Room Arranger – আপনার ঘর সাজাতে অপূর্ব এক সফটওয়্যার

প্রযুক্তির ব্যবহার পৌঁছে গেছে সবখানে। আধুনিক বিশ্বের এই সত্যটিকেই যেন আরেকবার প্রমাণ করে রুম অ্যারেঞ্জার নামক সফটওয়্যারটি। আমরা নিজেদের ঘর সাজিয়ে থাকি বিভিন্ন রূপে, বিভিন্ন রঙ্গে। কিন্তু সবসময় কি আমরা দারুণ করে ঘর সাজাতে পারি? অনেক সময় হয়তো দেখা যায় আসবাবপত্র গোছগাছ সম্পন্ন করার পর নতুন ডিজাইনটি আর ভালো লাগছে না। কিন্তু তারপর হয়তো আবার অ্যারেঞ্জ করার মতো মনমানসিকতাও থাকে না। তাই বলে আপন ঘর কিংবা অফিস, অ্যাপার্টমেন্ট কিংবা বাড়ির আঙ্গিনা সাজানোর জন্য ইঞ্জিনিয়ার ডেকে আনবেন?

এতদিন হয়তো প্রয়োজন ছিল। তবে এখন আর বেডরুম, ড্রয়িং রুম, লিভিং রুম, কিচেন, ফ্ল্যাট, অফিস কিংবা আঙ্গিনা সাজাতে ইঞ্জিনিয়ারের প্রয়োজন হবে না। আপনি নিজেই নিজের রুম সাজাতে পারবেন ভার্চুয়ালি, রুম অ্যারেঞ্জার ব্যবহার করে।

রুম অ্যারেঞ্জার সফটওয়্যারটি মূলত ব্যক্তিগত কিংবা প্রাতিষ্ঠানিক উদ্দেশ্যে বাসা-বাড়ি, অ্যাপার্টমেন্ট কিংবা গার্ডেন সাজানোর জন্য তৈরি। এটি ব্যবহার করে আপনি পছন্দমতো থ্রি-ডি মডেলে ডিজাইন করতে পারবেন আপনার বাসা, বাসার যেকোনো কক্ষ, অফিসরুম কিংবা বাড়ির আঙ্গিনা। আর যদি আপনি এ পেশায় নিয়োজিত থাকেন, তাহলে তো রুম অ্যারেঞ্জার সফটওয়্যার ব্যবহার করা আপনার দায়িত্বের মধ্যে পড়ে!
আসুন জেনে নিই কী কী বৈশিষ্ট্য আর গুণের অধিকারী এই রুম অ্যারেঞ্জার।

room-arranger-snapshot.jpg

সাধারণ একটি উদাহরণ দেই। রুম অ্যারেঞ্জার সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে আপনি নতুন একটি প্রজেক্ট খুলতে পারবেন। সেখানে আপনার ঘরের দৈর্ঘ্য এবং প্রস্থ দিয়ে শুরু করতে পারবেন সিঙ্গেল রুম কিংবা সম্পূর্ণ ফ্ল্যাট, বাড়ি, অফিস ইত্যাদি ডিজাইনের কাজ। দেয়াল তৈরি করতে পারবেন। ঘরের কোন জায়গায় কোন আসবাবপত্র রাখবেন তা নির্ধারণ করতে পারবেন থ্রিডি অবজেক্ট বসানোর মাধ্যমে। এভাবে মনের মতো ডিজাইন সম্পন্ন হলে থ্রিডি মডেলে আপনার তৈরি ফ্ল্যাট, অ্যাপার্টমেন্ট কিংবা অফিসের ডিজাইনের মধ্য দিয়ে ঘুরেফিরে দেখতে পারবেন কেমন হলো আপনার ডিজাইন।

নতুন প্রজেক্ট শুরু করা।

এভাবে নিজের পছন্দমতো দেয়াল তৈরি করতে পারবেন আপনার অফিস কিংবা ফ্ল্যাটের ডিজাইনে।

পছন্দমতো স্থান নির্বাচন করে অবজেক্ট গ্যালারি থেকে আসবাবপত্র বসাতে পারবেন আপনার রুমে। ইচ্ছেমতো রঙ্গে রাঙ্গিয়ে তুলতে পারবেন আপনার ডিজাইন।

সবশেষে থ্রিডি মডেলে উপভোগ করতে পারবেন নিজের তৈরি ডিজাইন নিজেই। 😀

অবজেক্ট গ্যালারি/আসবাবপত্র

উপরের ডিজাইনে হয়তো লক্ষ্য করেছেন বিভিন্ন ধরনের আসবাবপত্র যেমন সোফা, বেড, রোলিং চেয়ার, আলমারি, ড্রেসিং টেবিল ইত্যাদি দিয়ে সাজানো হয়েছে ঘরটি। আপনিও চাইলে এভাবে আপনার পছন্দের ফার্নিচার [যা সফটওয়্যারে অবজেক্ট নামে ব্যবহৃত] ব্যবহার করতে পারবেন আপনার রুম অ্যারেঞ্জিংয়ে। তবে আপনার পছন্দের অবজেক্টটি সফটওয়্যারের সঙ্গে নাও থাকতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য নিতে হবে অনলাইন গ্যালারির।
রুম অ্যারেঞ্জারের নিজস্ব ওয়েবসাইটের এই পৃষ্ঠা থেকে আপনি আপনার পছন্দমতো অবজেক্ট ডাউনলোড করতে পারবেন। যে অবজেক্টটি ডাউনলোড করতে চান তার উপর মাউস পয়েন্টার রেখে রাইট ক্লিক করুন এবং সেভ লিংক অ্যাজ..এ ক্লিক করুন। আপনার ফাইলটি ডাউনলোড হয়ে যাবে।

অবজেক্ট গ্যালারি

এরকম অসংখ্য অবজেক্ট ডাউনলোড করতে পারবেন আপনি যা পরবর্তীতে আপনার যেকোনো প্রজেক্টে ব্যবহার করা যাবে।

অথবা আপনি চাইলে সবগুলো অবজেক্টগুলো জিপ আকারে একসঙ্গে ডাউনলো করতে পারেন এখানে ক্লিক করে

যেভাবে ব্যবহার করবেন অবজেক্ট

প্রথমে আপনার পছন্দের অবজেক্টটি ডাউনলোড করুন। তারপর রুম অ্যারেঞ্জার সফটওয়্যারটি চলাকালীন সময়ে Object মেনু থেকে Browse User Library তে ক্লিক করুন। তারপর Import বাটনে ক্লিক করে ডাউনলোডকৃত অবজেক্টটি নির্বাচন করুন। এভাবে আপনি যতখুশি অবজেক্ট নির্বাচন করে আপনার মনের মতো করে সাজাতে পারবেন আপনার অফিস, ফ্ল্যাট, অ্যাপার্টমেন্ট ইত্যাদি।

রেডিমেড গ্যালারি

আপনার মতো অসংখ্য ডিজাইনার ঘরবাড়ি, অ্যাপার্টমেন্ট, ফ্ল্যাট, অফিস, আঙ্গিনা ইত্যাদি ডিজাইন করে আপলোড করে রেখেছেন রুম অ্যারেঞ্জারের গ্যালারিতে যেখান থেকে আপনি সাহায্য নিতে পারেন কিংবা বিনামূল্যে ডাউনলোড করে পছন্দের ডিজাইনটি নির্বাচন করতে পারেন। বিভিন্ন রেডিমেড ডিজাইনের গ্যালারি ব্রাউজ করতে কিংবা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

ডাউনলোড

দুঃসংবাদটা এখানেই। দারুণ কার্যকরী এই সফটওয়্যারটি একেবারে বিনামূল্যে ব্যবহারযোগ্য নয়। এখানে ক্লিক করে আপনি সফটওয়্যারটি ৩০ দিনের জন্য ফ্রি ট্রায়াল হিসেবে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। তারপর আপনাকে সফটওয়্যারটি কিনতে হবে। সিঙ্গেল ব্যবহারকারীর জন্য সফটওয়্যারটির মূল্য ২০ ডলার মাত্র। টাকা আপনি পেপাল কিংবা ভিসা/মাস্টারকার্ড/আমেরিকান এক্সপ্রেস ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত তথ্যের জন্য এখানে ক্লিক করুন

তবে যাই হোক, অন্তত পরীক্ষা করে দেখার জন্য ত্রিশ দিনের বিনামূল্যের ট্রায়াল ডাউনলোডের ব্যবস্থা আছে। তারপর পছন্দ হলে কিনে নিতে পারেন সফটওয়্যারটি। কেনার পর আপনাকে একটি সিরিয়াল নাম্বার দেয়া হবে যা ব্যবহার করে আপনি আপনার ট্রায়াল ভার্সনটিকে ফুল ভার্সনে রূপান্তর করতে পারবেন। তাহলে আর দেরি কেন? এখানে ক্লিক করে যেকোনো একটি ডাউনলোড লিংক ব্যবহার করে ডাউনলোড করুন রুম অ্যারেঞ্জার এবং ডিজাইনিং শুরু করুন আপনার রুম। ব্যবহার সংক্রান্ত টিপস নিত পারেন এখান থেকে

Level 0

আমি মো. আমিনুল ইসলাম সজীব। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 85 টি টিউন ও 201 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 6 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

বাহ ! বেশ চমতকার জিনিস তো যায় এখনই ডাউনলোড করে নেয়। কিন্তু ট্রায়াল ভার্সন তো…… 🙁

জটিল একটি টিউন।সফটটি ছোট-খাটো আর্কিটেকের কাজ করবে।সফটটি ডাউনলোড করে দেখি আশা করি ব্যবহার করে মজাই পাব।আচ্ছা সজীব কি ট্রায়াল ভারশন করছেন?

চমতকার জিনিস!

darun tune…. onke dhonno bad shajib