ক্রিয়েটিভ! ক্রিয়েটিভ!! ভাইয়া এতো ক্রিয়েটিভ ভাবনা কীভাবে তৈরি করবো? সব ক্রিয়েটিভ কাজ তো শেষ। আপনি যদি এমনটাই ভাবেন তাহলে এই টিউনটি আপনার জন্যই। এবার সবাই নিজের ক্রিয়েটিভ জগত তৈরি করুন!!

হ্যালো টেকটিউনস কমিউনিটি, কেমন আছেন সবাই। আজকে আপনাদের মন ভালো করার মতো টপিকস নিয়ে আমি চলে আসছি। আজকের টপিকস আপনার ক্রিয়েটিভ চিন্তাকে আরও বেশি প্রসারিত করবেন কীভাবে। যুগে যুগে ক্রিয়েটিভ মানুষ এভাবেই এগিয়ে গেছে।

জীবনে উন্নতি এবং খ্যাতির প্রধান সোপান ক্রিয়েটিভ কাজ। ক্রিয়েটিভ চিন্তা এবং ভাবনা ছাড়া কখনও এই জগতে বড় হওয়া সম্ভব না। কিন্তু সবাই ক্রিয়েটিভ চিন্তা করতে পারে না বা অনেকে ভাবে তাদের ক্রিয়েটিভ চিন্তা করার ক্ষমতা নাই। কিন্তু এটি ভুল। মানুষ জন্ম থেকে কিছু নিয়ে জন্মায় না। যা হয় সব তার নিজের পরিবেশ এবং কাজের ফল।

সেহেতু আপনি চেষ্টা করলে আপনার এক্সট্রা কিছু কোয়ালিটি গড়ে তুলতে পারেন। যা হয়তো আপনার ভবিষ্যৎ কে আরও একটু সুন্দর করতে সহায়তা করবে। গান্ধীজীর একটা কথা খুব মনে পড়ে, The future depends on what you do today (আপনি আজ যা করবেন তার উপর নির্ভর করবে আপনার ভবিষ্যৎ)

কিন্তু অনেক সময় আমরা ভাবী ক্রিয়েটিভ কাজ হয়তো আমার দ্বারা সম্ভব না। বা আমি ঐসব  লোকের দলে না। কিন্তু ভুলে গেলে চলবে না, আপনি যেখানেই থাকুন, যেভাবেই থাকুন সেখান থেকেই আপনি আবার ইউ-টার্ন (U-Turn) দিতে পারেন। তবে সেজন্য আপনার নিজের উপর অগাধ কনফিডেন্স থাকা লাগবে।

যে ২০ ধারণা আপনাকে সৃজনশীল চিন্তা করতে সহায়তা করবেঃ

১) রিল্যাক্স মুডে ভাবুনঃ

আমরা সারাদিন কর্মব্যস্ততার মধ্যে থাকি। এই সময় নানা ভাবনা আমাদের মনে উঁকি দেয়। কিছু আসলেই কাজের কিন্তু আমরা ব্যস্ততার মধ্যে সেগুলো গুলিয়ে ফেলি। সেহেতু আপনি দিনের যে সময় খুব ফ্রি থাকেন। সেই সময় জাস্ট নিরিবিলি বসে পড়ুন বা নির্জন কোথাও সময় দিন নিজের কাছে নিজেকে, এই রিল্যাক্সের সময় আপনি নতুন কিছু মনের গহীন থেকে বের করতে পারবেনই। প্রকৃতির নিরন্তর কাছে থেকে এবং নিজের কাছে নিজেকে সপে দিলে আপনার ভিন্ন ভাবনার ভেতর নতুন কিছু আনতে সহজ করবে। তবে নতুন কিছু বের করার উদ্দেশ্যে বা সংকল্প করে বসবেন না। জাস্ট রিল্যাক্স করবেন এবং এটা আপনাকে কখন নতুন ভাবনা নিয়ে আসবে আপনি নিজেই বুঝে উঠতে পারবেন না।

২) নতুন মানুষের সংস্পর্শ আসুনঃ

যখনি সুযোগ হবে তখনই পারলে নতুন কিছু মানুষের সান্নিধ্য নিন। আপনার চলার পথে, কর্মক্ষেত্রে যেখানে নতুন মানুষ পাবেন তাদের সাথে আপনার চিন্তা-ভাবনা শেয়ার করুন এবং তাদের চিন্তাকে আগ্রহের সহিত শুনুন। এখান থেকে মূল্যবান কিছু ভাবনা আপনি পেয়ে যেতেই পারেন। তাছাড়া সেই অভিজ্ঞতা আপনার নতুন কিছু সৃষ্টিতে সহায়তা করবে।

৩) ভাবনা বিনিময় করুনঃ

আপনার নতুন ভাবনা বিনিময় করুন। অন্যের ভাবনার সাথেও নিজে সম্পৃক্ত হন। বিভিন্ন ব্লগের সাথে যুক্ত হন। ব্লগ আপনার ভাবনা শেয়ার এবং অন্যের ভাবনার সাথে সম্পৃক্ত হতে বিশেষ সহায়তা করবে। অন্যের ভাবনায় যখন আপনি কমেন্ট করতে যাবেন তখন আপনি তাদের মতের সাথে কিছু মন্তব্য করবেন। যা আপনার চিন্তা শক্তি বৃদ্ধি করবে। বিভিন্ন ফোরামে যুক্ত থাকলে আপনি চিন্তা শক্তি বহুগুন বৃদ্ধি পাবে। তাছাড়া নতুন নতুন মানুষ, চিন্তার সাথে নিজেকে মানাতে পারবেন।

৪) সৃষ্টিশীল লেখকের বই পড়ুনঃ

বই শুধু মনের ক্ষুদাই মেটাই না, এটা আপনাকে আপনার মতো করে ভাবতে শেখায় সাথে নতুন নতুন কিছুর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। নতুন নতুন আইডিয়ার সাথে রাখে, নতুন উদ্ভাবনের মাঝে নিজেকে তৈরি করে। সেহেতু নতুন পুরাতন ভালো ভালো লেখকের বই পড়ুন। বই আপনাকে নতুন বহু জিনিসের সাথে পরিচিত করবে, নতুন কিছু সৃষ্টিতে সাহস, শক্তি এবং ভাবনা দিবে।

৫) সাম্প্রতিক নিউজের সাথে একাত্ম থাকুনঃ

নতুন নতুন সৃজনশীল উদ্ভাবন করতে সাপ্রতিক নিউজের থাকা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আপনি দেশের বিভিন্ন ঘটনার সাথে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ঘটনার সাথে আপনি জড়িত হতে পারবেন। যা আপনার নতুন ভাবনা তৈরিতে খুব সাহায্য করবে।

৬) নিজের সাথে কথা বলুনঃ

মাঝে মাঝে আপনি খুব হতাশ হতে পারেন বা নিজের কাছে অপরাধী হয়ে উঠতে পারেন। এই সময় এটা আপনাকে খুব সাহায্য করবে। জাস্ট নিজেই নিজের সাথে কথা বলবেন এবং শব্ধ করে। মনীষীরা নাকি এটাতে অনেক ফল পাইতেন।

তবে সাবধান মানুষের সামনে এটা করতে যাবেন না, তাহলে পাগল বলতে দ্বিধা করবে না।

৭) তর্ক করুনঃ

পরিচিত বন্ধু বা হালকা পরিচিত কারও সাথে তর্কে জড়াতে পারেন। নিজেদের তৈরি টপিকস বা সাম্প্রতিক কোন নতুন ঘটনা নিয়ে, এতে আপনার যুক্তি শক্তি এবং চিন্তা শক্তি বাড়বে।

৮) নিজের কাজ নিজে করুন মাঝে মাঝেঃ

নিজের কাজ নিজে করুন মাঝে মাঝে। এতে আপনি গোছাতে পারবেন নিজের কিছু ভাবনা। সবসময় অন্নকে দিয়ে কাজ করাতে বিশ্বাসী হবেন না। নিজের কাজের ভেতর অনেক ভাবনা লুকিয়ে থাকে।

৯) রিয়িলিটি শো দেখুনঃ

মাঝে মাঝে বিনোদনের জন্য রিয়িলিটি শো দেখুন। এটি আপনাকে নতুন কারও চিন্তার সাথে একাত্ম হতে সহায়তা করবে। নতুন মানুষের চিন্তা থেকে নতুন কিছু ভাবনা বের হতেই পারে।

১০) নিজের ভাবনাকে মাঝে মাঝে বেশি মূল্য দিনঃ

সব সময় আপনার ক্লায়েন্ট যা চাইবে তা না করে নিজের থেকেও কিছু করার চেষ্টা করুন। এতে আপনার নিজের ভেতরের সুপ্ত প্রতিভা খুঁজে পেতে সহায়ক হবে। আপনার মনের ক্লান্তিও দূর হবে।

১১) নতুন জায়গায় ভ্রমণ করুনঃ

সময় সুযোগ পেলেই নতুন নতুন জায়গায় ভ্রমণ করুন। দেশের ভেতর বা দেশের বাইরে। এতে করে আপনি অনেক নতুন মানুষের সাথে মিশতে পারবেন। পুরাতন বন্ধুদের সাথে হঠাৎ করে নতুন কোন জায়গায় ভ্রমণ করুন। এতে আপনি উৎসাহ পাবেন, সাথে নতুন অনেক ধারণার সাথে যুক্ত হতে পারবেন।

১২) নতুন বন্ধু তৈরি করুনঃ

সুযোগ হলে নতুন নতুন বন্ধু তৈরি করুন। তাতে আপনি নতুন অনেক আইডিয়ার সাথে একাত্ম হতে পারবেন। তাদের সাথে এক সাথে ট্রিট দিতে পারেন, এটাকে আপনাকে সবল করবে বিভিন্ন দিকে।

১৩) স্পোর্টে যুক্ত থাকুনঃ

নতুন পুরাতন বন্ধুদের সাথে গ্রুপ কোন খেলা করতে পারেন। তাতে আপনার ব্রেন ভালো কাজ করবে, বহুদিনের কর্মক্লান্তি দূর হবে। পছন্দের খেলা মাঠে বসে উপভোগ করতে পারেন অনেকে মিলে।

১৪) স্পেশাল টি ব্রেকে যানঃ

সবসময় যেখান থেকে চা বা কফি খান তার ব্যতিক্রম মাঝে মাঝে করুন। একটু দূরে রোড সাইডে চা খেতে পারেন। যেখান থেকে বাইরের মানুষের চলাচল দেখা যাবে। তবে খুব কোলাহল থাকবে না। বিশ্বাস করুন, এটি আপনাকে অনেক বেশি সজীব করবে।

১৫) নিজেকে নতুন গিফট করুনঃ

মাঝে মাঝে পারলে নিজের জন্য নিজেই গিফট কিনুন। তবে প্রয়োজনীয় কিছু কিনুন। যা আপনার চাহিদাও মেটাবে আবার নিজেকে সজীব এবং মোটিভেট করবে।

১৬) ভিন্ন রাইডে চড়ুনঃ

আপনি যে সব যানে চলাচল করেন, তার ব্যতিক্রম করুন মাঝে মাঝে। হয়তো পাবলিক বাসে উঠে পড়লেন বা ট্রেনে চড়ে একটু ঘুরে আসলেন। এটা আপনাকে নতুন নতুন অনেক অভিজ্ঞতা তৈরিতে সহায়তা করবে। নৌকা ভ্রমণেও আপনার অনেক সজীব করবে।

১৭) মেডিটেশন করুনঃ

মেডিটেশন বা ইয়োগা কর্ম ক্লান্তি বা স্ট্রেস দূর করতে খুব সাহায্য করে। মাঝে মাঝে আপনি গ্রুপ মেডিটেশনে যুক্ত হতে পারেন বা গ্রুপ ইয়োগা এটা আপনাকে প্রশান্তি করবে, নতুন ধারণা তৈরিতে অনেক বেশি হেল্প করবে। নিজে নিজে প্রকৃতির মাঝেও মেডিটেশন করবেন মাঝে মাঝে। এটা আপনার সুপ্ত প্রতিভা জাগ্রত করবে।

১৮) প্রকৃতির মাঝে হারিয়ে যানঃ

মাঝে মাঝে খুব বেশি প্রকৃতির সাথে মিশে যান। পার্ক সবসময় হারিয়ে যাওয়ার জন্য উপযুক্ত নন। সেজন্য নিরিবিলি নির্জন প্রকৃতি বেঁছে নিন। সাথে সঙ্গী হিসেবে আপন কাউকে রাখুন। এটা আপনাকে শহরের কর্ম ব্যস্ততা থেকে দূরে রাখবে এবং নতুন উদ্ভাবনী চিন্তা করতে সহায়তা করবে।

১৯) দাতব্য সংস্থার সাথে যুক্ত থাকুনঃ

দাতব্য কিছু সংস্থার সাথে নিজেকে যুক্ত রাখুন এবং মাঝে মাঝে সেখানে ভিজিট করুন। এতে করে আপনি আপনার জগতের বাইরের কিছু নতুন মুখের সাথে উঠা-বসা করতে পারবেন। আপনাকে নতুন কিছু করার প্ল্যান এবং সাহস দিবে।

২০) কিছু লেখার চেষ্টা করুনঃ

মিজের কাছে হোক আর বিভিন্ন ব্লগে হোক নিজের ছোট্ট ভাবনা মাঝে মাঝে লিখে রাখুন। এতে করে আপনার চিন্তার প্রসারতা আপনার কাছে তুলে ধরবে এই লেখা মাঝে মাঝে।

সৃজনশীল মানুষের সংস্পর্শে থেকে এই জিনিস গুলো খুব উপলব্ধি করেছি। তারা অনেক সময় এমন কিছু করে যা আপনি ভাবতেই পারবেন না। আপনি নিজেও করতে পারবেন এইসব কাজ। সেজন্য একটু নিজেকে নিজের মতো করে চলতে দিন এবং তার মধ্যে নিজেকে একটু সাজিয়ে তুলুন।

"Create ideas" ধন্যবাদ সবাইকে। 🙂

আপনার নিজের কোন ক্রিয়েটিভ ভাবনা নিয়ে আসার ভিন্ন মত বা পদ্ধতি থাকলে আমাকে টিউমেন্টের মাধ্যমে জানাতে ভুলবেন না।

আরও কিছু ফিচারড টিউনঃ

Level 0

আমি আইটি সরদার। Web Programmer, iCode বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 263 টি টিউন ও 1750 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 21 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি ইমরান তপু সরদার (আইটি সরদার),পড়াশুনা শেষ করছি কম্পিউটার প্রযুক্তিতে (২০১৮); পেশা প্রোগ্রামার। লেখালেখি করি নেশা থেকে ফেব্রুয়ারি ২০১৩ থেকে। লেখালেখির প্রতি শৈশব থেকেই কেন জানি অন্যরকম একটা মমতা কাজ করে। আর প্রযুক্তি সেটা তো একাডেমিকভাবেই রক্তে মিশিয়ে দিয়েছে। ফলস্বরুপ এখন আমার ধ্যান, জ্ঞান, নেশা সবকিছু প্রোগ্রামিং এবং লেখালেখি নিয়ে।...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

onk valo laglo post ta
very educative post

Level 0

ভালই লিখেছেন।পড়তে ভালই লাগল।

Level 0

Great Post.

Level 0

বাংলাদেশে মানুশের সৃজনশীল আইডিয়া শেয়ার করার কোন প্লাটফর্ম নেই। যেটা থাকলে খুব ভাল হত।মানুশ মানুশকে অনেক সাহাজ্য করতে পারত।যেহেতু নেই,আমরা সকলে মিলে এরকম একটা কমিউনটি গড়ে তুলতে পারি।আপনারা সকলে আওয়াজ দিলে,বেপারটা নিয়ে আরেকটু মাথা-ঘামানো যায়।আসুন নতুন কিছু করি 🙂

ধন্যবাদ সুন্দর পোস্টের জন্য ।

ভাবতেছি কি কমেন্ট করব!!!!!!? ণরধাসাঅ

বরাবরের মতোই সুন্দর টিউন। ধন্যবাদ।

khub valo laglo

অনেক ভাল লাগলো ।

অনেক ভাল লাগলো ।একজন ভাল মনোবিজ্ঞানী হতে পারবেন ।

অসাধারণ