WGP mini WiFi UPS এর রিভিউ জেনে নিন

Level 1
পেইজ মোডারেটর ও কন্টেন্ট রাইটার, টটেজা, চট্টগ্রাম

বর্তমান সময়ে হঠাৎ করেই কারেন্ট চলে যায়। আর দিন দিন কারেন্ট না থাকা যেন নিত্য দিনের জীবনের একটি অংশ হয়ে দাড়িয়েছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে যে, ডিজিটাল এই যুগে আমরা পুরোদমে ইন্টারনেট নির্ভর হয়ে থাকি। তাই হঠাৎ কারেন্ট চলে যাওয়াতে আমরা ওয়াইফাই বিছিন্ন হয়ে পড়ি। শুধু তাই নয়, অনেক সময় এমনও হয়ে থাকে যে পুরো দিন আর রাত মিলে ১২ ঘন্টাও বিদ্যুৎ বিছিন্ন হয়ে থাকি। এমতাবস্থায় ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারা কিংবা চাওয়া সত্যি অবান্তর বিষয়ে হয়ে পড়ে। বর্তমানে বাসায় কিংবা অফিসে অথবা মার্কেটে সকল জায়গায় ওয়াইফাই লাইন দেওয়া থাকে। এখন সবাই প্রায় সকল সিম থেকে নেটের প্যাকেজ নিয়ে থাকে শুধুমাত্র বাইরে যতক্ষন ইন্টারনেট ব্যবহার করতে হয় ততক্ষণ পর্যন্ত ব্যবহার করে থাকে। কারন যার যার বাসায় কিংবা অফিসে ত ওয়াইফাই আছেই। কিন্তু সেটাও নির্ভর করে কতক্ষণ কারেন্ট থাকে তার উপর। তবে এখন সেটারও সমাধান চলে এসেছে। কারেন্ট না থাকলেও ওয়াইফাই থাকবে।
এবার আসি এতো সব কথা আসলে কেন বলছি?
WGP mini Wifi UPS হচ্ছে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে সেরা একটি ইলেকট্রনিকস ডিভাইস বলা চলে। কেন?
এই ডিভাইস দিয়ে এখন ইচ্ছে করলেই কারেন্ট না থাকায় অবস্থায় আমরা ওয়াইফাই দিয়েই ইন্টারনেএ ব্যবহার করতে পারব। শুধু তাই নয় এর মাধ্যমে আমরা মোবাইল চার্জিং করতে পারবো এবং সাথে CCTV camera অন করে দেখাও যাবে।
WGP (Wonderful Green Power) এটি খুব সহজে ওয়াইফাই অন রাখতে সাহায্য করে। এটি ৮-১২ ঘন্টা সুবিধা দিবে।
প্রথমে বলবো এর পুরো বক্সে কি কি থাকবে?
১.প্রথমে একটি ইউজার ম্যানুয়াল গাইড থাকবে। যার মাধ্যমে এটি সহজে ব্যবহার করা যাবে।
২. বক্সে পাবেন অনেকগুলো কনভার্টার ক্যাবল বা জ্যাক। এসব কনভার্টার ক্যাবল রাউটার সাথে লাগাতে হবে। ক্যাবল বেশী দেওয়ার অন্যতম কারন হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের রাউটারে ভিন্ন ধরনের পোর্ট থাকে।
ধরন:
★ এটি প্লাস্টিক ধরনের হয়ে থাকে।  এটি অনেক ভারীও হয়। ভারী হওয়ার অন্যতম কারন হচ্ছে ৮৮০০ mph ব্যাটারী থাকে। আর এটি কারেন্ট না থাকা অবস্থায় প্রায় ৮-১২ ঘন্টা সার্ভিস দিবে। তবে এই পুরো সার্ভিসটি আপনার রাউটারের উপর নির্ভর করবে। অর্থাৎ, আপনার ওয়াইফাই রাউটার কত অনু নিতে পারে।
ব্যাটারী: এই ডিভাইস এর ব্যাটারী ব্যাকআপ প্রায় ৮৮০০ mah। এর মধ্যে ইন্ডিকেটর লাইট থাকায় সহজে কি পরিমান চার্জ আছে তা জানা যাবে।
ওয়াইফাই বিভিন্ন ভোল্টের হয়। এটিতে প্রায় ৩ ধরনের ভোল্ট পাওয়া যায়। যেমন:  ৫v, ৯v, ১২v। প্রত্যেকটি ওয়াইফাই দিয়ে কানেক্ট করা যাবে।
পাওয়ার ব্যাংক: এটির মাধ্যমে সহজে স্মার্টফোনে চার্জ দেওয়া যাবে। কিংবা ৫v এর যেকোনো চার্জ দেওয়া যাবে। এখানে USB পোর্ট রয়েছে। যা দিয়ে সহজে কানেক্ট করা যায়।
ইনপুট : এই ডিভাইসে ইনপুট হিসেবে ১২v আছে। অর্থাৎ এটিকে চার্জ করার জন্য ১২v ইনপুট দিতে হবে। এটির উপরে সুইচ আছে। সেই সুইচ দিয়ে সহজে অন করা যায়।
এখন প্রশ্ন থাকে ১২v এডাপ্টার কোথায় পাওয়া যাবে?
অনেক সময় আমাদের ওয়াইফাই লাইনে ১২v এডাপ্টার থাকে। এর মাধ্যমে সহজে পাওয়া যাবে। কিংবা আপনারা ইচ্ছে করলে কিনতে পারেন।
আউটপুট থেকে কিভাবে চালু করবেন?
এই ডিভাইস এর আউটপুট হচ্ছে প্রায় ৫v, ৯v, ১২v। WGP এর আরও ২টি ভ্যারিয়েন্ট আছে। একটি হচ্ছে, ৫v, ৯v, ৯v এবং অন্যটি হচ্ছে ৫v, ১২v, ১২v। এটি আপনার বাসার রাউটার এবং অনু কোন ভোল্টে চলছে এর উপর নির্ভর করে। আর সব রাউটারেই ৫v থাকে। আমার কাছে থাকা ডিভাইসের রাউটার ১২v এবং অনু ৯v চলে। তাহলে এটি সহজে ভালো ব্যাক আপ পাবে।
এখন যদি, আপনার রাউটার ৯v চললে, আপনি এর আউটপুট ৯v এর একটি পিন কানেক্ট করবেন। এটির সুইচ অন করলে হয়ে যাবে আর ইনপুট লাইন কানেক্ট করলে একসাথে চার্জ দেওয়া যাবে। আপনি যদি অণুকে কানেক্ট করতে চান, অণু যদি ১২v এর সাথে কানেক্ট করবেন।
স্মার্টফোন চার্জ: যাদের মোবাইলের ব্যাটারী ৪০০০ mah। তারা প্রায় ২ বার চার্জ দিতে পারবে। অনেকেই ইচ্ছে করলে এটি ট্যুরে যাওয়ার সময় পাওয়ার ব্যাংক হিসেবে নিয়ে যেতে পারবে। মজার কথা হচ্ছে, এর সাইজ আর ধরন অনেকটাই পাওয়ার ব্যাংকের মত হওয়ায় খুব সহজে বহন করে নিয়ে যাওয়া যাবে।
সিসি ক্যামেরা সুবিধা: এই ডিভাইস দিয়ে সহজে সিসি ক্যামেরার লাইনও কানেক্ট করা যায়। তাতে আমরা যারা বাসা বা অফিসে সিসি ক্যামেরা ব্যবহার করি। তাদের অনেক সহযোগিতা হয়ে যায়।
আমার নিজের অভিমত : WGP mini WiFi ups দিয়ে সহজে নিত্যদিনের বিদ্যুৎবিহীন সময়ে ইন্টারনেট পাওয়া যাচ্ছে। যা সত্যি বলতে, বর্তমানে ভীষন প্রয়োজনীয় একটি ইলেকট্রনিকস ডিভাইস। নিসন্দেহে এর কার্যকারীতা অনেক সুবিধাজনক। আর শুধুমাত্র এটি রাউটার হিসেবে নয় বরং নিজে প্রয়োজনে পাওয়ার ব্যাংক হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে। আর এটা বহনযোগ্য একটি ডিভাইস। আর তাছাড়া সিসি ক্যামেরা সুবিধা ত থাকছেই।
এবার আসি এই সুবিধাজনক ডিভাইসের দাম কেমন হতে পারে? এই ডিভাইস ১৫০০ -২০০০ এর মধ্যে পাওয়া যাবে। আসলেই মূল্যের তুলনায় এর কার্যকারীতা অনেক বেশী বলে আমি মনে করি। তাই যাদের প্রয়োজন এমন একটি ইলেকট্রনিকস ডিভাইস তারা শীঘ্রই কিনে ফেলুন।

Level 1

আমি আত্তিয়া ফারাহ। পেইজ মোডারেটর ও কন্টেন্ট রাইটার, টটেজা, চট্টগ্রাম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 2 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 2 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস