ডিজিটাল মার্কেটিং কে? কী? কেন? কীভাবে? [পর্ব-০৮] :: ডিজিটাল মার্কেটিং এ কী ধরনের ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি করা উচিৎ?

Level 34
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

ডিজিটাল মার্কেটিং কে? কী? কেন? কীভাবে?

আসসালামু আলাইকুম টেকটিউনস কমিউনিটি, কেমন আছেন সবাই? আশা করছি ভাল আছেন। আজকে হাজির হলাম "ডিজিটাল মার্কেটিং কে? কী? কেন? কীভাবে?" এর ৫ম পর্ব নিয়ে। আজকে আমরা আলোচনা করব ডিজিটাল মার্কেটিং এ কি ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করবেন, সেটা নিয়ে।

আপনি কি ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করবেন সেটা নির্ভর করবে আপনার অডিয়েন্স এর চাহিদা কি এবং সে বায়িং জার্নির কোন স্টেজে আছে। আপনি বায়ার পারসোনা তৈরি করে সেটা নির্ধারণ করতে পারেন। বায়ার পারসোনা তৈরি করতে makemypersona.com এই ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারেন এর মাধ্যমে আপনি অডিয়েন্স এর লক্ষ্য এবং বিজনেসের চ্যালেঞ্জ জানতে পারবেন। প্রাথমিক ভাবে আপনার কাজ হবে লক্ষ্য গুলো বাস্তবায়ন করা এবং চ্যালেঞ্জ গুলো ওভারকাম করা।

টার্গেট কন্টেন্ট তৈরির আগে আপনাকে জানতে হবে,

  • যাদের জন্য কন্টেন্ট তৈরি করা হচ্ছে তাদের বৈশিষ্ট্য কি?
  • কন্টেন্টটি সেলস ক্রিয়েটের সাথে কতটা সম্পর্কিত?

বায়িং স্টেজ অনুযায়ী কন্টেন্টে ভিন্নতা আসতে পারে। একজন কাস্টমারের প্রতিটি বায়িং স্টেজে কন্টেন্ট কেমন হতে পারে সেটা নিয়েই এখন আলোচনা করব।

এওয়ারনেস স্টেজ

চলুন দেখে নেয়া যাক এওয়ারনেস স্টেজে কন্টেন্ট কেমন হতে পারে,

ব্লগ Posts - ব্লগ আর্টিকেলের মাধ্যমে প্রচুর অর্গানিক ট্রাফিক পাওয়া যেতে পারে। যদি নির্দিষ্ট কিওয়ার্ড ভাল ভাবে SEO করা যায় তাহলে এক সাথে অনেক অডিয়েন্সকে নির্দিষ্ট বিষয় সম্পর্কে জানানো যেতে পারে।

ইনফোগ্রাফিক - ইনফোগ্রাফিক একটি শেয়ারেবল বিষয়। উপযুক্ত ইনফোগ্রাফিক তৈরি করে সোশ্যাল মিডিয়ায় Post করে প্রচুর শেয়ার পাওয়া যেতে পারে।

শর্ট ভিডিও - শর্ট ভিডিও এর যুগে, স্ট্রেটেজিক ভাবে বানানো কোনও শর্ট ভিডিও আপনার প্রোডাক্ট বা সার্ভিসকে দারুণ ভাবে প্রমোট করতে পারে। আপনি প্রোডাক্ট বা সার্ভিস সম্পর্কে বানানো ভিডিও ইউটিউব এর মত প্ল্যাটফর্ম গুলোতে শেয়ার করতে পারে।

কনসিডারেশন স্টেজ

চলুন দেখে নেয়া যাক কনসিডারেশন স্টেজে কন্টেন্ট কেমন হতে পারে,

ই-বুক - ব্লগ এবং ইনফোগ্রাফিকের চেয়ে লিড জেনারেশনে ই-বুক বেশি কার্যকর। কারণ ই-বুক ডাউনলোড করতে ইউজাররা ইমেইল সাবমিট করে যার মাধ্যমে লিড জেনারেশন সহজ হয়।

Research Reports - লিড জেনারেশনে আরেকটি চমৎকার কন্টেন্ট টাইপ। যেহেতু রিপোর্ট বা ডেটা মিডিয়া এবং প্রেসে শেয়ার হয় সেহেতু এখানে এওয়ারনেস বৃদ্ধি পাওয়ার একটা পসিবিলিটি থাকে।

Webinars - আপনি যদি বিশদ ভাবে আপনার প্রোডাক্ট তুলে ধরতে পারেন তাহলে Webinars ভাল কাজ করতে পারে। কনসিডারেশন স্টেজে এটি ব্লগ Post বা অন্য যেকোনো মেথড থেকে ভাল কাজ করবে।

ডিসিশন মেকিং স্টেজ

চলুন দেখে নেয়া যাক ডিসিশন মেকিং স্টেজে কন্টেন্ট কেমন হতে পারে,

কেইস স্ট্যাডিজ - আপনার ওয়েবসাইটে বিশদ ভাবে কেইস স্টাডিজ থাকলে, যারা পণ্য ক্রয়ে আগ্রহী তাদের জন্য ডিসিশন নিতে সহজ হবে। এর মাধ্যমে পজিটিভ ভাবে তাদের ইনফ্লুয়েন্স করা যাবে।

Testimonials - যদি কেইস স্ট্যাডি আপনার বিজনেসের জন্য উপযুক্ত না হয় তাহলে Testimonial তৈরি করতে পারেন। ওয়েবসাইটে শর্ট একটা Testimonial আপনার অফিয়েন্সকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করতে পারে৷ যদি আপনার ক্লথিং ব্র‍্যান্ড হয় তাহলে এটি জানতে সাহায্য করবে অন্য লোকদের কেমন দেখাচ্ছে পোশাকটি। হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে মানুষজন এখানে কন্ট্রিবিউট করতে পারে।

শেষ কথা

একটি পণ্য কেনার আগে একজন ক্রেতা কয়েকটি ধাপ অতিক্রম করে যাকে বলা হয় বায়িং স্টেজ। প্রথম ধাপে সে পণ্যটি সম্পর্কে জানতে পারে, পরবর্তী ধাপে চিন্তা করে এবং সর্বশেষ সিদ্ধান্ত নেয়। এই প্রতিটা ধাপে একজন ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সপার্ট ভিন্ন ভিন্ন কন্টেন্ট তৈরি করতে পারে।

Level 34

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 517 টি টিউন ও 200 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 114 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস