অ্যান্ড্রয়েড ফোনের আয়ু বাড়ানোর সেরা ৯টি উপায়

প্রতি বছর ফোন পরিবর্তন করা অনেকেরই পছন্দের একটি কাজ। এমন মানুষের সংখ্যা অবশ্য হাতেগোনা। অধিকাংশ মানুষ ‘প্রিয়’ ডিভাইসটির সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে চান। আপনি যদি এই দলের হন, তাহলে লেখাটি আপনার জন্য।

অ্যাপ আপডেট স্কিপ করবেন না:

ফোনের গতি ঠিক রাখতে অ্যাপের
আপডেট যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি ফোনের আয়ু ঠিক রাখতেও এটি কাজে দেয়। তাই অ্যাপ আপডেট চাইলে এড়িয়ে যাবেন না। পাশাপাশি অপারেটিং সেটিংসও আপডেট রাখবেন। এতে আপনার ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা নিশ্চিত হবে। আপডেটগুলো খুব একটা সময় নেয় না। যতটা নেয়, তার চেয়ে বেশি আপনাকে দেয়। আপনার ফোনের কোনো ত্রুটি থাকলে অপারেটিং সিস্টেমের আপডেটের সময় ঠিকও হয়। একই সঙ্গে ফোনের সার্বিক পারফর্ম্যান্স ঠিক রাখে। অ্যান্ড্রয়েড এবং আইফোনে অটোমেটিক আপডেট পাওয়া যায়। সেটি পেতে হলে ডিফল্ট সেটিংস সচল রাখতে হয়। অ্যান্ড্রয়েডে অটোআপডেট সচল করতে হলে প্লেস্টোরের সেটিংস অপশনে যেতে হবে। এখানে ‘Auto-update apps’ অপশন পাবেন। আইফোন ব্যবহারকারীরা
Settings > iTunes & App Store
অনুসরণ করবেন। তারপর ‘App Updates’ স্লাইড করে ‘On’পজিশনে আনুন।

Kinemaster Apk Download

অ্যাপ ডিলিট:

ফোনে অতিরিক্ত অ্যাপ রাখবেন না। নিয়মিত ডিলিট করবেন। তাতে আপনার ফোনের কার্যক্ষমতা যেমন বাড়বে, তেমনি আয়ুও বাড়বে। অব্যবহৃত অ্যাপ ডিলিট করতে ‘Delete unused apps’ অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারেন।

ফোন কেসের ব্যবহার:

ফোনে সব সময় আলাদা কেস ব্যবহার করা উচিত। তাতে হাত থেকে পড়ে গেলেও নষ্ট হওয়ার ভয় কম
থাকবে।

স্ক্রিন এবং পোর্ট পরিষ্কার:

ফোন পরিষ্কার রাখা খুবই জরুরি। কেস ব্যবহার করলেও নিয়মিত খুলে পরিষ্কার করবেন। ক্যাবল, মাইক্রোফোনের জন্য যে পোর্ট ব্যবহার করেন, সেটিও পরিষ্কার করবেন। এর পাশাপাশি স্ক্রিনও পরিষ্কার রাখবেন। তাতে ফোনের ভেতরে কম ময়লা জমবে। ফোন ভালো থাকবে।

পরিমিত ব্যবহার:

ফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার কমাতে হবে। ফোন যেন গরম না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ব্যাটারি যত কম গরম হবে, ফোনের আয়ু তত
বাড়বে। ফোন কখনোই সরাসরি সূর্যের আলোর নিচে রাখবেন না।

ব্যাটারি পরিবর্তন:

ব্যাটারি কোনো কারণে নষ্ট হয়ে গেলে ফোন পাল্টানোর দরকার নেই। আলাদা ব্যাটারি কিনতে পারেন।

বজ্রপাতের সময় ফোন চার্জ:

বজ্রপাত হলে পাওয়ার কর্ডের কারণে ফোনের ক্ষতি হতে পারে। তাই বজ্রপাতের সময়। ফোন চার্জে না দিয়ে অপেক্ষা করতে হবে।

ভাইব্রেশন:

সারাক্ষণ ফোন ভাইব্রেশনে দিয়ে রাখলে ব্যাটারি দ্রুত খরচ হয়। ফোনের আয়ু কমে যায়। তাই প্রয়োজন হলে ফোন সাইলেন্ট রাখা। ভালো।

যখন চার্জে দেবেন:

ফোনের চার্জ শূন্যে আসার আগেই প্লাগইন করা উচিত। ফোন যখন ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ চার্জে আসবে, তখনই চার্জে দেবেন। ১০০ শতাংশ চার্জ দেয়ার সময় না থাকলে ৮০ শতাংশ পর্যন্ত করতে পারেন। অর্থাৎ নিয়মটা হলো ফোনে সব সময় ৩০ থেকে ৮০ শতাংশ চার্জ রাখতে হবে। এতে বেশি দিন ব্যবহার করা যাবে। চার্জের সময় ফোনের। কভার/কেস খুলে রাখলে। ভালো হয়। এতে ফোন কম গরম হয়।

Level 1

আমি ইমরান হোসেন। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 2 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 12 টি টিউন ও 4 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস