কিভাবে ভার্চুয়াল কার্ড দিয়ে ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিবেন

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছো তুমরা, অনেকেই আছে যারা ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিতে চায় কারন হয়তো তাদের ফেসবুকে ফানি পেইজ বা কোম্পানির পেইজ থেকে থাকে কিন্তু ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিতে হলে প্রয়োজন পেপাল বা মাস্টার কার্ড। অনেকের কাছে বাংলাদেশি মাস্টার কার্ড থাকে বিভিন্ন ব্যাংকের তবুও তারা ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিতে পারেন না কারন তাদের একাউন্ট ফ্লাগ করে দেয় ফেসবুক। তাই আজ তুমাদের সাথে শেয়ার করবো কিভাবে একটি ভার্চুয়াল কার্ড নিয়ে ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিতে পারো। তাহলে আর দেড়ি কীসের শুরু করা যাক?
কিভাবে কার্ড নিতে হয়?
এটি একটি মালোশিয়ান প্রেপাইড কার্ড যার সাহায্য নিয়ে তুমি ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিতে পারবে। এই কার্ড এর মাধ্যমে তুমি শুধু ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিতে পারবো আর কিছু করতে পারবে না। কার্ডটির মূল্য মাত্র ৫০০ টাকা, ৫০০  টাকায় কার্ডটি কিনে তুমি সারাজীবন ব্যবহার করতে পারবে। এখন কথা হচ্ছে ৫০০ টাকা একটু বেশি তাই না? চিন্তা নেই তুমি কার্ডটি ডিস্কাউন্টে কিনতে পারবে আমার দেওয়া একটি প্রমোট থেকে,

Promo Code: RONYCARD

কার্ডটি নেওয়ার জন্য প্রথমে ক্লিক করুন এখানেঃ Click Here এখানে গিয়ে তুমি অর্ডার করবে। কিভাবে অর্ডার করবে ছবি আকারে নিচে দেওয়া হলোঃ

আশাকরি বুঝতে পেরেছেন, অর্ডার করার পর #CodenDream আপনাকে ফোন করে অথবা আপনার মোবাইল নাম্বারে এসএমএস এর মাধ্যমে আপনার কাজ হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করবেন।

অনেকেই হয়তো খেয়াল করেছেন যে আমি বলেছিলাম কার্ডটির মূল্য মাত্র ৫০০ টাকা কিন্তু অর্ডার করতে গিয়ে আরো বেশি দেখলাম? ভয় পাবেন না আসলে আমি শুধু কার্ড-এর দাম বলেছিলাম কিন্তু অর্ডার ফর্মে আপনার কার্ড + Blance সহ হিসাব করা হয়েছে। কার্ড দিয়ে কি করবেন  যদি Blance না থাকে? সে জন্য ৭ ডলার 7 Blance + কার্ড এর মূল্য হিসাব করা হয়েছে।

এবার আশুন currency নিয়ে একটু কথা বলা যাক। currency নিয়ে কথা বলার কারন হচ্ছে আমরা যে কার্ডটি ব্যবহার করবো সেটি মালোশিয়ান কার্ড মানে currency হচ্ছে RM.

Google currency Rate:

  • 82.85 Taka = $1
  • 3.96 RM = $1

এটি হচ্ছে গুগলের বর্তমান ডলার এবং আর, এম রেট। ফেসবুক কিন্তু এভাবে কাউন্ট করে না, চলুন তাহলে ফেসবুক কিভাবে কাউন্ট করে দেখে নেই

Facebook currency Rate:

  • 79 Taka = $1
  • 3 RM = $1

তুমরা সকলেই জানো যে ফেসবুকে ১ ডলারের নিচে বিজ্ঞাপণ দেওয়া যায় না। তুমি যদি মালোশিয়ান কার্ড দিয়ে বিজ্ঞাপণ দাও তাহলে মিনিমাম ৩ আর, এম দিয়ে বিজ্ঞাপণ দিতে হবে মানে ৩ = ১ ডলার কাউন্ট করবে ফেসবুক।

এখন তুমি যে কার্ডটি নিলে এবং ডলারের জন্য টাকা দিলে? সেই কার্ড-এ ২১ আর, এম থাকবে মানে ৭ ডলারের বিজ্ঞাপণ তুমি দিতে পারবে। আশা করি বুঝতে পারছো। মনে করো কার্ড পেয়ে গেলে এখন কিভাবে তুমি ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ দিবে? বিজ্ঞাপণ দেওয়ার আগে দেখে নেই কার্ড পেয়েছি কিনা। কিভাবে দেখবে কার্ড পেয়েছো কিনে তা নিচে ছবি আকারে দেওয়া হলোঃ

একাউন্ট পেয়ে গেলেন, এবার ফেসবুকে বিজ্ঞাপণ একটিভ করার পালা। কিভাবে ফেসবুক বিজ্ঞাপণ দিবে আমি আপনাদেরকে ছবি আকারে দেখিয়ে দিচ্ছি কিন্তু যদি আপনি না বুঝেন? তাহলে এখানে টিউমেন্ট করুন আমি রিপলে করে দিব। বিজ্ঞাপণ শুরু করার আগে কিছু নিয়ম সমন্ধে আমাদের জানার প্রয়োজন আছে।
ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট যে কারণে ফ্ল্যাগ হয়
ফেসবুক হচ্ছে অনলাইন মার্কেটিং এর জন্য সবচেয়ে বড় সোশ্যাল মিডিয়া। ফেসবুকের জনপ্রিয়তার সাথে সাথে মার্কেটিং এর সুযোগও বৃদ্ধি পেয়েছে। ফেসবুক হল একমাত্র সোশ্যাল মিডিয়া যেখানে সবধরনের কাস্টমারদের সহজেই পাওয়া যায়। আপনি যেকোন ব্যবসায় করেন না কেন তার প্রচার এবং প্রসারের জন্য খুব সহজে ফেসবুক কে ব্যবহার করতে পারবেন।

ফেসবুকে ব্যবসায় প্রচারের জন্য একটি বিশেষ সার্ভিস হল ফেসবুক অ্যাড। ফেসবুক যেমন দিনে দিনে সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে, ঠিক তেমনি ব্যবসায়ি বা অনলাইন মার্কেটারদের কাছেও ফেসবুক অ্যাড জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। তার কিছু বিশেষ কারণও রয়েছে। একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে ফেসবুক অ্যাড। ফেসবুক অ্যাড দিয়ে যে কোন দেশের যে কোন বয়সের এবং পেশার মানুষকে টার্গেট করে বিজ্ঞাপণ দেয়া যায়।

তবে যে কোন পণ্য বিক্রয়ের জন্য ইচ্ছে মত অ্যাড তৈরি করলে ফেসবুক তা গ্রহন করে না। অ্যাড তৈরি করার পূর্বে অবশ্যই কিছু বিষয় মেনে অ্যাড তৈরি করতে হয়। তানা হলে ফেসবুক সেই অ্যাড এর অনুমোদন দেয় না। প্রায়ই দেখা যায় অনেকের অ্যাড অনুমোদন পায় না। অ্যাড তৈরি করার আগে অ্যাড গ্রহন না করার কারণ গুলো অবশ্যই জানা প্রয়োজন।

ফেসবুক প্রত্যেকটি অ্যাড রিভিউ করার সময় খুব ভালো ভাবে দেখে যে ফেসবুকের অ্যাড পলিসিগুলো মেনে অ্যাড দেয়া হয়েছে কি না।

মূলত ফেসবুক যেসব বিষয় গুলো দেখে থাকে তা হলোঃ

১। অ্যাডে ফেসবুক কথাটি উল্লেখ থাকাঃ আমাদের মাঝে মাঝে অ্যাডে ফেসবুক কথাটি উল্লেখ করতে হয়। সেক্ষেত্রে ফেসবুক শব্দটি অবশ্যই শুরু করতে হবে বড় হাতের “F”দিয়ে। মনে রাখবেন, ফেসবুক শব্দের জায়গায় ফেসবুক এর লোগো ব্যবহার করা যাবে না।

২। কিছু অ্যাড অনুমোদন পায় না কারণ অ্যাড দেওয়া পণ্যের সাথে বয়সসীমা ঠিক নয়। অর্থাৎ অ্যাডটি যারা দেখবে তাদের বয়সের জন্য উপুযুক্ত নয়। যেমনঃ যদি কোন এলকোহল এর অ্যাড বাচ্চাদের জন্য দেওয়া হয় তখন ফেসবুক সেই অ্যাড অনুমোদন দেয় না। আবার কখনো কখনো একাউন্ট ফ্ল্যাগ করে দেয়।

৩। অ্যাড এর কন্টেন্ট কোন অবৈধ পণ্য/সেবা বা কার্যক্রম প্রচার করে এমন হওয়া যাবে না। যেমনঃ আপনি যদি USA –এ কোন অ্যাড দিতে চান এবং সেই অ্যাড USA সংবিধান বিরোধী তাহলে ফেসবুক আপনার অ্যাড গ্রহন করবে না। অথবা আপনি কোন নিষিদ্ধ পণ্য বিক্রির জন্য একটি অ্যাড তৈরি করলেন, আপনি অন্যান্য সকল নীতিমালা মেনে চললেও আপনার অ্যাড অনুমোদন পাবে না।

৪। অ্যাডে প্রেসক্রিপশন, মাদক, অনিরাপদ খাবার ইত্যাদি এর বিজ্ঞাপণ দেয়া যাবে না।
৫। অস্র বা বোমা জাতীয় কোন ছবি দেয়া যাবে না।
৬। এখন বাচ্চা থেকে শুরু করে বৃদ্ধ সকল ধরনের মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে। তাই ফেসবুক  যে কোন প্রকার এডাল্ট পণ্য বা সেবার বিজ্ঞাপণ দেয়া যাবে না।
৭। এমন কোন ছবি যা মানুষকে ভিত করে তুলে তা দেয়া যাবে না। যেকোন প্রকার ভয়ানক ছবি যেমনঃ কোন গাড়ির দূর্ঘটনার ছবি, রক্তাক্ত ছবি বা যুদ্ধ বিধস্ত যে কোন ভয়ানক ছবি ইত্যাদি দিয়ে অ্যাড করা যাবে না।
৮। ভিডিও এর প্লে আইকন ছবিতে থাকা যাবে না।
৯। কপিরাইট করা কোন ছবি দেয়া যাবে না। অর্থাৎ অন্যের ছবি ব্যবহার করে কোন অ্যাড তৈরি করা যাবে না। নিজের পণ্যের অথবা নতুন কোন ছবি তৈরি করে তা দিয়ে অ্যাড তৈরি করতে হবে।
১০। আগের এবং পরের (Before-After) এমন বিষয় নিয়ে কোন ছবি দেয়া যাবে না।
এসব বিষয় গুলো আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। মাঝে মাঝে এসব কোন নিয়ম অমান্য করা হলে শুধুমাত্র এড ব্লক করে দেয়, আবার অনেক সময় ফেসবুক চাইলে আপনার এড অ্যাকাউন্টটাই ব্লক করে দিতে পারে। তারা যেকোনো মুহূর্তে তাদের ইচ্ছায় আপনাকে না জানিয়ে আপনার এড বন্ধ বা এড অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিতে পারে। তাই সবসময় সতর্ক থাকা উচিত। কারণ ফেসবুক অ্যাড অনলাইন মার্কেটিং এর জন্য খুবই প্রয়োজন। বিশেষ করে যারা অনলাইনের উপর ভিত্তি করে ব্যবসায় পরিচালনা করেন তাদের জন্য ফেসবুক অ্যাড একাউন্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই সবার উচিত হবে ফেসবুকের সকল নীতি মেনে অ্যাড পরিচালনা করা।

তাহলে চলুন দেখে নেই কিভাবে ফেসবুক পেইজ প্রমোট করবেন। প্রথমেই আপনি আপনার ফেসবুজ পেযে চলে যাবেন বাকিটা নিচে ছবি আকারে দেওয়া হলোঃ

সব কিছু হয়ে গেলে প্রমোটে ক্লিক করলেই হবে। এবার আশুন বলি কিভাবে টিউন বোস্ট করবেন? পুর ব্যপারটি একই শুধু ডেইলি বাজেট এর যায়গায় পুরো বাজেট টি দিতে হবে মানে পেইজ প্রমোটের সময় আপনি ৩ আর, এম দিয়ে ছিলন ৭ দিনের জন্য টোটাল ২১ আর, এম কিন্তু বোস্টের সময় ২১ আর পুরোটাই দিতে হবে ডেইলি বাজেটে। আর প্রমোট করার সময় একটু নিচে চলে আসেবেন দেখবেন এড একাউন্ট নামে একটি Option আছে ওইখান থেকে আগে আপনার এড একাউন্ট সিলেক্ট করে নিবেন,

আশাকরি অনেক ভালো লেগেছে আমার লিখাটি। অনেক বানান ভুল আছে বলে আমাকে ক্ষমা করবেন। আর কোন প্রকার প্রবলেম হলে এখানে টিউমেন্ট করুন। ধন্যবাদ

Level 0

আমি মোঃ রনি। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস