ব্লাক লিস্ট কি এবং কেন?

ব্লাক লিস্ট বা কলো তালিকা কথাটি বাস্তব জীবনে অনেকে শুনে থাকি। তথ্য প্রযুক্তি বিশেষ করে ওয়েবে ব্লাক লিস্ট হলো - কোন ইউজার বা ওয়েবসাইট বা আইপির প্রবেশ অনধিকার তালিকা।

কোন ওয়েবসাইট বা আইপি ব্লাক লিস্ট অর্থ হলো আইপি টি বিভিন্ন সিস্টেমএ প্রবেশ করতে পারবে না। আপনার আইপি ব্লাক লিস্টেড হলে সেই আপপি থেকে ইমেইল পাঠালে যাদের ব্লাক লিস্ট তালিকায় আপনার আইপি তাদের মেইল সারভার মেইল গ্রহণ করবে না অনেক ক্ষেত্রে মেইলগুলো স্প্যাম বক্সে জমা হবে। আবার বিভিন্ন ব্রাউজারও ক্ষতিকর আইপি এবং ওয়েবসাইটের ব্লাকলিস্ট থাকে সেক্ষেত্রে সেই সব ব্রাউজারের কালো তালিকায় আপনার ওয়েবসাইটটি থাকলে উক্ত ব্রাউজার ব্যবহারকারীরা তাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করতে গেলে এক ধরনে নোটিস দেখবে। মজিলা ও ক্রোম ব্রাউজারে নিচের মতো দেখাবে।

আপনার আইপি বা ওয়েবস্ইট কি ব্লাকলিস্টেড? অনেক অনলাইন টুলের মধ্যে জনপ্রিয় একটি টুল হলো এমএক্সটুলবক্স্ এই টুলের মাধ্যমে সহজেই জেনে নিন কোন কোন প্রতিষ্ঠান আপনাকে ব্লাক লিস্টেড করেছে। নিচে একটি ব্লাক লিস্টেড আইপির স্ক্রিনসট দিলাম।

বিভিন্ন কারনে এই তালিকায় আপনার আইপির নাম উঠে যেতে পারে-

১. আপনার আ্ইপি/ওয়েবসাইট থেকে ই-মেইল মর্কেটিং এর উদ্দেশ্যে সয়ংক্রিয়ভাবে মেইল পাঠালে মেইল সারভার এবং জনপ্রিয় মেইল সার্ভিসগুলো খুব সহজেই আইপিগুলোকে বাছাই করতে পারে। স্প্যাম ডিটেক্ট করার বেশ কিছুসফটওয়্যার তাদের হতে আছে। খুব সহজেই আপনার আইপিটি কালো তালিকায় দেখতে পাবেন।

২. আপনার ওয়েবসাইটে ভাইরাস বা ট্রোজান আপলোড করলে ব্যবহারকারীর কম্পিউটার আক্রোমনের চেস্টাটিও সহজে ধরা পরতে পারে। অনেক ব্যবহারকারীই এন্টভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করে এবং আপনার সাইটথেকে যে আক্রমন হচ্ছে তা ডিটেক্ট করে তাদের ডাটাবেজে সংরক্ষণ করে। ফলে আপনার ওয়েবসাইটটি কালো তালিকায় যেতে পারে খুব সহজে।

৩. আপনার ওয়বসাইট থেকে ফিশিং করে থাকলে বা হ্যাকিং স্ক্রিপ্ট চালালেও আপনার আইপি সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞদের রিপোর্টের মাধ্যমে ব্লাক লিস্টেড হতে পারে।

ফিশিং এর উপরে ডিজে আরিফের বিস্তারিত লেখাটি পড়ে নিতে পারেন-

ফিশিং(Phishing) আসলে কি এবং কিভাবে হয়, অতঃপর বাঁচার কতিপয় উপায়!

অনেকে ইচ্ছাকৃতভাবে এটা করে থাকে আবার অনেকের ওয়েবসাইট অনিচ্ছাকৃত কালো তালিকাভূক্ত হয়ে যেতে পারে। অনেকে বিভিন্ন টেমপ্লেট, থিম এবং ওয়েব স্ক্রিপ্ট ফ্রিতে পেয়ে সারভারে আপলোড করে এবং এর ভিতরে সিকিউরিটি সমস্যা থাকতে পারে- যেমন ফিশিং স্ক্রিপ্ট থাকলে আপনার ওয়েবসাইট দিয়ে অন্যে ফিশিং করে যাবে। অথবা ইমেইল স্ক্রিপ্ট থাকলে অন্যে হয়তো ইমেইল মার্কেটিং করে যাবে মহা আনন্দে। কিন্তু আপনার ওয়েবসাইটটি নিজের অজান্তেই কালো তালিকায় চলে যাবে। এজন্য যে কোন জায়গা থেকেই স্ক্রিপ্ট এনে সারভারে আপলোড করা থেকে বিরত খাকা জরুরী এবং সাইটের সিকিউরিটি গ্যাপগুলো চেক করে নেওয়া জরুরী।

পোস্ট লিখেছেন- টিউটোহোস্ট পরিচালক মাহবুব টিউটো

প্রথম প্রকাশ- টিউটোরিয়াল বিডি

Level 0

আমি টিউটোহোস্ট। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 162 টি টিউন ও 69 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

টিউটোহোস্ট বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় ওয়েব হোস্টিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। যুক্তরাস্ট্র এবং যুক্তরাজ্য ভিত্তিক দ্রুতগতির বেশ কিছু ওয়েব সারভারে গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো নিরাপদে সংরক্ষণ করা হয়। আমরা এদেশে ২৪ ঘন্টা এবং বছরে ৩৬৫ দিন অনলাইন এবং ফোন সাপোর্টের ব্যবস্থা রেখেছি। বাংলেদশসহ অনেক দেশের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট আমাদের সারভার ব্যবহার করছে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

vai ay black list e porle tar theke bacar upay ke ta to bol len na??

ব্লাক লিস্ট রিকভার করা একটি দির্ঘমেয়াদী বেপার। অধিকাংশ ক্ষেত্রই আইপিটি পরিবর্তন করা ছাড়া উপায় থাকে না।
আর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ব্লাক লিস্ট থেকে নিজের আইপি ও সাইটকে দূর করতে হলে সেই প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করতে হয় এবং উপরোল্লেখিত তিনটি কাজ থেকে বিরত থাকতে হয়। পরবর্তিতে ব্লাক লিস্ট থেকে দূরে থাকার বেপারে বিস্তারিত আলোচনা করা ইচ্ছা আছে।

-মাহবুব, TutoHost.com, ০১৯১৫৬৩৪৩২৮

Bai amar ip oneak site gulu jamon forum site a anok shomoi spam dakai ar jonno ki korte hova doya kora bolben ki ar solution ki .