Kaspersky Security Cloud Free – ক্লাউড কানেক্টেড সম্পূর্ণ ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস Kaspersky এর তরফ থেকে

টিউন বিভাগ সাইবার সিকিউরিটি
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 15
কন্টেন্ট রাইটার, টেল টেক আইটি, গাইবান্ধা

আমাদের মধ্যে এমন অনেকে রয়েছে, যারা নিজেদের পিসিটিকে নিরাপদ রাখার জন্য হয়তোবা অনেক এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকেন। আর আমাদের ব্যবহৃত এসব এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার গুলোর মধ্যে থেকে Kaspersky হলো অন্যতম একটি এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার।

২০১৬ সালে বিখ্যাত রাশিয়ান সফটওয়্যার ডেভেলপার Kaspersky প্রথম এই Kaspersky free anti-virus software চীনের বাজারে চালু করেছিল। আর এই এন্টিভাইরাস প্রোডাক্টটি প্রতিবছর বিশ্বে ব্যাপকভাবে প্রোমোট হয়ে আসছে। বর্তমানে তাইওয়ানের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ক্যাসপারস্কি এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার টি ডাউনলোড করা যায়। আর এটি সফলতার সঙ্গে Antivirus এর বাজারের অনেকটি শেয়ার দখল করে রয়েছে।

যাইহোক, আমরা যারা Windows 10 কিংবা তার পরবর্তী অপারেটিং সিস্টেম গুলো ব্যবহার করি, তাদের জন্য আলাদা করে কোন থার্ড পার্টি কোন এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই। এক্ষেত্রে, উইন্ডোজ টেনে থাকা বিল্ট-ইন Windows defender ই যথেষ্ট সুরক্ষা প্রদান করতে পারে। আর এটিই বর্তমানে একটি কম্পিউটারকে সুরক্ষা দেবার ক্ষেত্রে অনেক ভাল কাজ করছে। আপনি যদি আপনার ডিভাইস ব্যবহার করার ক্ষেত্রে কিছুটা সতেচন হন, তাহলে আপনার এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইন্সটল করার কোন প্রয়োজন নেই। কেননা, আপনার উইন্ডোজে থাকে ডিফল্ট সিকিউরিটি সিস্টেম ই যথেষ্ট শক্তিশালী। যাইহোক, উইন্ডোজ ১০ এ আলাদা করে Antivirus ইন্সটল না দেওয়া তেমন কোন হুমকির কারণ নয়, যদি আপনি কিছুটা সচেতন থাকেন।

Kaspersky Security Cloud এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার

Kaspersky Security Cloud এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার

কিছুদিন আগে আমি একটি নিউজ দেখেছি যে, ক্যাসপারস্কি তাদের Kaspersky Free কে Kaspersky Security Cloud Free দিয়ে Replace করতে চলেছে। আপনি যদি বর্তমানে কোন ওয়েবসাইট থেকে Kaspersky Free ডাউনলোড করতে চান, তবে আপনাকে পূর্বের ডাউনলোড পেজে যেতে হবে।

সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর ডিজাইনে ও পরিবর্তন হয়েছে। যেখানে কয়েক বছর আগের Antivirus Software গুলো বর্তমান ব্যবহারকারীদের চাহিদা পূরণ করতে পারে না। ক্যাসপারস্কি তাদের এই এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর কার্যকারীতাকে আরো সম্পূর্ণভাবে পরিবর্তন করার জন্য নতুন একটি নাম ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

Kaspersky Security Cloud Free সফটওয়্যারটি ভবিষ্যতে Kaspersky ব্যবহারকারীদের জন্য একটি নতুন পছন্দ হয়ে উঠবে। আর আপনি যদি এখনো অরিজিনাল Kaspersky Free 2019 ব্যবহার করেন, তবে এটি আপনার ডিভাইস থেকে Remove করার জন্য তাড়াহুড়া করবেন না। কেননা, ক্যাসপারস্কি ব্যবহারকারীদের জন্য প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আপডেট নিয়ে আসতে থাকবে, এবং বর্তমানে বিনামূল্যের নতুন এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটির চীনা ইন্টারফেস ও নেই। আর সেই সাথে, এটি অফিসিয়াল তাইওয়ান ওয়েবসাইটে ও পাওয়া যাবে না। আপনি যদি এটির এক্সপেরিয়েন্স অর্জন করতে চান, তাহলে আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটি ইন্সটল করার জন্য Kaspersky এর মার্কিন অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যেতে পারেন।

এবার আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে, কোন বৈশিষ্ট্যের জন্য বা কোন বিষয়টি Kaspersky Security Cloud কে Special করে তুলেছে? তাদের ওয়েবসাইটের মতে, এটি Adaptive Technology ব্যবহার করে নির্মিত প্রথম কোন এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার, যা ব্যবহারকারীর অভ্যাস অনুযায়ী স্বয়ংক্রিয়ভাবে Adjust হয়। এটি জানতে পারে, কখন ব্যবহারকারীকে কোন বিষয়ে Remind করিয়ে দিতে হবে এবং কখন সতর্ক করতে হবে; যাতে ব্যবহারকারীদের সরাসরি কোন ক্ষতি হতে না পারে।

যাইহোক, ফ্রি ভার্সনটি শুধুমাত্র আমাদেরকে কয়েকটি বেসিক এন্টিভাইরাস সুরক্ষা প্রদান করে থাকে। আর অন্যদিকে অন্যান্য সিকিউরিটি যেমন: Privacy protection, Secure payment, Account checks, Password Manager Wi-Fi monitoring at home, Cleaning এবং Optimization tool গুলো ব্যবহার করার জন্য অ্যাকাউন্টটিকে অবশ্যই আপগ্রেড করে নেওয়া আবশ্যক।

Kaspersky free এর মতো, Kaspersky Security Cloud মোবাইল ডিভাইস, IOS এবং Android অপারেটিং সিস্টেমে ও ব্যবহার করা যাবে। এটিতে বিল্ট-ইন সিকিউর কানেকশন হিসেবে ভিপিএন টুল রয়েছে এবং যা আপনাকে দৈনিক সর্বোচ্চ ২০০ এমবি পর্যন্ত ট্রাফিক ব্যবহার করতে দিবে।

Kaspersky Security Cloud

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Kaspersky Security Cloud

কীভাবে Kaspersky Security Cloud এন্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন?

কীভাবে Kaspersky security cloud এন্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন?

আপনি Kaspersky Security Cloud Free এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি তাইওয়ানের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে পাবেন না। এক্ষেত্রে আপনাকে US ওয়েবসাইট ভিজিট করতে হবে এবং সেখান থেকে এই সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে নিতে হবে। তবে চলুন, এবার দেখে নেওয়া যাক, কীভাবে আপনি ক্যাসপারস্কি সিকিউরিটি ক্লাউড এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করবেন এবং সেটি পূর্ণাঙ্গভাবে সেটআপ করবেন। এছাড়াও, নতুন এই এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার টি ডাউনলোড করার পর আপনি কোন কোন সুবিধা গুলো পাবেন সেগুলো ও দেখতে পাবেন।

ধাপ ১

Kaspersky Security Cloud সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করার জন্য আপনাকে প্রথমে উপরে দেওয়ার লিংকটিতে ক্লিক করতে হবে এবং Kaspersky এর US ওয়েব সাইটে যেতে হবে। তবে আপনি গুগলে সার্চ করে ও একই ওয়েবসাইটে যেতে পারেন। ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর আপনি এখানে "Download Now" নামের একটি বাটন পাবেন এবং এটি ডাউনলোড করার জন্য এখানে ক্লিক করুন।

Kaspersky Security Cloud

এরপর আপনি এখানে আপনার পিসিতে সফটওয়্যার টি ইন্সটল করার জন্য একটি ডাউনলোড অপশন পাবেন এবং নিচে "Other platforms" নামে আরও একটি অপশন পাবেন। এবার, আপনি যদি আপনার পিসির জন্য Kaspersky ডাউনলোড করতে চান; তবে এখানে থাকা প্রথমের Download অপশনটি তেই ক্লিক করুন। এছাড়া আইওএস বা অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ডিভাইসের জন্য Kaspersky security cloud অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করার জন্য "Other platforms" থেকে সেগুলো ডাউনলোড করুন।

ধাপ ২

সফটওয়্যারটি ইন্সটল করার আগে, প্রথমে এন্টি-ভাইরাস টির Language চয়েজ করতে পারেন। এই এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর ভাষা হিসেবে তিনটি ভাষা রয়েছে। এগুলো হলো: ইংরেজি স্প্যানিশ এবং ফরাসি। তবে, এই অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড বা ইন্সটল করার সময় ভাষা নির্বাচন করার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ নয়। এখানে আপনি যে ভাষাই নির্বাচন করুন না কেন, এক্ষেত্রে মূল প্রোগ্রামটির কোনো পরিবর্তন হবে না। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র সফটওয়্যারটির ভেতরে ইউজার ইন্টারফেসের ভাষা পরিবর্তন হবে।

আপনি এই ওয়েবসাইট থেকে সফটওয়্যারটির ফাইল ডাউনলোড করে ইন্সটল করার পর সেটি ওপেন করলে, নতুন করে ফাইল ডাউনলোড হতে থাকবে। আর এটি ইন্সটলের সময় আপনাকে অবশ্যই ইন্টারনেট সংযোগ চালু রাখতে হবে। আর এরপর পরবর্তীতে Kaspersky security cloud এর প্রয়োজনে ফাইলগুলো ডাউনলোড হবে এবং ইন্সটলেশন এর প্রক্রিয়া শুরু হবে। যাইহোক, এখান থেকে ডাউনলোডের পরীক্ষা শেষ হলে আপনি পরবর্তী ধাপগুলো সম্পূর্ণ করবেন।

ধাপ ৩

Kaspersky free এর বিপরীতে Kaspersky Security Cloud ব্যবহার করার জন্য আপনার অবশ্যই একটি একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার প্রয়োজন পড়বে। আপনার যদি Kaspersky এর অ্যাকাউন্ট না থেকে থাকে, তাহলে আপনাকে একটি একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে। নতুন একটি Account তৈরি করার জন্য আপনি এখানে প্রথমে একটি ইমেইল দেওয়ার অপশন পাবেন এবং এখানে আপনি আপনার ইমেইল দিয়ে দিবেন।

এর পরবর্তী ধাপে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড দিয়ে দিন এবং তারপর Create অপশন ক্লিক করে আপনার অ্যাকাউন্টের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন। তবে, সম্পূর্ণভাবে আপনার একাউন্টের রেজিস্ট্রেশন সম্পূর্ণ করতে, আপনার সেই ইমেইল অ্যাকাউন্টে একটি Email যাবে এবং যেটাতে ক্লিক করার মাধ্যমে আপনাকে ভেরিফিকেশন করতে হবে।

ধাপ ৪

রেজিস্ট্রেশন করার পরে আপনার একাউন্টের অটোমেটিক লগইন হয়ে যাবে এবং ব্যবহারকারীদের সুরক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে Kaspersky Security Cloud তখন থেকেই ব্যাকগ্রাউন্ডে একটিভ হয়ে যাবে। সাধারণত অন্যান্য ফ্রি প্রোডাক্টগুলোর মতোই এটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে ও আপনি প্রমোশনাল একটি মেসেজ দেখতে পাবেন; যেখানে আপনাকে বলা হবে যে, আপনি তাদের Upgrade plan করতে চান কিনা। যাইহোক, এখানে আপনাকে কিছু ফিচার ব্যবহার করার জন্য আপনাকে তাদের আপডেট প্যাকেজ কিনে নিতে হবে, আর এগুলো আপনি মার্ক অবস্থায় দেখতে পাবেন।

ডাটাবেজ আপডেট ও ফ্রি ভার্সনে বিল্ট-ইন ভাবে রয়েছে, অটোমেটিক ভাবে ভাইরাসের ইনফরমেশন গুলো Kaspersky Server থেকে ডাউনলোড এবং আপডেট করবে; যাতে করে আরো ভালো সুরক্ষা দেওয়া যায়।

ধাপ ৫

Kaspersky security cloud অ্যাপ্লিকেশনটির ভেতরে প্রবেশ করলে, এখানে ব্যবহারকারীদের নোটিফিকেশন বারে কিছু Suggestions শো করে। এখানে থাকা সাজেশন এর মধ্যে কিছু অন্যান্য প্রোডাক্ট ইন্সটল করার জন্য রিকমেন্ড করা হয়। তবে, আপনাকে এগুলো ব্যবহার করতে হবে না; আপনি চাইলে এই নোটিফিকেশন বার টিকে কে হাইড করে ও রাখতে পারেন। এতে করে এসব সাজেশন করা অ্যাপ্লিকেশনগুলো আপনার সফটওয়্যার এর হোম পেজে আর প্রদর্শিত হবে না।

এখন থেকে এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকবে এবং আপনার কম্পিউটারে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ব্যবস্থা প্রদান করবে। আর Kaspersky Security Cloud ইন্সটল করার পর কোন সেটিং ছাড়াই আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন।

যথারীতি অ্যাপ্লিকেশনটি ওপেন করে আপনি সাবস্ক্রিপশন নেওয়ার পেজে যেতে পারেন এবং সেখান থেকে সাবস্ক্রিপশন মডেল গুলো দেখতে পারেন। Free Kaspersky Security Cloud আপনি ৩৬৫ দিন দিনের জন্য ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন। পূর্ববর্তী Kaspersky free মডেলের মত, এটির রিনিউ এর মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই আবার পুনরায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে রিনিউ হবে; এ বিষয়ে আপনাকে আর চিন্তা করতে হবে না।

তো বন্ধুরা, এভাবেই মূলত আপনি Kaspersky free এর বদলে Kaspersky Security Cloud ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারেন।

Kaspersky Security Cloud ব্যবহার করার তিনটি কারণ

Kaspersky Security Cloud ব্যবহারের করার

এই অ্যাপ্লিকেশনটি আপনি আপনার ডিভাইসের নিয়মিত ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার স্ক্যানিং এর কাজে ব্যবহার করতে পারেন। এটি আপনার কম্পিউটারের জন্য প্রয়োজনীয় প্রটেকশন নিশ্চিত করবে। এছাড়াও এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করার অন্যতম কারণ গুলোর মধ্যে হল:

  • Kaspersky Security Cloud Free ভবিষ্যতে ক্যাসপারস্কির ফ্রি এন্টিভাইরাস প্রোডাক্ট হয়ে উঠবে
  • এটি উইন্ডোজ ছাড়াও, iOS এবং Android ডিভাইসে ব্যবহার করা যায়।
  • এটি এমন টেকনোলজিতে তৈরি, যা ব্যবহারকারীর ব্যবহারের অভ্যাস অনুযায়ী স্বয়ংক্রিয়ভাবে Adjust হয়।

ক্যাসপারস্কি সিকিউরিটি ক্লাউড সম্পর্কে আমার এক্সপেরিয়েন্স

আমি আমার কম্পিউটারে এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করে পুরো সিস্টেমকে স্ক্যান করার ক্ষেত্রে অনেক ভালো এক্সপেরিয়েন্স পেয়েছি। এটি, পুরো কম্পিউটারের ঝুঁকিপূর্ণ কোড যুক্ত ফাইল গুলোকে স্ক্যান করে এবং সেগুলোর Details প্রদান করে। সবদিক থেকে, Kaspersky Security Cloud অ্যাপ্লিকেশনটি আমার কাছে দারুণ লেগেছে।

তাহলে আজ থেকে আপনিও ক্যাসপারস্কি সিকিউরিটি ক্লাউড ডাউনলোড করুন এবং ব্যবহার শুরু করুন। আর অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহারের পর এটি সম্পর্কে আপনার মতামত টিউনমেন্ট করুন। ধন্যবাদ, আসসালামু আলাইকুম।

Level 15

আমি মো আতিকুর ইসলাম। কন্টেন্ট রাইটার, টেল টেক আইটি, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 369 টি টিউন ও 93 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 61 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 3 টিউনারকে ফলো করি।

“আল্লাহর ভয়ে তুমি যা কিছু ছেড়ে দিবে, আল্লাহ্ তোমাকে তার চেয়ে উত্তম কিছু অবশ্যই দান করবেন।” —হযরত মোহাম্মদ (সঃ)


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

সুন্দর হয়েছে টিউনটা।

    আপনার মতামতের জন্য ধন্যবাদ। আপনাদের সুন্দর মতামত আমাদেরকে নতুন টিউন লেখার অনুপ্রেরণা দেয়।