অনলাইনে ছবি বিক্রি করে টাকা আয় ২০২১

টিউন বিভাগ ফ্রিল্যান্সিং
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

আমরা প্রতিনিয়ত অনলাইনে টাকা আয় করার নানা ধরনের সহজ উপায় খুঁজে  থাকি। বর্তমানে ফটোগ্রাফারদের ফটোগ্রাফি করে অনলাইনে  করার  নানা সুযোগ রয়েছে। ফটোগ্রাফির যে কাজটি আপনি সখের বা আনন্দের বশে করছেন, আপনি চাইলে আপনার এই সব পূরণ করার পাশাপাশি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে কাজে লাগিয়ে ছবি বিক্রি করে মোটামুটি ভালো অংকের টাকা ইনকাম করে নিতে পারেন। এখানে  সবচেয়ে মজার ব্যাপারটি  হচ্ছে ফটোগ্রাফি করে আয় করার জন্য  খুব বেশি একটা দক্ষতার প্রয়োজন হয় না। যদি আপনার  কাছে একটি  মোটামুটি মানের DSLR অথবা  ভালো একটি ক্যামেরা ফোন থাকে এবং টুকটাক  ফটো এডিটিং এর কাজ করতে পারেন। তাহলে এই  সামান্য দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসকে কাজে লাগিয়ে ছবিগুলো বিক্রি করতে পারবেন।

আসলে ফটোগ্রাফি হল দারুন একটি শখের কাজ। আমাদের মধ্যে প্রায় সকলেই দৈনন্দিন জীবনে আমাদের পছন্দের তোলা ছবিগুলো ফেসবুক সহ নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে থাকে। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করলে সেখান থেকে আমাদের  সাময়িক আনন্দ ছাড়া আর কোন লাভ বা বেনিফিট পাওয়া যায় না। অথচ আপনার কাছে যদি একটি ডিএসএলআর অথবা  মোটামুটি ভালো মানের একটি ক্যামেরা কম থাকে  তাহলে সেটিকে কাজে লাগিয়ে মোটামুটি ধরনের  আকর্ষণীয় ছবি তুলে সে গুলোকে অনলাইনে বিক্রি করে  টাকা আয় করতে পারেন। হতে পারে সেটি প্রাকৃতিক দৃশ্য, অথবা পাখির দৃশ্য, অথবা ব্যবসায়িক যেকোনো একটি ছবি।

মূলত আজকের এই টপিকে আমরা ফটোগ্রাফির মাধ্যমে  কিভাবে অনলাইনে টাকা আয় করা যায় এই বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।  আর আপনি যদি ছবি তুলতে ভালোবাসেন অথবা একজন ফটোগ্রাফার হয়ে থাকে যেন, তাহলে আপনি কোন কোন ধরনের ছবি তুলে আয় করতে পারবেন, কোন্ কোন্ জায়গা বা মার্কেটপ্লেসের মধ্যে আপনার তোলা ছবি বিক্রি করতে পারবেন। আপনি যদি ছবি বিক্রি করে আয়  করতে চান  তাহলে আপনাকে এর জন্য কি কি করতে হবে এবং ছবি বিক্রি করার মাধ্যমে আপনি কত টাকা আয় করতে পারবেন, ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করব।

কিভাবে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করবেন?

ছবি-বিক্রি-করে-আয়
ছবি বিক্রি করে আয়

যদি আপনি অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয়  করতে চান তাহলে আপনাকে অন্যান্য মার্কেটপ্লেসের মত বায়ার খুঁজতে হবে না।  আপনি যদি ভাল মানের ছবি তুলতে পারেন  অথবা আপনার কাছে যদি মোটামুটি ভালোমানের ছবি  থেকে থাকে তাহলে সেই ছবিগুলোকে ঘরে বসে অনলাইনের বিভিন্ন ছবি শেয়ারিং মার্কেটপ্লেস বা স্টক ইমেজ সাইটগুলোতে আপলোড করার মাধ্যমে ছবি বিক্রি করে দিতে পারেন মুহূর্তের মধ্যেই।

এ ক্ষেত্রে সবার আগে আপনাকে অবশ্যই নিচে শেয়ারকৃত আপনার পছন্দের যে কোন একটি বা দুটি স্টক ইমেজ মার্কেটপ্লেস এর মধ্যে ফ্রি একাউন্ট তৈরি করে সেখানে আপনার ইচ্ছামত পছন্দের বা ভালোমানের কয়েকটি ছবি আপলোড করে দিতে হবে। সর্বপ্রথম ছবি আপলোড করার পর আপনি যেই ওয়েবসাইটের মধ্যে ছবিগুলো আপলোড করবেন  সেই ওয়েবসাইট  কর্তৃপক্ষ আপনার ছবিগুলোর কোয়ালিটি, পিক্সেল ও আনুষাঙ্গিক বিষয় যাচাই করার পর তাদের কাছে ভালো মনে হলে, তারা আপনার প্রোফাইল অনুমোদন করবে। যখন আপনার প্রোফাইলটি অনুমোদন হয়ে যাবে তারপর থেকে আপনি আপনার একাউন্টে ছবি আপলোড করে আয় করা করার প্রথম ধাপ শুরু করতে পারবেন।

এখানে একটি কথা বলে রাখি ছবি আপলোড করার সাথে সাথেই মানুষজন আপনার ছবি দেখতে বা কিনতে পারবে না। কারণ আপনি যখন একটি ছবি আপলোড করবেন তখন সেই ছবিটি আপলোডের পর প্রথমে স্টাক ইমেজ সাইট হতে আপনার আপলোড করা প্রতিটি ছবিকে যাচাই বাছাই করা হবে। যাচাই করার পর যদি তাদের কাছে ছবিগুলো আপলোডের জন্য  সঠিক মনে হয় মার্কেট পেজটিতে আপনার ছবিটি দৃশ্যমান হবে। অনুমোদন বা দৃশ্যমান হওয়ার পর আপনার ছবি সকলেই দেখতে পারবে এবং কারো পছন্দ হলে আপনার আপলোড করা ছবিটি ক্রয় করে নিবে।  আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে যে কয়টা ছবি বিক্রি হবে সেই ছবির উপর ভিত্তি করে মার্কেটপ্লেস কিছু টাকা লাগবে এবং বেশীর ভাগ আপনার একাউন্টে দেওয়া হবে। এভাবে মূলত অনলাইনে ছবি বিক্রি করে আয় করা হয়। এ বিষয়ে নিচে আমরা আরো বিস্তারিত আলোচনা করব।

কোন ধরনের ছবি তুলবেন?

কিছু ক্যাটাগরির ছবি মার্কেটপ্লেসে অনেক ডিমান্ড রয়েছে যেগুলো ফটোগ্রাফি মাধ্যমে অনলাইনে আয় করার জন্য অন্যতম হিসেবে বিবেচনা করা হয়। সকল ধরনের কাটা ঘুড়ির ছবি না তুলে আপনাকে নির্দিষ্ট ক্যাটাগরির ছবি নিয়ে কাজ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে নিচের ক্যাটাগরির ছবি নিয়ে ফটোগ্রাফি করতে পারেন।

১। এবস্ট্রাক্ট

এটি এক রকমের ক্লোজ ফটোগ্রাফি। সাধারণত নানা ধরনের খুব ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বা ছোট ছোট বিষয়ের উপরে এধরনের ফটোগ্রাফাররা কাজ করে থাকেন। যেমন- নিচের পাতাটি দেখুন। এই চিত্রের পাতার মধ্যে থাকা শিরা উপশিরা পর্যন্ত দেখা যাচ্ছে। তবে এই ধরনের ছবি তোলার জন্য খুব ভালোমানের ডিএসএলআর এর প্রয়োজন হবে যা দিয়ে জুম করে এ ধরনের ছবি তুলতে হয়।

২। আর্ট - চিত্রাঙ্কন

নানা ধরনের জাদুঘরে গেলে অনেক  রকমের সুন্দর সুন্দর হাতে  অংকন করা ফটো দেখতে পাওয়া যায়।  আর এই সকল হাতে আর্ট করা ছবিগুলো অনেক অ্যাট্রাক্টিভ বা মনমুগ্ধকর হয়।  এই ধরনের ছবিগুলো মানুষের মানুষের মনে জায়গা করে নেয়। আর আপনি  এ সমস্ত নানা রকমের আর্ট করা ছবিগুলো আপনার ক্যামেরার ফ্রেমে বন্দি করে কাজটি খুব সহজেই করতে পারেন।

৩। ফ্যাশন

ফটোগ্রাফির মধ্যে ফ্যাশন বিষয়টি খুবই জনপ্রিয় একটি ক্যাটাগরি। অনলাাইন বলেন অথবা অফলাইন উভয় দিকেই এ ধরনের  ফটোগ্রাফারদের অনেক বেশি ডিমান্ড রয়েছে। বিভিন্ন নামিদামি মডেল ও অভিনয় শিল্পিদের ছবি তুলে সেগুলো অনলাইনে সাবমিট করতে পারেন। তাছাড়া বিভিন্ন ফ্যাশন ডিজাইনের উপরে ফটোগ্রাফার হয়েও বিভিন্ন কোম্পানির কাছ থেকে টাকা আয়  করে নিতে পারেন।

৪। নেচার বা প্রকৃতি

প্রকৃতির প্রতি আমাদের সকলেরই আলাদা একটা টান রয়েছে। আমরা সকলেই প্রাকৃতিক ছবি দেখতে অনেক পছন্দ করি। আর হরহামেশাই  প্রাকৃতিক ছবি আমরা  গুগল সহ নানা সার্চ ইঞ্জিনে  খুঁজে থাকি। নেচার বা প্রকৃতির ছবিগুলো অনলাইনে অনেক ভালো পরিমাণে বিক্রি হয়ে থাকে। বিশেষকরে আমাদের বাংলাদেশ চিরসবুজের একটি দেশ। আর সবুজের প্রাকৃতিক দৃশ্য মানুষজন খুব বেশি পরিমাণে পছন্দ করে থাকেন। এক্ষেত্রে যারা  প্রকৃতির উপরে  ফটোগ্রাফি করে থাকেন তারা খুব সহজেই এ ধরনের ছবি তুলতে পারেন। এই ধরনের ছবি পেতে ফটোগ্রাফারদের  খুব একটা কষ্ট করতে হয়না। কারণ এগুলো হাতের কাছেই রয়েছে এবং  এগুলোর চাহিদা ও ডিমান্ড অনেক বেশি।

৫। ট্রাভেল বা ভ্রমন

আপনাদের মধ্যে যারা ভ্রমন প্রিয়  লোক রয়েছেন তারা এই কাজটি  একদম সহজেই করতে পারবেন।  আপনার ভ্রমণকৃত দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা ক্যামেরার মধ্যে বন্দি করে রাখতে পারেন। তবে এ ক্ষেত্রে  ঐতিহাসিক বা দর্শণীয় স্থানের  ছবিগুলো  মোটামুটি ভালো ভাবে তুলতে পারলে অনলাইনে সহজে বিক্রি করা যায়।

উপরের পাঁচটি ক্যাটাগরি ছাড়াও আরো কিছু জনপ্রিয় ক্যাটাগরি রয়েছে। যে ক্যাটাগরি গুলো নিয়ে কাজ করলে ছবি বিক্রি করে টাকা আয় অনেকটা সহজ এবং লাভজনক হয়ে উঠবে। সেই  ক্যাটাগরি গুলোর মধ্যে অন্যতম হলো- ফুড, ব্যবসা, লাইফস্টাইল, ভালোবাসা, বিনোদন ইত্যাদি। এই বিষয়গুলোর ওপরও মানুষের অনেক চাহিদা রয়েছে। এছাড়াও আপনি চাইলে ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ওয়েবসাইটটিতে লেখালেখি করে আয় করার পাশাপাশি আপনার পছন্দের ছবিগুলো আপলোড করার মাধ্যমে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। এ সম্পর্কিত বাংলা আর্টিকেল লিখে আয় করা যায় কিভাবে আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

অনলাইনে কারা ছবি কিনে?

এতক্ষণ আমি আপনাদের সামনে বিভিন্ন ধরনের ছবি নিয়ে আলাপ- আলোচনা করলাম। কিন্তু আপনার মনে হয়তো একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে যে, আমার আপলোড করা ছবিগুলো কিনবে কারা। গুগল এর মধ্যেই তো অসংখ্য ছবি পাওয়া যাচ্ছে, তাহলে মানুষ এগুলো ব্যবহার না করে আমার ছবি কেন কিনতে আসবে?

মূলত উন্নতমানের যতসব কোম্পানি ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো  রয়েছে তারা কখনো অন্যের ছবি  নিজের কাজের জন্য ব্যবহার করেন না। তারা প্রতিনিয়ত ইউনিক কিছু খুঁজে থাকে।  তারা যদি অন্যের কোনো একটি জিনিস ব্যবহার করে তাহলে তাদের ব্যবসার মূল্য কমে যায়।  তাছাড়া নিজের  ব্র্যান্ডিং প্রচারের ক্ষেত্রে অনেক সমস্যা পোহাতে হয়। এই কারণেই যতসব উন্নতমানের কোম্পানি রয়েছে তারা অনলাইন মার্কেটপ্লেস হতে ভালোমানের ইউনিক ছবিগুলো ক্রয় করার মাধ্যমে  নিজের কাছে ব্যবহার করে থাকেন।

এছাড়াও উন্নত মানের দেশগুলোতে আমাদের বাংলাদেশের মতো কপিরাইট ছবি ইউজ করতে পারে না তাদেরকে সবসময়ই ইউনিক ছবি ব্যবহার করতে হয়। যার প্রধান কারণ হচ্ছে আইন ব্যবস্থা। উন্নত দেশগুলোর আইন ব্যবস্থা খুবই কঠোর।  শুধুমাত্র একটি সামান্য কবে এর ছবির কারণে গুনতে হতে পারে জরিমানা। তাই আমরা যেভাবে গুগল হতে ছবি ব্যবহার করতে পারি উন্নত  দেশগুলোতে এভাবে ব্যবহার করা যায় না।  কারণ ছবিটির আসল মালিক যদি তার আইনের কাছে বিরুদ্ধে কমপ্লেন করে তাহলে তাকে জরিমানা গুনতে হবে। আর এই কারণেই মূলত উন্নত দেশের মানুষ সরাসরি গুগল থেকে ছবি ব্যবহার না করে কিনে ব্যবহার করে।

অনলাাইনে ছবি বিক্রি করে কত টাকা আয় করা যায়?

আপনার তোলা ছবিটি বিক্রি করে কমিশন ভিত্তিক টাকা আয় করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি আপনার প্রতিটি ছবিই যে দামে বিক্রি করবেন বা বিক্রি হবে তার সম্পূর্ণ টাকা আপনি পাবেন না। আপনি যে ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করে আপনার ছবি বিক্রি করবেন সেই ওয়েবসাইট হতে 50 থেকে 60 ভাগ টাকা রেখে দেবে এবং  অবশিষ্ট টাকা থাকবে সেগুলো আপনার একাউন্টে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

আসলে বিভিন্ন সাবস্ক্রিপশন প্যাকেজের মাধ্যমে প্রত্যেকটি ওয়েবসাইট ছবি সেল করে থাকে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের প্যাকেজ রয়েছে দৈনিক সাপ্তাহিক বা মাসিক এই ব্যক্তিদের প্যাকেজ করা হয়।  বিভিন্ন প্যাকেজ এর উপর ভিত্তি করে যিনি ছবিটি আপলোড করেছেন তাকে 20 শতাংশ থেকে 70 শতাংশ পর্যন্ত কমিশন দেওয়া হয়। তবে একজন বিক্রেতা যদি শুধুমাত্র একটি ক্যাটাগরি নিয়ে কাজ করেন অথবা শুধুমাত্র একই রকমের ছবি গুলো সেল করেন, তাহলে বেশি সম্মানী পেতে পারেন। আবার অন্যদিকে একজন বিক্রেতা যদি একটি নির্দিষ্ট ছবি বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বিক্রি করেন, তাহলে সম্মানীর হার অনেকাংশে কমে যেতে পারে। সম্মানীর পরিমাণ কম হলেও বিক্রেতার ছবি যদি অনেক বেশি পরিমাণে বিক্রি হয় তাহলে কোনো নির্দিষ্ট মার্কেটপ্লেস থেকে বেশি আয় করা সম্ভব।

এখানে আরেকটি মজার ব্যাপার হচ্ছে যে আপনি একটি ছবি শুধুমাত্র একবার নয় বার বার বিক্রি করতে পারবে না। আর একটি ছবি থেকেই বারবার কমিশন পেতে থাকবেন। আপনার  আপলোড করা কোনো  একটি পিকচার 100 বার বিক্রি হলে, আপনাকে প্রত্যেকটি বিক্রির জন্য আলাদা আলাদা হিসাব করে আপনার একাউন্টে টাকা দেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে আপনার বিকৃত ছবিটির প্রাইস যদি হয় 5 ডলার  আর ছবিটি যদি 100 বার সেল বা বিক্রি হয় ছ, তাহলে আপনাকে30% করে দেওয়া হলে আপনি 5×30% × 100= 150 ডলার আয় করতে পারবেন। যদি এটিকে বাংলা টাকায় কনভার্ট করি তাহলে 12000 টাকার ওপরে আসে। এভাবে আপনার প্রোফাইলে যদি ভালো মানের অনেকগুলো ছবি থাকে এবং সেই ছবিগুলো যদি বিক্রি হয় তাহলে আপনি মাসে অনেক টাকা ফটোগ্রাফি করে আয় করতে পারবেন।

ছবি কোথায় বিক্রি করবেন?

অনেকের মনে  হয়তো আরেকটি  প্রশ্ন অনেকক্ষণ ধরে বয়ে যাচ্ছে যে, ছবি বিক্রি করে অনলাইনে আয় করার কথা সব কিছুই বলা হয়েছে কিন্তু এই ছবিগুলো কোথায় বিক্রি করব?  এই উত্তরটি এখন আপনারা জানতে পারবেন।

ছবি বিক্রি করে  অনলাইন থেকে আয় করার জন্য নানা ধরনের ওয়েবসাইট রয়েছে। তবে সকল জনপ্রিয় এবং বিশ্বাসযোগ্য নয়। তাই আপনাদের সাথে সবচেয়ে সেরা এবং জনপ্রিয় বিশ্বাসযোগ্য 5 টি সাইট তুলে ধরব। এই সাইটগুলোতে আপনি ছবি আপলোড করে আয় করতে পারবেন। আর এগুলোর মাসিক ভিজিটর সংখ্যা অনেক বেশি। যার ফলে আপনার ছবি বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা  রয়েছে অনেক।

  • সাটারস্টক - Shutterstock.Com
  • ফটোলিয়া - Fotolia.Com
  • আইস্টক ফটো - iStockPhoto.Com
  • এলামাই- alamy.com
  • গেটি ইমেইজ - GettyImages.Com

আজকের টপিক এর শেষ কথা

উপরের মার্কেটপ্লেসগুলোতে আপনি ছবি বিক্রি করে অনলাইন হতে আয় করতে পারবেন খুব সহজেই। কিন্তু আপনাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যারা অনলাইনে গেম খেলে আয় করতে চান। আবার অনেকেই রয়েছেন আর অনলাইনে আয় করে বিকাশে পেমেন্ট নিতে চান। তারা চাইলেই আর্টিকেলগুলো পড়ে আসতে পারেন।

posted By : Earn Money BD

Level 0

আমি রিয়াজুল ইসলাম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 7 টি টিউন ও 3 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 7 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 3 টিউনারকে ফলো করি।

visit: bdonlinetips.com for make money onoine


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস