ফেসবুক পেইজে এই ভুলগুলো কখনোই নয়

Level 2
প্রথম বর্ষ, সরকারি বাঙলা কলেজ, ঢাকা

ফেসবুক পেইজে এই ভুলগুলো কখনোই নয়। যে পাঁচটি স্টেপ ফলো করলে আপনি আপনার  ফেসবুক পেজের এনগেজমেন্ট এবং রিচ  বাড়াতে পারবেন মাত্র কয়েক দিনে। কিভাবে ফেসবুক পেইজে রিচ  বাড়ানো যায়?

ফেসবুক পেজে ম্যাক্সিমাম ও মারাত্মক ভুলগুলো  আজকের এই কন্টেন্টিতে শেয়ার করা। মারাত্মক এবং ম্যাক্সিমাম এই ভুলগুলো আপনাকে অবশ্যই এড়িয়ে চলতে হবে। সুপ্রিয় দর্শক বর্তমান সময়ের ডিজিটাল যুগে এসে প্রত্যেকটা ব্র্যান্ড প্রত্যেকটা প্রতিষ্ঠান এবং ইন্ডিভিজুয়াল পেইজের জন্য একটি এনগেজিং ফেসবুক পেইজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কিছু কমন মিসটেক আমাদের ফেসবুক পেজের রিচ এনগেজমেন্টকে অনায়াসে ধ্বংস করতে পারে। তবে চলুন সে মিসটেকগুলো জেনে নেওয়া যাক।

1. Neglecting your page's cover photo.

সর্বপ্রথম যেটা রয়েছে সেটা হচ্ছে ইউর কভার ফটো। আপনার ফেসবুক পেজের কভার ফটো কে কখনোই অবহেলার চোখে দেখবেন না। সেটাকে অবহেলায় অবলিলায় রেখে দিবেন না। কেননা মনে রাখবেন আপনি আপনার ফেসবুক পেইজের যে চেহারা বা ফেস রয়েছে সেটা কিন্তু আপনার পেইজের কভার ফটো। আপনি হয়তোবা অনেক সুন্দর একটা প্রোফাইল পিকচার ডিজাইন করে সুন্দর এবং দুর্দান্ত একটা প্রোফাইল পিকচার সেট করেছেন। But you are losing your brand image by avoiding your Facebook pages cover photo and neglecting your Facebook  pages cover photo.  আপনার ফেসবুক পেজের যে কভার ফটোটা আছে সেটা কিন্তু আপনার ব্রান্ড আপনার ইমেজ কি আসলে রিপ্রেজেন্ট করে অডিয়েন্সের সামনে  এবং ভিউয়ারদের বা আপনার পেজটি যারা দেখছেন আপনার ফলোয়ার্সদের সামন। আপনার পেজকে ফলো করার ক্ষেত্রে সেটা অবশ্যই যেন well optimised for both of mobile device and computer devices হয়। মনে রাখতে হবে এমন একটা কভার ফটো আপনি ডিজাইন করবেন মোবাইলের মাধ্যমে কিন্তু এখন করা যে কম্পিউটার বা গ্রাফিক্স ডিজাইনার আপনাকে হতে হবে না। এমন একটা কভার পেজ আপনি ডিজাইন করবেন যেটা যেন অবশ্যই আপনার মোবাইল ফোন থেকে এবং কম্পিউটার থেকে দুইটা জায়গা থেকেই well viewed হয় এবং আপনার ব্রান্ড ইমেজকে যাতে ফুটিয়ে তোলে এটা অবশ্যই চেষ্ট করবেন।

2. Posting  too frequently or too infrequently.

তার মানে হচ্ছে আপনি যখন আপনার ফেসবুক পেজে কোন  টিউন করছেন তখন হয়তোবা একদিনে অনেক বেশি টিউন করছেন। হয়তোবা একদিন এই চার পাঁচটি করে টিউন করছেন আবার দুই তিন দিন পরে টিউন করার কোন খবর নেই। তারপরে হয়তো বাবার ১/২ সপ্তাহ পরে এসে আবার চার-পাঁচটা টিউন করছেন। তার মানে হচ্ছে posting to frequently অথবা posting to infrequently. মানে হচ্ছে আপনি অনেক কম টিউন করছেন। হয়তোবা সপ্তাহে বা মাসে এক দুইটি। এই কাজগুলো করা যাবে না। অবশ্যই একটা balance করতে হবে। আপনার দর্শক যাতে বিরক্ত না হয়ে যায় সেই দিকটাতে খেয়াল রেখে আপনার ফেসবুক পেইজে টিউন করতে হবে। তবে, টিউন করার ক্ষেত্রে অবশ্যই একটা জিনিস আপনি মাথায় রাখবেন quality is the  success or every social media platform over quantity. আপনি যত বেশি টিউন করবেনততবেশি রিক পাবেন এটা সত্য। কিন্তু অবশ্যই তার চাইতে quantity  আপনি কত করছেন টিউনের দিক দিয়ে এর চাইতেও অধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে quality. তার মানে হচ্ছে আপনি যদি দশটা পড়তে জায়গায় পাঁচটা টিউন কোয়ালিটি অনুযায়ী মেন্টেন করে আরো বেশি সময় দিয়ে এটা করেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনার সাকসেস হওয়ার পসিবিলিটি অনেকটাই বেড়ে যাবে। তাই অবশ্যই আপনি এই জিনিসটি খেয়াল করবেন যাতে to frequently or two infrequently টিউন না হয়।

3. Ignoring comments and messages.

পিন নাম্বারে রয়েছে ignoring comments and messages. আমরা সবাই হয়তোবা ফেসবুক পেইজে প্রচুর টিউন করে অথবা ভিডিও আপলোড করি রিল্স আপলোড করি। কিন্তু আমাদের যারা দর্শক আছে আমাদের যারা বিয়ে আর আছে যারা আমাদের ফেসবুক পেজটাকে ফলো করছে তাদের যে কমেন্টগুলো আসছে অথবা মেসেজ গুলো আমাদের পেইজে আসছে সেগুলোকে আমরা রেসপনস পড়ছি না বা কোন রিপ্লাই দিচ্ছি না  ফিডব্যাক  দিচ্ছি না। এটা প্রমাণ করে যে আপনি আপনার অডিয়েন্স কে কেয়ার করছেন না। don't carry about your audience. এটা কিন্তু খুবই মারাত্মক একটা বিষয়। কেন না  আপনি যদি কোন কমিউনিটিকে বিল করতে চান তাহলে ডেফিনিটলি সেই কমিউনিটি এবং আপনার মধ্যকার যে কমিউনিকেশন আছে সেটাকে বিল্ড আপ করতে হবে। রিলেশনশিপ বিল্ডআপ করার জন্য আপনার ফেসবুক পেইজে কমেন্টগুলো রিপ্লাই দিবেন ঘনঘন এবং আপনার ফেসবুক পেইজের যে মেসেজগুলো আসছে সেগুলোর রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করবেন এতে করে আপনার দর্শকদের আপনার প্রতি ট্রাস্ট বেড়ে যাবে।

4. Not utilizing Facebook analytics

চার নাম্বারে যে জিনিসটি রয়েছে সেটা হচ্ছে not utilising Facebook analytic. facebook পেইজে আপনি যদি আপনার অডিয়েন্স কে গ্রাপ করতে চান তাদের এটেনশন গ্রাপ করতে চান এবং আপনার পেইজের এনগেজমেন্ট বানাতে চান তাহলে আপনাকে কিন্তু utilise করতে হবে আপনার  Analytics কে। আপনার ফেসবুক পেজ আপনাকে যে যেটা গুলো দিচ্ছে অডিয়েন্স সম্পর্কে তাদের বয়স কত তারা কোথা থেকে দেখছে তারা কি কি পছন্দ করে কোন ধরনের টিউন তারা পছন্দ করছে কি কি পছন্দ করছে না এই যে বিষয়গুলো আছে অডিন সম্পর্কে আপনি একটু জানতে চেষ্টা করবেন। এ বিষয়গুলো জানার পর আপনি যদি আপনার ফেসবুক পেইজে ছবি অথবা ভিডিও প্রকাশ করেন তাহলে সেগুলো কিন্তু আপনার পেয়ে জায়েংগেজমেন্ট এবং রিচ বাড়াতে সাহায্য করবে।

5. Overlooking visual content

এরপর পাঁচ নাম্বারে যেটা রয়েছে সেটা হচ্ছে overlooking visual content. facebook প্লাটফর্মটাই হচ্ছে একটা ভিজুয়াল প্লাটফর্ম যেখানে মানুষ ঘন্টার পর ঘন্টা স্ক্রোল করতেই থাকে এবং তাদের সামনে যে সকল ইলিমেন্টস গুলো আসে প্রত্যেকটা এলিমেন্টলি হয়েছে। অর্থাৎ আপনি যেটাই টিউন করছেন সেটা জেনো আই কেচিং হয়। অর্থাৎ এমন কোন ছবি অথবা ভিডিও টিউন করুন যেটা দেখলে আপনার দর্শক সেটাকে স্টপ করে কিছুক্ষণ দেখবে। এভাবে তারা তাদের ফেসবুক এলগরিদম কে মেসেজ দিচ্ছে যে আপনি মানসম্মত এবং ভালো কনটেন্ট করছেন। আর এটা যখন ফেসবুক বুঝতে পারে তখন আপনার পোস্টগুলোকে ফেসবুক আরো অনেক মানুষের কাছে নিয়ে যাবে। এতে করে আপনার ফেসবুক পেজের রিস্ক আরো বেড়ে যাবে।

তো এই ছিল ফেসবুক পেজের কিছু কমন নিচ্ছে যেগুলো আপনার পেজের পোস্টগুলো রিড কমিয়ে দিতে পারে। আশাকরি বুঝতে পেরেছে।  এই ভুলগুলো এগিয়ে চললে খুব সহজে অল্প কিছুদিনের মধ্যে আপনি আপনার পেইজে রিট এবং এঙ্গেজমেন্ট বাড়িয়ে নিতে পারবেন।

Level 2

আমি আয়শা আক্তার দিপা। প্রথম বর্ষ, সরকারি বাঙলা কলেজ, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 মাস 3 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 11 টি টিউন ও 6 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস