১০ ফেসবুক মার্কেটিং টিপস এন্ড টিরক্স ।

১। পরীক্ষা মূলকভাবে দিনের ভিন্ন ভিন্ন সময়ে পোস্টঃ

facebook marketing post different time

অধিকাংশ ব্যাবসায় কোম্পানিগুলোই ফেসবুকে তাদের পোস্তগুলো ট্র্যাডিশনাল বিজনেস আওয়ারে পোস্ট করে থাকেন। কিন্তু আপনার ভিজিটরদের একটা বড় অংশ বিদেশে থাকলে তখন কি হবে  ? সেক্ষেত্রে আপনি দিনের বা রাতের ভিন্ন ভিন্ন সময়ে পোস্ট করে দেখতে পারেন । সেটা অবশ্যাই  ভিন্ন ভিন্ন ফলাফল নিয়ে আসবে। এটা নির্ভর করবে আপানার পণ্যের ইউজারদের ধরনের উপর। ট্রায়াল এন্ড এরর এর ভিত্তিতে আপনি আপনার জন্য পোস্তের সবচেয়ে ভাল সময় টি খুজে পেতে পারেন। অবশ্যই অটোমেটেড পোস্ট থেকে বিরত থাকা উচিত। দরকার হলে  আপনি  ফেসবুকের শিডিউল টুলটি ব্যাবহার করতে পারেন ।.এখানে একটা ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে। যখন একটা নতুন পোস্ট হবে আপনার অডিয়েন্স আশা করবেন যে, কেউ একজন জীবিত (জাগ্রত) আছেন । সেক্ষেত্রে আপনি যখন তাৎক্ষণিক ভাবে তাদের প্রশের উত্তর বা কুইরির রিপ্লাই দিতে পারবেন না , তখন তারা বুজে যাবে আপনি মৃত (ঘুমন্ত)। সেটা আপনার জন্য ভাল হয় না ।

২। ভিজিটরদের কে আলোচনার সুযোগ দিনঃ

Let people speak

আপনি হয়ত নতুন একটি পণ্য বা নতুন কোন ডিজাইন নিয়ে আসতে চাচ্ছেন । সেক্ষেত্রে আপনি আপনার ফ্যানদের থেকে তাদের ফিডব্যাক নিতে পারেন। আপনি হয়ত তাদের মাজে একটা জরিপ চালাতে পারেন বা ভোটের মাধ্যমে আপনার নতুন লোগোও বা পণ্যের রং সম্পর্কে তথ্য নিতে পারেন যা আপনাকে আপনার ব্যাবসায় কে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে সাহায্য করবে। এটা শুদু আপনার পণ্যের  ব্র্যন্ড লয়ালিটি বারাবে না ,এটা আপনার ফ্যানরা কি চাচ্ছে সে সম্পর্কে ও আপনাকে একটা ধারনা দিবে।

৩। ছবি ব্যাবহার করুন – কেননা এটা বেশি দিন স্থায়ী হয়ঃ

Use Image

ইমেজ সাধারণত বেশি শেয়ার করা হয়ে থাকে । এক গবেষণায় দেখা গেছে  শুদুমাত্র টেক্সট বা লিঙ্ক এর চেয়ে ইমেজ  পোস্ট ২ গুন বেশি এনগ্যাগম্যান্ট পেয়ে থাকে। এজন্য আপনাকে দামি ডি এস এল আর ক্যামেরা কিনতে হবে না। আপনি আপানর স্মার্ট ফোনে ইনস্টাগ্রাম ডাউনলোড করে নিয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে স্ন্যাপ নিতে এবং আপনার ফেকবুক পেজে আপলোড দিতে পারেন। শেয়ার করতে পারেন ভিডিও  ও। ভিডিও মার্কেটিং সম্পর্কে আর ও জানতে পড়তে পারেন আপনার সাইটের জন্য কেন করবেন ভিডিও মার্কেটিং ?

৪। আপনি নিজে নিজের সবচেয়ে বড় ফ্যান হউনঃ

Be Your Fan

সাম্প্রতিক ট্রেন্ড বা ফ্যাড সম্পর্কে জানতে আপনার বিজনেস পেইজের বাইরের ফেসবুক কে ভালভাবে বুজতে হবে। তাই যদি ইতিমধ্যেই আপনার একটি ব্যাক্তিগত একাউন্ট না থাকে আপনি আজই একটি একাউন্ত খুলে নিতে পারেন। এটা আপনাকে আপনাকে ফ্যানদের চোখে আপনার ব্যাবসায় কে দেখার সুযোগ করে দেবার পাশাপাশি আপনার কমপিটীটরা কি করছে টা দেখার এবং অন্যান্য ইউজার দের সম্পর্কে ধারনা নেবার সুযোগ করে দিবে।

৫। ফেসবুকের বাইরেও আপনার ফ্যানদের সাথে যোগাযোগ রাখুনঃ

এটা আপনি আপানর ইমেইল লিস্ট দিয়ে করতে পারেন। আপনি ইউজারদের কে আপনার মেইল লিস্ট এ  নাম লিপিবদ্দ করার জন্য তাদের কে ইনসেন্টিভ দিতে পারেন। আপনার ফেসবুক পেইজে প্রাসঙ্গিক ও মজার কন্টেন্ট পোস্ট করুন।

৬। কল টু একশান ব্যবহার করুনঃ

call-to-action

যেহেতু আপনি চান না ইউজার একবার মাত্র আপনার সাইট ভিজিত করে চলে যাক , তাই আপনি আপনার পেজের ট্যাবে একটি “কল টু একশান ” গ্রাফিক ব্যাবহার করতে পারেন। এটা লাইক বাটনের পাশে “লাইক আস” এর মত সাধারন হতে পারে । ভিসিটররা যেন খুব সহজে আপনার ফ্যান এর পরিণত হয়ে তাদের ফিডে আপনাকে এড করে তার জন্য তাদেরকে সব রকমের সুজোগ দিন।

৭। হাইড এন্ড সিক খেলাঃ

আপনার যা আছে তার চাহিদা তৈরি করুন। ভিসিটরদের জন্য কন্টেন্ট তৈরি করুন তাহলে তারা আপনার পেইজে লাইক দিতে উৎসাহিত হবে। এগুলো হতে পারে বিশেষ কোন পণ্যের তথ্য, সাক্ষাৎকার, মেনু ইত্যাদি যা কিছু আপনার ব্যাবসার সাথে যায়।

বেশ কিছু উপায় আছে এটা করার (সেগুলো ও ক্রমাগত পরিবর্তন হচ্ছে) যেমনঃ এপস অব কাস্টম এফ বি এম এল (ফেসবুক মার্ক আপ ল্যাঙ্গুয়েজ)।এগুলর কোন কোনটা তে যারা আপনার পেইজে লাইক দিবে তাদের কে ইক্লুসিভ কন্টেন্ট এ এক্সেস পাবার অপশান রয়েছে ।

৮। সহজ ইউ আর এলঃ

আপনার বিজনেস পেজের জন্য একটি ভ্যানিটী ইউ অর এল তৈরি করতে পারেন। এটা আপনার ফ্যানদের কে আপনার পেইজ টি আরও সহজে খুজে পেতে সাহায্য করবে। আপনার ইউ অর এল টা হবে এমনঃ http://www.facebook/yourbusinessname.

৯। সাপ্তাহিক পিন পোস্ট করুনঃ

পিন্টারেস্ট এর পিন এর সাথে একে মেলাবেন না। ফেসবুক আপনার ব্যাবসার কোন পোস্ট কে সপ্তাহের জন্য জন্য ফিচারড পোস্ট করে আপনার পেইজের উপরে রাখার সুযোগ দেয়। তাই যে তথ্য কে আপনি চাচ্ছেন পুস করতে। সেটা হতে পারে সেল , প্রমোশন বা কোন ইভন্ট সেগুলো কে আপনি পেইজের উপরে রাখতে পারেন। পিন করতে আপনি নির্বাচিত পোষ্টে হোভার করে পেনসিল আইকন এ ক্লিক করে  “পিন টু পোস্ট”  সিলেক্ট করুন।

১০। মাইলস্টোন  প্রদর্শন  করুনঃ

milestones

শুদুমাত্র আপনার রিলেশান শিপ আপডেট বা গ্রাজুয়েশন ই ফেসবুক মাইলস্টোন নয় । আপনি আপনার কোম্পনির বিভিন্ন অর্জন গুলোকে তুলে ধরতে পারেন সেটা হতে পারে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী, নিদিষ্ট সংখ্যক ফ্যান এর লক্ষ্য পুরন অথবা নতুন কোন পণ্য সুচনা।

পোস্ট টি ভাল লেগে থাকলে লাইক দিয়ে , শেয়ার করে লেখক কে উৎসাহিত করতে পারেন। যেন ভবিষৎতে আরো ভাল কিছু নিয়ে আসতে পারি ।

পরবর্তী লেখাঃ

ফেসবুকে আমি  । জানতে বা জানাতে যোগ দিতে পারেন ফেসবুক গ্রুপে    (Online Content, Professional Blogging, e-marketing, SEO Group)

Level 0

আমি আনোয়ার হোসেন। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 21 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

খুবই ভালো।

ধন্যবাদ বাপ্পি ভাই ও সাঈদ হাসান ভাই।

চরম লিখছেন ভাই………

টিপস গুলো সত্যিই কাজের ।

দারুন

ভালো লাগলো