জেনে নিন ফেসবুকে যেসব কখনোই টিউন করবেন না থাকছে করুন বিপদ

ফেসবুকে যা কখনোই টিউন করবেন না

ফেসবুক নিয়ে এখন উত্তাল সারা দুনিয়া। কারো সঙ্গে যদি আপনার ভালো যোগাযোগ নাও থাকতে পারে। যদি আপনি তার ফেসবুক ফ্রেন্ড হন তবে বুঝবেন তার প্রতিদিনের কার্যক্রম। ফেসবুক যদিও তথ্যপ্রযুক্তির যুগে যোগাযোগের একটি অন্যতম মাধ্যম,  তবে তা এখন আসক্তিতে পরিণত হয়েছে।

কিন্তু অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারী জানেন না যে,  ফেসবুক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় গোপন রাখতে হয়।

ফেসবুকে কখনোই আপনার ব্যক্তিগত কোনো বিষয় শেয়ার করবেন না,  যা আপনার ক্ষতির কারণ হতে পারে। প্রতিনিয়ত আমরা দেখছি,  অসংখ্য মানুষ ব্যক্তিগত স্পর্শকাতর অনেক বিষয় ফেসবুকে শেয়ার করছেন। কিন্তু এটি মোটেই ঠিক নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে,  আসলে এমন কিছু বিষয় রয়েছে যা কখোনই ফেসবুকে টিউন করতে নেই। এতে আপনার ব্যক্তিগত স্বার্থ ঝুঁকির মুখে পড়ে।

আসুন জেনে নেই ফেসবুকে যে বিষয়গুলো কখনোই টিউন করবেন নাঃ

জানিয়েছেনঃ মোঃ ইমরান হোসেন (স্বপন) মল্লিক।

ব্যক্তিগত তথ্যঃ ব্যক্তিগত তথ্য কখনোই ফেসবুকে শেয়ার করবেন না। টাকা-পয়সাসংক্রান্ত তথ্য,  বাড়ির ঠিকানা,  নিজের টেলিফোন নম্বর,  জন্ম-তারিখ কিংবা এমন তথ্য যা অপরাধীদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। যার পরে আপনাকে বিপাকে ফেলতে পারে।

পাসওয়ার্ডঃ নিজের স্ত্রী বা গার্লফ্রেন্ড বা অন্যকাউকে ফেসবুকের পাসওয়ার্ড ভুলেও দেবেন না। এছাড়া এ নিয়ে কখনো হাসিঠাট্টা করবেন না। মনে রাখবেন,  পাসওয়ার্ড এমনিতেই অতিগোপনে রাখতে হয়। এটা চুরি হলে বিপদ ঘটে যেতে পারে।

নিজের অবস্থানঃ আপনি এই মুহূর্তে কোথায় আছেন,  কার সঙ্গে আছেন,  কী করছেন,  এ সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে কখনোই ফেসবুকে কোনো কিছু টিউন করবেন না। তাহলে আপনার নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে। এছাড়া আপনার যদি মনের অজান্তে কোনো শত্রুর জন্ম হয়ে থাকে তবে সে আপনার ক্ষতি করার সুযোগটি হাতছাড়া করবে না।

ভ্রমণঃ ভ্রমণে যাচ্ছেন? এর গোটা পরিকল্পনার কথা ফেসবুকে বলতে যাবেন না। এটা হোক নিজের দেশে কিংবা বিদেশে। কেউ সঙ্গে গেলে তার সঙ্গেই পরিকল্পনা করুন। ফেসবুকে অপরাধীদের আনাগোনার বিষয়ে আপনার কোনো ধারণাই নেই।

সুনাম ক্ষুণ্ণঃ আপনার সম্মান ক্ষুণ্ণ হয়,  এমন কোনো টিউন ফেসবুকে দেয়া যাবে না। যেমন অনেকে নিজের প্রতি অন্যের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য স্পর্শকাতর অনেক টিউন দিয়ে থাকেন এটি মোটেও ঠিক নয়। এতে অনেকে আপনার ওপর বিরক্ত হয়। কিন্তু মুখে বলতে পারে না। সবাই বোঝেন যে আপনি দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চাইছেন। এর জন্য অনেকে অস্বস্তিকর ও আপত্তিকর পোস্টও দিয়ে থাকেন। এতে মূলত আপনার সুনাম ক্ষুণ্ণ হবে। এছাড়া কৌতুক বা মন্তব্য করবেন না। এতে আপনার ব্যক্তিত্বের নেতিবাচক দিকগুলো একেক মানুষের কাছে একেকভাবে স্পষ্ট হয়ে উঠবে।

অস্বস্তিকর ছবিঃ নিজের শালীনতা নষ্ট নয় বা মানুষ খারাপ মন্তব্য করে এমন ছবি কখনোই ফেসবুকে টিউন করা যাবে না। বন্ধুদের সঙ্গে কোনো গোপন পার্টির আজেবাজে ছবি ফেসবুকে দেবেন না। এতে আপনার সম্মান ক্ষুণ্ণ হবে। এছাড়া আপনার জীবনে এই মুহূর্তে কী ঘটে যাচ্ছে আর কী ঘটেছে তা নিয়ে তথ্য প্রকাশ করবেন না ফেসবুকে। মনে রাখবেন কিছু ছবি একান্তই আপনার।

অফিসের অভিযোগঃ

কর্মস্থলের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আপনার অনেক অভিযোগ থাকতে পারে। কিন্তু এসব নিয়ে কথাবার্তা ফেসবুকে দেবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে অফিসকর্মীদের ফেসবুক পর্যবেক্ষণ করে। কাজেই বিপদে পড়বেন।

রাজনৈতিক বিষয়ঃ দেশের রাজনীতি নিয়ে আপনি মাথা ঘামান। কাজেই কিছু গঠনমূলক টিউন যেতেই পারে। কিন্তু উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং উসকানিমূলক রাজনৈতিক টিউন কখনো ফেসবুকে দেবেন না। তাহলে বিপাকে পড়তে পারেন আপনি।

>নিচের প্রয়োজনীয় লিখাগুলো পড়ুনঃ

আমাদের মাধ্যমে ফেইসবুকে বিজ্ঞাপণ দিন, আপনার Fan Page এর Promotion অথবা Post Boost করাতে চাচ্ছেন? >>>ক্লিক এখানে

 

এখনই জেনে নিন ফেইসবুক থেকে কিভাবে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করবেন? >>>এখানে ক্লিক

 

পড়ুন প্রয়োজনে আসবে ১৫ দিনের আয় ৫০ হাজার টাকা, হুইল চেয়ার আরোহী মাগুরার ছেলের

আমার সাইটে আসুন এবং অনলাইন ইনকামের জ্ঞান নিন। >>>ক্লিক করুন এখানে

Level 2

আমি ইমরান মল্লিক। Owner, Mollik Computers, Mathbaria। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 12 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস