মানুষকে আশরাফুল মাখলুকাত বলার কারন জেনে নিন?

টিউন বিভাগ এডুটিউনস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 4
২য় বর্ষ, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ, গাইবান্ধা

হ্যালো বন্ধুরা, আশা করি সবাই ভালো আছেন। বরাবরের মতো আজ ও নিয়ে এসেছি অসম্ভব সুন্দর একটা টিউন নিয়ে। এই টিউনটি ইসলামিক একটা টিউন। আশা করি আপনাদের ভাল লাগবে। চলুন শুরু করা যাক। আমি যদি আপনাদেরকে প্রশ্ন করি আল্লাহর সৃষ্ট কোন জীবকে আশরাফুল মাখলুকাত বলা হয়?

আপনি সহজেই বলবেন মানুষকে বলা হয়। কিন্তু যদি প্রশ্ন করি কেন মানুষকে আশরাফুল মাখলুকাত বলা হয় তাহলে অনেকেই বলতে পারবে না। আবার যদি বলি পাহাড় এর কাজ কি এই সুন্দর পৃথিবীতে?

অনেকেই কিন্তু বলতে পারবে না। এই অল্প জ্ঞান টকুই যারা জানে না তাদের জানানোর উদ্দেশ্যে আমার এই টিউন।

মানুষকে কেন সেরা জীব ঊপাধি দেয়া হলো এবং পাহার এর কাজঃ

পবিত্র কোরআনে ও হাদিসের বিভিন্ন বর্ণনায় মানুষকে শ্রেষ্ঠ সাব্যস্ত করা হয়েছে। মহানবী (সা.) বলেন, আল্লাহ যখন পৃথিবী সৃষ্টি করেলেন, তখন তা কাপতে থাকল।
অতঃপর তিনি পাহাড় বানালেন এবং পৃথিবীর ওপর তা স্থাপন করেন। ফলে পৃথিবীর কাঁপা বন্ধ হয়ে গেল।

ফেরেশতারা পাহাড় দেখে অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করলো, হে আমাদের রব! আপনার সৃষ্টির মাঝে পাহাড় এর থেকে মজবুত কি কিছু আছে?আল্লাহ বললেন, হ্যাঁ আছে। ফেরেশতারা জিজ্ঞাসা করলো তা কি?আল্লাহ তায়ালা বললেন তা হলো লোহা। কারন লোহা পাহাড় কাটে।

ফেরেশতারা পুনরায় প্রশ্ন করল, আপনার সৃষ্টির মাঝে লোহার চেয়ে শক্ত কি কিছু আছে?আল্লাহ বললেন, হ্যাঁ আছে, আর তা হলো আগুন। কারণ আগুন লোহা গলায়।

ফেরশতারা পুনরায় প্রশ্ন করলেন, হে আমাদের মালিক! আপনার তৈরির মধ্যে আগুনের চেয়ে শক্তিশালী কি কিছু আছে? আল্লাহ বললেন, হ্যাঁ আছে। তা হলো পানি। কারণ পানি আগুন নেভায়।

তারা আবার জিজ্ঞাস করলেন, হে আমাদের প্রতিপালক, আপনার সৃষ্টির মধ্যে পানির চেয়ে অধিক শক্তিশালী কিছু আছে কি? আল্লাহ বললেন আছে আর তা হলো বাতাস। কারণ বাতাসের উচ্চচাপ নিম্নচাপ এর কারনে জলোচ্ছ্বাসের সৃষ্টি হয়।

তখন ফেরেশতারা ব্যাকুল হয়ে আবার প্রশ্ন করলো ও আমাদের রব আপনি বলুন বাতাসের চেয়ে প্রবল কি আছে? আল্লাহ বললেন আছে আর তা হলো মানুষ। কারন তাদের মধ্যে কেউ কেউ ডান হাতে যা দান করে, বাম হাত থেকে তা গোপন রাখে। মুসনদ আহমদ, পৃষ্ঠা ৫৭৬। আলহামদুলিল্লাহ আল্লাহ আমাদের সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ বানিয়েছেন।

মানুষ সম্পর্কে কিছু তথ্যঃ

প্রাণ আছে যার তাকে জীব বলে। মনিষীদের মতে, আল্লাহ তায়ালা জড় ও জীব মিলে মোট ৮০ হাজার বস্তু তৈরি করেছেন। স্থলে ৪০ হাজার এবং পানিতে ৪০ হাজার। এসব সৃষ্টির মধ্যে মানুষ সেরা। মানুষই আশরাফুল মাখলুকাত বা সেরা জীব।

মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, অবশ্যই আমি আদম সন্তানকে সম্মান দিয়েছি এবং তাদের জলে ও স্থলে শ্রেষ্ঠ বানিয়েছি, তাদের উত্তম জীবন প্রদান করেছি এবং তাদেরকে অনেক সৃষ্টির মধ্যে শ্রেষ্ঠত্ব দান করেছি। (সুরা ইসরা-৭০)

মানুষের অনান্য গুণাবলিঃ

সুন্দর চেহারা, সুঠাম দেহ একমাত্র মানুষকে দেওয়া হয়েছে যা আর কোনো জীবকে দেওয়া হয় নি। তাছাড়া বুদ্ধি ও চেতানা অন্য প্রানির চেয়ে বেশি। ফলে মানুষ সব প্রাণিকে নিজের কাজে নিয়োজিত করতে পারে।

মানুষকে দান আল্লাহ তায়ালাকে দান করার সমতুল্য

হাদিসে বলা হয়েছে যে আল্লাহ তায়ালা বিচারের দিনে বলবেন "হে মানুষ আমি অসুস্থ ছিলাম, তুমি আমার খিদমত করোনি, আমি তোমার কাছে খাবার চেয়েছিলাম, তুমি আমাকে খাবার দাওনি, আমি তোমার কাছে পানি চেয়েছি, তুমি আমাকে পানিও দাওনি। মানুষ বলবে কিভাবে আপনাকে পানি পান করাতাম, আপনিই তো এই জগতের রব। আল্লাহ তায়ালা বলবেন আমার অমুক বান্দা তোমার কাছে পানি চেয়েছিল। তুমি তাকে পানি পান করাও নাই। তখন তাকে পানি পান করালে আমার কাছে আজ তার বিনিময় পেতে। মুসলিম-২৫৬৯

টিউন টি ভালো লাগলে জোসস দিতে ভুলবেন না। আর কোন মন্তব্য থাকলে টিউমেন্ট এ আমাকে জানাতে ভুলবেন না। এ পর্যন্ত আমার সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Level 4

আমি মোঃ তানজিন প্রধান। ২য় বর্ষ, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 5 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 58 টি টিউন ও 55 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 10 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 4 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো হারিয়ে যাই চিন্তার আসরে, কখনোবা ভালোবাসি শিখতে, কখনোবা ভালোবাসি শিখাতে, হয়তো চিন্তাগুলো একদিন হারিয়ে যাবে ব্যাস্ততার ভীরে। তারপর ব্যাস্ততার ঘোর নিয়েই একদিন চলে যাব কবরে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস