আরডুইনো টিউটোরিয়াল [পর্ব-০৬] :: আরডুইনোতে ডিজিটাল ইনপুট সিগন্যাল গ্রহণ করার পদ্ধতি

আরডুইনো টিউটোরিয়াল

আসসালামু আলাইকুম। সবাই কেমন আছেন? আমারা ধারবাহিক টিউটোরিয়ালটি আপনাদের কেমন লাগছে? আমি জানি অনেকে হয়তো এখনো সেরকম মজা পাচ্ছেন না এই টিউটোরিয়াল থেকে। আপনারা অধৈর্য্য হবেন না। ধৈর্য্য ধরে ধাপে ধাপে শিখতে থাকুন। সামনে মজার মজার প্রজেক্ট অপেক্ষা করতেছে। তবে আগে আমাদের বেসিকটা তো ভালো করতে হবে তাই না?

আজকে আমরা ৬ষ্ঠ পর্ব নিয়ে আলোচনা করবো। এই পর্বে আমরা যে বিষয়টা দেখবো সেটা হলো আরডুইনোতে ডিজিটাল ইনপুট গ্রহণ করার পদ্ধতি। আমরা জানি সিগন্যাল দুই ধরনের: ডিজিটাল এবং অ্যানালগ। ডিজিটাল সিগন্যালে শুধুমাত্র দুটি অবস্থা থাকে। এগুলো হলো ০ এবং ১ অথবা অফ এবং অন  অথবা লো এবং হাই। ০ এর মানে হলো এটি লজিক্যালে লো আছে বা এর ভোল্টেজ লেভেল ২.৫ ভোল্টের কম। আবার ভোল্টেজ ২.৫ এর উপরে হলে আরডুইনো এই সিগন্যালকে লজিক্যাল হাই বা ১ হিসেবে ধরে নেয়।

আমরা জানি আরডুইনোতে মোট ১৪টি ডিজিটাল ইনপুট/আউটপুট পিন আছে। আমরা যে কোন পিন নিয়েই কাজ করতে পারি। শুধু প্রোগ্রাম লিখার সময় void setup() ফাংশনে ওই পিনকে ইনপুট হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিতে হবে। আজকের এই টিউটোরিয়ালটিকে একটা উদাহরণ দিয়ে শিখবো। যেটা আমি ভিডিওতে দেখিয়েছি। আমরা আরডুইনো এর যে কোন একটা পিনকে ইনপুট হিসেবে নিবো এবং আরেকটা পিনকে আউটপুট হিসেবে নিবো। আউটপুট পিনে একটা এলইডি থাকবে। ইনপু্ট পিনের লজিক্যাল অবস্থা অনুযায়ী আমরা এলইডি জ্বলবে নাকি নিভবে সেটা নির্ধারণ করবো।

যদি ইনপুট পিনে লজিক্যাল হাই বা ১ বা ৫ ভোল্ট থাকে তাহলে এলইডিও জ্বলবে। আবার যদি ইনপুট পিনের লজিক্যাল অবস্থা লো বা ০ বা ০ ভোল্ট হয়ে যায় তাহলে এলইডিও নিভে যাবে। অর্থ্যাৎ আজকে আমরা এলইডির অবস্থা নির্ধারণ করবো ইনপুট পিনের উপর।

আমাদের মূল ভিডিও টিউটোরিয়ালটি দেখার আগে একটা বিষয় একটু বলে রাখার দরকার। সেটা হলো আমরা কিভাবে আরডুইনোর ইনপুট পিনে লজিক্যাল হাই বা লো অবস্থা তৈরী করতে পারি? এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। নিচের ছবিটা ভালো করে দেখুন।

এখানে আরডুইনোর একটা পিনকে ৫ ভোল্টের একটাসংযোগের সাথে ১০ কিলোওহম মানের একটা রেজিস্টর দিয়ে সংযোগ দেয়া হয়েছে। ফলে আরডুইনোর পিনটিতে লজিক্যাল হাইঅবস্থা সৃষ্টি হবে। রেজিস্টরটা দেয়া হয়েছে শুধুমাত্র বিদ্যুৎ প্রবাহটাকে কিছুটা কমানোর জন্য। এবার নিচের ছবিটা দেখুন।

এখানে আগের সংযোগের সাথে একটা গ্রাউন্ডকে কানেকশন দেয়া হয়েছে। গ্রাউন্ড সংযোগ দেয়ার মানে হলো এখানে ০ ভোল্ট আছে। এখন ভালো করে খেয়াল করুন একই পিনে ৫ ভোল্ট এবং গ্রাউন্ডকে একত্রে সংযোগ দেয়া হয়েছে। একে বলা হয় সর্ট করানো। এরফলে এই অবস্থায় এখানে ফাইনাল অবস্থা হবে লজিক্যাল লো বা ০। এখন একটু চিন্তা করে দেখুন তো আমরা গ্রাউন্ড কানেকশন না দিলে নরমালি লজিক্যাল হাই থাকে আর গ্রাউন্ড পিন সহ একসাথে সর্ট করে দিলে সেখানে লজিক্যাল লো হয়ে যায়।

এভাবেই আমরা এখানে লজিক্যাল লো এবং হাই তৈরী করবো। কাজটা আরেকটু সহজে করার জন্য গ্রাউন্ডের পরে একটা সুইচ বসিয়ে দিবো। তাহলে সুইচ খোলা থাকলে নরমালি ৫ ভোল্টের সাথে কানেক্টেড থাকার কারণে পিনে লজিক্যাল হাই অবস্থার সৃষ্টি হবে। আর যখন সুইচটা ক্লোজ করে দিবো তখন সর্ট হয়ে যাবে এবং লজিক্যাল লো অবস্থার সৃষ্টি হবে। আশা করছি বুজতে পেরেছেন। যদি বুজে থাকেন তাহলে এবার আমাদের মূল ভিডিও টিউটোরিয়ালটি দেখুন।

আশা করছি আজকের পর্বটি আপনারা ভালো করে বুজতে পেরেছেন। তারপরও যদি কারো কোন সমস্যা থাকে তাহলে অবশ্যই টিউমেন্ট করে জানাবেন।

আমাদের ফেসবুক পেজ: নাবা টেক ওয়ার্ল্ড

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল: Naba Tech World

আমাদের এই টিউটোরিয়াল সম্পর্কে আপনাদের যে কোন মতামত বা জিজ্ঞাসা আমাদের ফেসবুক পেজে জানাতে পারেন। আমাদের ভিডিওগুলো ভালো লাগলে এবং আপনার সামান্যতম উপকারও হয়ে থাকলে অামাদের ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করার অনুরোধ থাকলো। সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ।

Level 0

আমি নাদিমুল হক জুলাস। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 26 টি টিউন ও 72 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস