ডিজিটাল বাংলাদেশ বনাম বিটকয়েনের ভবিষ্যৎ

ডিজিটাল শব্দটা অনেক সহজেই এদেশে ব্যবহার করা হয়। তবে এটার ব্যবহার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই থিওরিটিক্যাল, বাস্তবিক ভাবে এটি উপেক্ষিত। যদিও আমরা ভেবে থাকি, শুধুমাত্র স্যোশাল মিডিয়ার ব্যবহার, ভিডিও কলিং সুবিধাই ডিজিটালাইজেশন। এটাও ঠিক এটি আমজনতার জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, তবে প্রফেশনাল ক্ষেত্রে এখনো অনেক লিগেসি রয়েছে।

আমি লিখতে এসেছিলাম বিটকয়েন নিয়ে, এই ডিজিটাল কয়েনের পরিচয় নতুন করে দিতে চাই না। যেখানে মানি লন্ডারিংয়ের অজুহাত দেখিয়ে পেপাল সেবাকে বাংলাদেশ থেকে দূরে রাখা হয়েছে, সেখানে বহুল প্রচলিত সহজলভ্য বিটকয়েনে আদান প্রদান তো আরো সহজ। কালো টাকা পাচার কি বন্ধ হয়ে গেছে! মোটেও না, তবুও এর ভুক্তভোগী ফ্রিল্যান্সাররা।

 

এখনো অনেক ফ্রিল্যান্সার সঠিক সময়ে পেমেন্ট নিতে পারেন না, পেপাল বা অন্য পেমেন্ট প্রসেসর এর অভাবে। হাজার হাজার কোটি টাকাকে ডলারে রুপান্তর করে বাহিরে ঠিকই পাচার হয়ে যাচ্ছে, কিন্তু একজন পরিশ্রমী ফ্রিল্যান্সার তার ন্যায্য কাজের পেমেন্ট দেশে আনতে হিমসিম খান।

 

শুরুটা ভিন্ন টপিকে করলাম কারণ, বাধাই আমাদের উন্নতির কাল। বিশ্বের অন্যতম সেরা ধনী এলোন মাস্ক এর প্রতিষ্ঠান টেশলাবিটকয়েনকে এসেট হিসেবে ব্যবহার করেন, এল সালভাদর নামক দেশটি তাদের অফিশিয়াল কারেন্সি হিসেবে বিটকয়েন এর ব্যবহার শুরু করেছে। শুধু এই নয়, পাশের দেশ ভারত বিটকয়েনকে এসেট হিসেবে নিতে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে এবং পাকিস্তানও একই পথে চলছে।

 

শুধুমাত্র বাংলাদেশ এসব নিয়ে মাথা ঘামাই না, এটা শুধু বিটকয়েন নয় বরং অন্যান্য পেমেন্ট প্রসেসর এর ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। অনেকেই বলবেন যে, পাইওনিয়ার আছে! কিন্তু পাইওনিয়ার ইউজারদের সাথে ফ্রেন্ডলি নয়, সামান্য সমস্যাতেই ঝামেলা করে।

আপনি যায় ভাবেন, ভবিষ্যৎ বিশ্ব কোনো বিশেষ দেশের টাকার উপর নির্ভর করবে না। উন্মুক্ত ক্রিপ্টোকারেন্সিই নিয়ন্ত্রণ করবে ইকোনমিক ভারসাম্য। বিটকয়েন শুধুমাত্র পেমেন্ট আদান প্রদানের মাধ্যম নয়, এটি একটি সম্পদ। এমন একটি সম্পদ, যা আপনার মূলধনকে কয়েক বছরে কয়েকগুন করে দিতে পারে। কিন্তু বাংলাদেশে এটি অবৈধ, তাই আপনি এটি আইনগতভাবে ক্রয় করে হোল্ড করতে পারবেন না। এমনকি কেউ পেমেন্ট করলেও বৈধভাবে এটি গ্রহণ করতে পারবেন না। ডিজিটাল নামের জিকির চলে কিন্তু গ্লোবাল ডিজিটালাইজেশন সুবিধা কি আদৌ আমরা পেয়েছি।

আশাকরি, একদিন বাংলাদেশ থেকে সকল গ্লোবাল সেবা বৈধভাবে ব্যবহার করা যাবে। পেপাল, ক্রিপ্টোকারেন্সি সব অফিশিয়ালি বৈধ হবে বাংলাদেশে। উন্নয়ন এর আকাশে উড়তে হলে এগুলোর অবশ্যই প্রয়োজন।

Level 1

আমি এম এ মিলন। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 9 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

এম আবির মিলন ::- প্রফেশনাল ব্লগার, কন্টেন্ট রাইটার, ডিজিটাল মার্কেটার এবং মোবাইল অ্যাপস ডেভেলপার।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস