সত্যিই Baseus Mini Clip Lamp দিয়ে রাতে শুয়েও বই পড়া যাবে

Level 1
পেইজ মোডারেটর ও কন্টেন্ট রাইটার, টটেজা, চট্টগ্রাম

আমরা সবাই কম বেশী ল্যাম্প আসলে কি? রাতের বেলা পড়াশোনা করতে এর চেয়ে উপকারী জিনিস আসলে হয়না। কিন্তু সব ল্যাম্পে যে সমস্যায় পড়তে সেটা হচ্ছে টেবিলে বসে ব্যবহার করতে হয়। কারন তার সংযোগ দিয়ে এসব টেবিল ল্যাম্প ব্যবহার করতে হয়। তবে এখন ইচ্ছে করলেই বিছানায় বসে, হাটতে চলতেও ল্যাম্প ব্যবহার করা যাবে।
Baseus Mini Clip Lamp নতুন এক ধরনের ল্যাম্প। এই ল্যাম্পে সত্যিই আধুনিকতার ছোঁয়া পাওয়া যাবে। আমরা ল্যাম্প নিয়ে কখনোই আশাকরি না। কিন্তু এটি নিয়ে আরামদায়ক ভাবে শুয়েও পড়াশোনা করা যাবে। তাই এখন ইচ্ছে করলেই অনেকে রাতের বেলা শুয়েও বই পড়তে পারবে।
এবার বলা যাক, এর বক্সে কি কি আছে :
১. চার্জ ইন ক্যাবল
২. ইউজার ম্যানুয়াল :
৩. ছোট ল্যাম্প
ধরন: এটি প্রিমিয়াম প্লাস্টিকের তৈরী হয়। এছাড়াও সিলিকন ক্যাবল থাকায় একটু সহজে নড়ানো ও বাঁকানো
যায়। এটি প্রায় ৩৬০ ডিগ্রি কোণে ঘুরানো যায়।
ল্যাম্প হোল্ডার: এটিতে প্রায় ১৫ টি ছোট ছোট এলইডি লাইট আছে। এছাড়াও এটি প্লাস্টিকের তৈরী হয়। আর এর মধ্যে ৩ টি মুড আছে। প্রথম মুড, খুব বেশী আলো দেয়, ২য় মুড মোটামুটি আলো দেয়, ৩য় মুড একদমই কম আলো দিয়ে থাকে। এটির ভিতরে পাতলা প্লাস্টিক আবরন থাকে।
মিনি ক্লিপ: এই ক্লিপ ডিজাইনটি অনেক স্বাচ্ছন্দ্যময়ী ও সুন্দর হয়ে থাকে। আর এটিও প্লাস্টিকেরই হয়ে থাকে। নিচের ২ দিকেই ২ টা রবার আছে। যেকোনো দিকে বই, ল্যাপটপ কিংবা টেবিলের সাথে হোল্ড করিয়ে ব্যবহার করা যাবে। এটির উপরের দিকটা খুব উজ্জ্বল থাকে। এই ক্লিপের অন্য পাশে USB port থাকে। যদি এরাও এখনো USB টাইপ C এখনো ব্যবহার করেনি। হয়তোবা পরবর্তী নতুন ল্যাম্পে USB টাইপ C ব্যবহার করতে পারে। আর এটির মধ্যে এলইডি নির্দেশক থাকে। যার মাধ্যমে সহজে চার্জিং ক্যাপাসিটি বুঝা যায়।
ফিংগার প্রিন্ট :এটিতে ফিংগার প্রিন্টটি থাকে। ফিংগার প্রিন্ট থাকায় খুব সহজেই আঙুলের ছোঁয়াতেই ল্যাম্প জ্বলে উঠে।
টাচ প্যানেল: এটিতে টাচ প্যানেল আছে। টাচ প্যানেল থাকায় সহজে অফ ও অন করা যায়।
ব্যাটারী : এটিতে ব্যাটারী ৩৫০ মিলি অ্যাম্পিয়ার থাকে। এই ল্যাম্প চার্জ হতে প্রায় ২ ঘন্টা সময় নিয়ে থাকে। ব্যাটারী ব্যাকআপ প্রায় ৫ ঘন্টা দিতে পারবে। কিন্তু এটি ৩টি মুডের উপর সব সময় নির্ভর করে থাকে। কারন আমরা যদি ১ম মুডে রেখে পুরো ল্যাম্প ব্যবহার করি তবে এটি প্রায় ২-৩ ঘন্টা মত ব্যাকআপ দিতে পারবে। আর যদি ২য় আর ৩য় মুডে রেখে ব্যবহার করি তবে এটি প্রায় ৪-৫ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাকআপ দিতে পারবে। তাই মিনি এই ল্যাম্পের ব্যাটারী ব্যাকআপ পুরোপুরি ব্যবহারকারীর ব্যবহার করার উপর নির্ভর করে থাকে।
ওজন : এটি ওজন প্রায় ৬২ গ্রাম হয়ে থাকে। এই ল্যাম্প সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে এর ওজন তুলনামূলক অনেক কম। আর ওজন কম হওয়াতে সহজেই ব্যবহার করা যায়। এছাড়াও এটি বাঁকিয়ে ছোট করে পকেটেও নেওয়া যাবে।
কালার টেম্পারেচার: Baseus Mini Clip Lamp এর কালার টেম্পারেচার প্রায় ৪০০০ হাজার হয়ে থাকে। এটি যেহেতু রাতের বেলায় ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাই এটি পুরোপুরি রিডিং মুডে থাকে। এটি চোখের জন্য ভালো বলা যেতে পারে। কারন রাতের বেলা কম আলোতে পড়া কখনোই সহজ নয়। কিন্তু ল্যাম্পটি রিডিং মুডে থাকে তাই সহজে স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবহার করা যায়। এছাড়াও এর মধ্যে হোল্ডার থাকায় সহজে শুয়েও পড়া যাবে।
ল্যাপটপের কীবোর্ড ব্যবহার করা যাবে? আমরা যারা রাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করি অনেকেই অন্ধকার কীবোর্ড ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি না। কারন ল্যাপটপের আলোটা কীবোর্ড পর্যন্ত খুব স্পষ্টভাবে দেখা যায় না। তাই যেকোনো কেউ ইচ্ছে করলেই ল্যাপটপের কীবোর্ডের সাথে হোল্ডার লাগিয়ে নিয়ে ব্যবহার করতে পারবে।
সেলফি তুলতে ব্যবহার: আমাদের অনেকেরই সামনের ক্যামেরা খুব একটা ভালো হয়না। যার কারনে সেলফি ভালো তুলতে পারা যায় না। এই মিনি ল্যাম্পের আলোতে সেলফিও তোলা যাবে।
এবার একটু Baseus Mini Clip Lamp এর দাম নিয়ে বলা যাক। আসলেই দাম সাধ্যের মধ্যে কিনা তা জানা উচিত। এটার দাম ১০০০-১২০০ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন। আর ওয়ারেন্টি বা গ্যারান্টি প্রয়োজন নেই বললেই চলে। কারন Baseus ব্রান্ড খুব ভালোই তাই নিসন্দেহে টিকেই যেতে পারে।
এখন নিজের ধারনা থেকে বলবো, যারা রাতের বেলা পড়তে পছন্দ করে থাকেন। তারা অবশ্যই এটিকে সঙ্গী হিসেবে পাশে রাখতে পারেন। আর এটি যেহেতু শুয়ে বই পড়ার সুবিধার্থে ব্যবহার করা যাবে। তাই বই পড়ুয়া যে কেউ নিসন্দেহে কিনে নিতে পারেন। এখনই নিত্য দিনের সঙ্গী করে ফেলুন Baseus Mini Clip Lamp কে।

Level 1

আমি আত্তিয়া ফারাহ। পেইজ মোডারেটর ও কন্টেন্ট রাইটার, টটেজা, চট্টগ্রাম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 4 মাস 2 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 2 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস