কম্পিউটার সাইন্স পড়াশোনা [পর্ব-০৫] :: কম্পিউটার সাইন্সের ভবিষ্যৎ চাহিদা কেমন? (IT তে পড়াশোনা করতে জানুন)

কম্পিউটার সাইন্স পড়াশোনা

আমার কি কম্পিউটার সাইন্স পড়া উচিত? আমি কি পারব? আমি কি কম্পিউটার সাইন্স পড়ে ভালো ক্যারিয়ার গড়তে পারব? এরকম প্রশ্ন অনেকে করছেন।

আসলে এই প্রশ্নের উত্তর আপনাকেই নিতে হবে।

আপনি যদি মন থেকে এই বিষয়ে এক্সপার্ট হতে চান, ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময় দিতে আগ্রহী থাকেন, তাহলে আপনি কম্পিউটার সাইন্স বা IT পড়তে পারেন। আমি মনে করি।

আমি আসলে আলোচনা করবো কম্পিউটার সাইন্স বা IT এর বর্তমান ও ভবিষ্যৎ চাহিদা

আসুন জানি,

  • কম্পিউটার হল ভবিষ্যতে আমরা যা ই করতে যাব তার একটা অংশ। একুশ শতকে প্রত্যেকটা কাজে এটা ছাড়া চলা আসলেই অসম্ভব।
  • কম্পিউটিং আপনার নিত্য নতুন চ্যালেঞ্জ গ্রহনে সহযোগিতা করবে। তাছাড়া স্কিল উন্নয়নে আপনার জীবনে কম্পিউটিং এর বিকল্প নেই।

  • ইঞ্জিনিয়ারিং, বিজনেস, বিনোদন এবং শিক্ষার প্রত্যেকটা ক্ষেত্রে কম্পিউটার সাইন্স বা IT  এর ব্যাপক ব্যবহার ছাড়া চলা অসম্ভব।
  • কম্পিউটিং আপনাকে অসাধারণ ক্যারিয়ার উপহার দিতে পারে। এখানে আপনি পাবেন সর্বোচ্চ বেতনের এবং সর্বোচ্চ সন্তুষ্টির ক্যারিয়ার। ভবিষ্যতে ব্যাপক উন্নয়নের কারিগর হতে পারেন এই পেশার মাধ্যমে।

  • শুধুমাত্র USA এর এক জরিপ দেখায়, IT ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ কর্মকর্তার ব্যাপক অভাব। জরিপে আরও বলছে ভবিষ্যতে সবথেকে সম্ভবনাময় কর্মক্ষেত্র করা সম্ভব এই IT  সেক্টরে। তারা বলছে, এই সেক্টরে ট্যালেন্ট খুঁজছেন সবসময় তারা। তাহলে অন্যদেশের কথা আপনারাই ভাবুন-কি সুযোগ এই সেক্টরে।

  • তাছাড়া IT তে পড়াশোনা করে অন্য সেক্টরে কাজ করলেও ক্যারিয়ার  উন্নয়নে বেশি সুবিধা পাবেন অন্যদের থেকে। (গবেষণালব্ধ)
  • IT তে ক্রিয়েটিভ কাজ করার সুযোগ বেশি। আপনার পছন্দের ক্ষেত্রে পদচারনা করতে পারবেন ইচ্ছা মতো।

  • কম্পিউটিং এ দক্ষ হলে আপনি অফিসিয়ালি কাজ না করেও নিজস্ব কর্মক্ষেত্র তৈরি করতে পারেন।
  • ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বলে, IT সেক্টরে জবের আসলে কোন বাউন্ডারি নাই। আপনি আসলে বিচরন করতে পারেন পৃথিবীর সব সেক্টরে এই কমইউটিং এর মাধ্যমে।

তবে একটা কথা না বললেই নয়, আমাদের দেশে যারা কম্পিউটার সাইন্স পড়ছেন, তারা হয়তো নিজেদের বিশাল কিছু ভেবে বসি!!!

কিন্তু বাস্তব সত্য কথা হচ্ছে আপনার একাডেমিক পড়াশোনার পাশাপাশি যদি নিজেকে নিজের চেষ্টায় যেকোনো IT সেক্টরে দক্ষ না করতে পারেন, তাহলে হয়তো আপনি ভবিষ্যতে খুব বেশি বিপদে পড়তে পারেন, কর্মক্ষেত্রে যেয়ে।

কম্পিউটার সাইন্স সম্পূর্ণ প্রাকটিকালভাবে জানার একটা বিষয়, সেহেতু নিজেকে দক্ষ করুন নিজের চেষ্টায়; কারণ একডেমিকভাবে প্রাকটিকাল নলেজ কম পাবেন।

আজ এটা আমার ২৫ তম টিউন। পছন্দ হলে "নির্বাচিতটিউন মনোনয়ন" এর মাধ্যমে ভোট দিতে পারেন।

আমার সাথে দেখা হবে টেকটিউনসে অন্য কোন টপিকসে।

ধন্যবাদ।

Level 0

আমি আইটি সরদার। Web Programmer, iCode বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 2 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 263 টি টিউন ও 1750 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 21 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি ইমরান তপু সরদার (আইটি সরদার),পড়াশুনা শেষ করছি কম্পিউটার প্রযুক্তিতে (২০১৮); পেশা প্রোগ্রামার। লেখালেখি করি নেশা থেকে ফেব্রুয়ারি ২০১৩ থেকে। লেখালেখির প্রতি শৈশব থেকেই কেন জানি অন্যরকম একটা মমতা কাজ করে। আর প্রযুক্তি সেটা তো একাডেমিকভাবেই রক্তে মিশিয়ে দিয়েছে। ফলস্বরুপ এখন আমার ধ্যান, জ্ঞান, নেশা সবকিছু প্রোগ্রামিং এবং লেখালেখি নিয়ে।...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

নাইস ! ভাই বাংলা পিডিএফ কালেকশন চাই ! আশা করি দেবেন

    @Ashikur Rahman Tomal: সাথে থাকুন ভাই, পাবেন। ধন্যবাদ।

Level 0

ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য ।

hmmm ভাই খুব ভাল লাগ্ল চালায় জান 😀

nice.

Level 0

@It.sardar, ভাই যা লেখলেন তা তো একেবারে মন ছুয়ে গেল, তবে ভাই আপনার এই কথাটি খুব মূল্যবান (কম্পিউটার সাইন্স সম্পূর্ণ প্রাকটিকালভাবে জানার একটা বিষয়, সেহেতু নিজেকে দক্ষ করুন নিজের চেষ্টায়; কারণ একডেমিকভাবে প্রাকটিকাল নলেজ কম পাবেন।) একাডেমিকভাবে শিক্ষকরা শুধু লেকচার দিয়েই যায়——- আর বলে শুধু “তোমরা বুঝেছ, বুঝতে পারছ” ক্লাসে সবাই না বুঝেও বলে বুঝতে পারছি স্যার, আর প্র্যাকটিক্যাল ক্লাসের খবর বলি—-স্যারদের কথা:—- আজকে এইটুকুই — বাকি টা Next Class a আমরা করবো, তোমরা বাসায় try করে আইসো, Next Class a আসার পর বলে তোমরা বাসায় try করেছিলে ….এখন এই ভাবে এইভাবে করবে— না বুঝলেও সবাই বলে ঠিক আছে স্যার— ,,, আর আমাদের মত Student দের কথা বলি আমার প্রথম প্রথম তো ঠিক মত প্র্যাকটিক্যাল করি না— পরে যখন প্র্যাকটিক্যাল করার সময় হয় তখন কিছুই বুঝি না………..।

আসল কথা হলো যত বেশি প্র্যাকটিক্যাল তত বেশি সাফল্য পাওয়া যাবে এই সেক্টরে। হোক সেটা গ্রুপ প্র্যাকটিক্যাল অথবা একা একা ………….

    @mithushan: ভাই কি নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বললেন? তাই মনে হল। ধন্যবাদ। কথাগুলো আমরা যারা পড়ছি তারা জানি, খুবই সত্য। ধন্যবাদ।

প্রিয় টিউনার,

আপনি ভুল ভাবে আপনার চেইন টিউনের শিরোনাম গুলো দিচ্ছেন। আপনি পর্ব হিসেবে টিউনের শিরোনাম গুলো –

চেইন টিউনের নাম [পর্ব-০১] :: চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু …

চেইন টিউনের নাম [পর্ব-০২] :: চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু ….

চেইন টিউনের নাম [পর্ব-০৩] :: চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু

এর অর্থ প্রথমে চেইন টিউনের নাম, এরপর (স্পেস দিয়ে) স্কয়ার ব্রাকেটের ( [ ] ) মধ্যে পর্ব হাইফেন (-) দিয়ে দুই সংখ্যায় পর্বের নম্বর। স্কয়ার ব্রাকেটের ( [ ] ) ভিতরে কোন স্পেস দিবেন না। এরপর (স্পেস দিয়ে) ডাবল কোলন (::) এর পরে (স্পেস দিয়ে) চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু॥ এই ফরমেটে চেইন টিউনের শিরোনাম গুলো লিখুন।

এই চেইনের পূর্বের পর্ব গুলোর শিরোনাম গুলোও যদি ‘টেকটিউনস চেইন টিউনের’ শিরোনাম মোতাবেক করা না থাকে তবে সব গুলো এখনই সংশোধন করুন ও পরবর্তী সকল চেইন টিউনে সঠিক ভাবে চেইন টিউনের শিরোনাম দিন।

টিউনের শিরোনাম গুলো ‘টেকটিউনস চেইন টিউনের’ শিরোনাম মোতাবেক সঠিক ভাবে সংশোধন করে আপডেট করে এই টিউমেন্টটির প্রতুত্তর (রিপ্লাই) দিন। টেকটিউনস থেকে আপনার টিউন গুলো চেইন করে দেওয়া হবে।

চেইন টিউন কীভাবে প্রক্রিয়া হয় তা জানতে ‘টেকটিউনস সজিপ্র’ https://www.techtunes.co/faq এর ‘চেইন টিউন’ অংশ দেখুন। ধন্যবাদ।

    @টেকটিউনস মেন্টর V: প্রিয় টেকটিউনস, উপরের টিপস মোতাবেক আমি আমার ৫ টি টিউনের শিরোনাম গুলো সংশোধন করেছি। আশা করি আর সমস্যা হবে না। তারপরও যদি কোন সমস্যা থাকে, দয়াকরে জানাবেন।
    ধন্যবাদ টেকটিউনসকে।

Level 0

Thik bolechen.