আপনার উপর ফেসবুকের ২৪ ঘণ্টা নজরদারি বন্ধ করুন

Level 4
Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর

আসসালামু আলাইকুম। টেকটিউনস এর নতুন আরো একটি টিউনে আপনাকে স্বাগতম। আমি স্বপন আছি আপনাদের সাথে, আশাকরি সকলেই অনেক ভালো আছেন। বন্ধুরা বর্তমান সময়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া মাধ্যম হলো ফেসবুক। আপনি চাইলে মুহূর্তের মধ্য ফেসবুকের মাধ্যমে দেশের একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তের মানুষের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে খুব সহজেই ফেসবুকের মাধ্যমে দেশের একপ্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তের খবর পেতে পারে। বন্ধু আপনি কি জানেন জনপ্রিয় এই সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক আপনাকে সারাক্ষণ বা দিনের ২৪ ঘণ্টাই নজরদারি বা ট্রাকিং করে? হয়ত জানেন না! তো চলুন এই সম্পর্কে একটু বিস্তারিত জেনে নেই। আর কীভাবে ফেসবুকের এই ট্রাকিং বা নজরদারি করা বন্ধ করবেন এই বিষয়েও আমরা টিউনের শেষে দেখে নিবো।

ফেসবুক একটি সামাজিক যোগাযোগ ও মাধ্যমিক নেটওয়ার্ক সাইট যা ব্যবহারকারীদের একে অন্যের সাথে সংলাপে সহজ মাধ্যম হিসাবে যুক্ত করে দেয়। ফেসবুক তাদের নিয়মিত কিংবা অনিয়মিত ব্যবহারকারীদের উপর নজরদারি করতে পারে এবং তারা এই নজরদারি বিভিন্ন উদ্দেশ্যে করতে পারে, যেমন বিজ্ঞাপণ, পছন্দের আর বর্তমান সময়ের প্রয়োজনীয় বিজ্ঞাপনগুলো সুন্দরভাবে প্রদর্শন করা, ব্যবহারকারীদের সাথে সীমাবদ্ধতা পরিচালনা করার জন্য ফেসবুক তাদের ইউজারদের উপর সার্বক্ষণিক নজরদারি করতে পারে।

ফেসবুক তাদের ব্যবহারকারীদের ট্র্যাক করতে একটি উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে, যা পরিচালিত হয় ফেসবুক নিজস্ব প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে। এই প্রযুক্তি দ্বারা ফেসবুক তাদের ইউজারের থেকে নিয়মিত তথ্য সংগ্রহ করে, যা ব্যবহার করে ফেসবুক তাদের ব্যবহারকারীদের পছন্দ, আঞ্চলিক তথ্য, সাধারণ ব্যবহার, প্যাটার্ন, আসক্ত ইত্যাদি জিনিসগুলোর উপর তথ্য সংগ্রহ করে। তারপর ফেসবুক ব্যবহারকারীর এই তথ্যগুলি ব্যবহার করে বিজ্ঞাপণ প্রচার করে এবং ব্যবহারকারীদের পছন্দের বিষয়ে বিজ্ঞাপণ গুলো তাদের ফ্রন্ট পেজে তুলে ধরে। এছাড়াও, ফেসবুক তাদের ব্যবহারকারীর এই তথ্যগুলি ব্যবহার করে ব্যবহারকারীদের সাথে চাকরির খবর, আত্মীয়তার সম্পর্ক, পছন্দের গান, ছবি, ভিডিও অন্যান্য বিজ্ঞাপণ প্রচারের জন্য ব্যবহার করতে পারে।

তবে ফেসবুকের এই তথ্যগুলো সংগ্রহের জন্য ব্যবহারকারীর কিছু ঝামেলা হতে পারে। তো চলুন জেনে নেই কীভাবে ঝামেলা হতে পারে৷ ফেসবুক তাদের ব্যবহারকারীর এই তথ্যগুলি সংরক্ষণ করে তাদের অনুমোদিত বিজ্ঞাপণ পার্টনারদের সাথে শেয়ার করতে পারে যাতে তারা আরো অনেক ভালোভাবে আপনার কাছে বিজ্ঞাপণ প্রদর্শন করতে পারে। এক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর কিছু ডেটা পাবলিশ হয়ে যায় যেমন ব্যবহারকারীর আইপি ঠিকানা, ব্রাউজার তথ্য, ডিভাইস তথ্য ইত্যাদি।

তবে ফেসবুকের এই ২৪ ঘণ্টা নজরদারি করার জন্য বা ইউজারের ডেটা সংগ্রহ করার জন্য ফেসবুক একটি নিরাপত্তা নীতি বজায় রাখে। যাতে ব্যবহারকারীদের তথ্য তাদের কাছে সুরক্ষিত থাকে। যদিও ফেসবুক তাদের সকল ব্যবহারকারীদের উপর নজরদারি করতে পারে, কিন্তু ফেসবুক তাদের প্রত্যেকটি ব্যবহারকারীদের প্রাইভেসি নিয়ে নিজের নীতিমালার সাথে পালন করার চেষ্টা করে।

তবে ব্যবহারকারীরা সেটিংস পরিবর্তন করার মাধ্যমে ফেসবুকের এই ২৪ ঘণ্টা নজরদারি বন্ধ করতে পারেন। যাতে ইউজারদের তথ্য, ডেটা এবং গোপনীয়তা নিজেদের কাছে নিয়ন্ত্রণ থাকে। তো চলুন দেখে নেওয়া যাক কীভাবে আপনি সেটিং পরিবর্তন এর মাধ্যমে ফেসবুকের নজরদারি করা বন্ধ করবেন।

১. কাজটি করার জন্য আপনারা ফেসবুকের অফিসিয়াল অ্যাপটিতে আপনাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগ-ইন করে নিবেন। তারপর আপনারা ডান কোণের একদম উপরে থ্রি-ডট মেনুবারে ক্লিক করবেন।

২. এবার আপনারা Setting অপশনে ক্লিক করুন।

৩. তারপর আপনারা স্ক্রোল করে একটু নিচে আসবেন। একটু নিচে আসার পর Off-FaceBook Activity অপশনে ক্লিক করবেন।

৪. এবার আপনারা Continue অপশনে ক্লিক করবেন।

৫. তারপর আপনারা আপনাদের Recent Activity দেখতে পারবেন। আজকে সারাদিনে আপনি অনালাইনে কোথায় কি করেছেন তার সম্পূর্ণ একটি হিস্টোরি দেখতে পারবেন।

৬. এবার আপনারা Clear Recent Activity অপশনে ক্লিক করে আপনাদের বর্তমান Activity গুলো ডিলেট করে দিবেন। এর জন্য Clear Recent Activity অপশনে ক্লিক করবেন।

৭. তারপর আপনারা Clear অপশনে ক্লিক করবেন।

৮. এবার আপনারা Clear Previous Activity অপশনে ক্লিক করবেন।

৯. তারপর আপনারা Manage Future Activity অপশনে ক্লিক করবেন।

১০. এবার আপনারা Disconnect Future Activity অপশনে ক্লিক করে Continue অপশনে ক্লিক করুন।

শেষ কথা

আপনি যদি নিয়মিত ফেসবুক ব্যবহার করে থাকেন তাহলে আমি মনে করি এই সেটিং আপনার করে রাখা উচিত। এতে ফেসবুক আপনার অ্যাকাউন্টে বিশেষভাবে নজরদারি করতে পারবে না। সহজভাবে বললে ফেসবুকে আসা বিরক্তিকর এডসগুলো আসা প্রায় বন্ধ হয়ে যাবে। তবে আপনি যদি নিয়মিত অনলাইন থেকে কেনাকাটা করে থাকেন তাহলে এই অপশন না চালু করার পরামর্শ রইল। কারণ ফেসবুক আপনার সার্চ কিওয়ার্ডগুলো রিসার্চ করেই সেই অনুযায়ী বেস্ট প্রডাক্ট গুলো শো করাবে যার কারণে কেনাকাটায় সতর্কতা অথবা নতুন অভিজ্ঞতা, পরামর্শ পেতে পারেন। এই অপশন চালু থাকলে সেই সুযোগটি পাবেন না।

যাইহোক সবকিছু মেনে নিয়ে আপনি এই অপশনটি চালু করতে চাইলে করতে পারেন। সবশেষে একটি কথাই বলবো মানুষ মাত্রই ভুল। আজকের টিউনে কোথাও কোন ভুল থাকলে অথবা বোঝানো স্বল্পতা হলে অবশ্যই ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। এছাড়াও আজকের টিউন নিয়ে আপনার কোনো মন্তব্য থাকলে তা অবশ্যই টিউমেন্ট করে জানাবেন। সুগঠিত সুন্দর টিউমেন্ট হলে তা অবশ্যই আমি আমার টিউনে যুক্ত করে নিবো।

এভাবেই আপনারা খুব সহজে ফেসবুকের ২৪ ঘণ্টা নজরদারি বন্ধ করতে পারবেন। তো বন্ধুরা এই ছিল আমাদের আজকের টিউন, কীভাবে আপনার উপর ফেসবুকের ২৪ ঘণ্টা নজরদারি বন্ধ করবেন? আশাকরি টিউন টি আপনাদের একটু হলেও হেল্পফুল হবে। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি, দেখা হবে পরবর্তী টিউনে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। ততক্ষণ অবধি সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং টেকটিউনস এর সাথেই থাকবেন।

Level 4

আমি স্বপন মিয়া। Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 বছর 2 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 56 টি টিউন ও 28 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

টেকনোলজি বিষয়ে জানতে শিখতে ও যেটুকু পারি তা অন্যর মাঝে তুলে ধরতে অনেক ভালো লাগে। এই ভালো লাগা থেকেই আমি নিয়মিত রাইটিং করি। আশা করি নতুন অনেক কিছুই জানতে ও শিখতে পারবেন।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস