিং করে লেখা হয় না

পাঠক বা দর্শকের মাইন্ড রিডিং করে লেখা হয় না

একটি কনটেন্ট তৈরি করা হয় পাঠক বা দর্শকের জন্য। তারা কী চায়, কীভাবে চায় এটা আগে ভালোভাবে বুঝে তারপর কনটেন্ট তৈরি করতে হয়। সর্বোপরি নিজেকে দর্শকের স্থানে বসিয়ে তারপর একটি কনটেন্ট তৈরি করতে হবে। তাহলেই একটি কনটেন্ট জনপ্রিয়তা পাবে এবং ধীরে ধীরে সাইটের রিচ বাড়বে। আর তখনই লেখার মূল উদ্যেশ্য হাসিল হবে।

Chat GPT কখনোই নির্দিষ্ট দর্শকের মাইন্ড রিডিং করতে পারে না। দর্শক কী চায় সেটা Chat GPT বুঝতে পারে না। তাই দর্শকের চাহিদা অনুযায়ী একটা পূর্নাঙ্গ লেখা আউটপুট হওয়া সম্ভব না। যেহেতু Chat GPT দর্শকের মাইন্ড রিডিং করে লিখতে সক্ষম না তাই এটা কখনোই হিউম্যান রিটেন কনটেন্ট এর মতো জনপ্রিয়তা পাবে না।

শেষকথা

আশাকরি ইতোমধ্যে Chat GPT দিয়ে লেখা কনটেন্ট এর প্রতিবন্ধকতা গুলো ধরতে পেরেছেন। তাই নিজের ওয়েবসাইটের আর্টিকেল বা ভিডিও কনটেন্ট এর স্ক্রিপ্ট লেখার জন্য Chat GPT ব্যবহার না করে হিউম্যান রিটেন কনটেন্ট ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। কেননা ভালো আউটপুট পেতে হলে প্রথমে আপনাকে অবশ্যই ভালো ইনপুট দিতে হবে। আর আপনি যদি একজন কনটেন্ট রাইটার হয়ে থাকেন তাহলে নিজের লেখার মান সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যেতে চাইলে অবশ্যই সরাসরি Chat GPT এর ওপর নির্ভরশীলতা কাটিয়ে উঠুন। ধন্যবাদ।

Level 6

আমি শারমিন আক্তার। শিক্ষার্থী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গাজীপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 মাস 3 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 98 টি টিউন ও 29 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 6 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস